রাজশাহী , সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
পবিত্র ইদুল আযহা উপলক্ষে আগামী ১৬ জুন ২০২৪ থেকে ২১ জুন ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত বাংলার জনপদের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। ২২ জুন ২০২৪ তারিখ থেকে পুনরায় সকল কার্যক্রম চালু থাকবে। ***ধন্যবাদ**

লেকহেড স্কুলে চলতো জঙ্গি প্রশিক্ষণ

  • আপডেটের সময় : ১২:০৫:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২০ জানুয়ারী ২০১৯
  • ৫২ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

ঢাকা প্রতিনিধি: রাজধানীর ধানমন্ডি থেকে পুলিশের কালো তালিকাভুক্ত জঙ্গি সংগঠন জামাতুল মুসলিমিনের (জেএম) এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সদস্যরা।

রোববার ভোরে রাজধানীর ধানমন্ডি থেকে লেকহেড গ্রামার স্কুলের সাবেক মালিক রিজওয়ান হারুন নামে ওই জঙ্গি সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে লেকহেড গ্রামার স্কুলে জঙ্গি প্রশিক্ষণ দেয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছে।

Trulli

রোববার ডিএমপির এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ডিবি দক্ষিণ বিভাগের একটি টিম বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। রিজওয়ান জেএম’র প্রত্যক্ষ মদদদাতা।

ডিএমপি আরও জানিয়েছে, রিজওয়ানের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের ৩০ জানুয়ারি গুলশান থানায় সন্ত্রাস বিরোধী আইনে মামলা ছিল। ২০০৫ সালে জামাতুল মুসলিমিনের কার্যকলাপ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজরে আসলে সংগঠনটিকে কালো তালিকাভুক্ত করে সরকার।

ডিএমপি জানিয়েছে জামাতুল মুসলিমিন (জেএম) বাংলাদেশের সর্বপ্রথম আল-কায়দার মতাদর্শী জঙ্গি সংগঠন। রিজওয়ানসহ এই সংগঠনের অন্যান্য সহযোগীরা ঢাকা শহরের বিভিন্ন বাসা, মসজিদ এবং নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশে হারুন ইঞ্জিনিয়ারিং নামে নিজস্ব অফিস দাওয়াতের কাজ পরিচালনার জন্য ব্যবহার করত।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয় এই সংগঠনের সদস্যরা জঙ্গি কার্যক্রম দ্রুত বিস্তারের জন্য বিভিন্ন ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলসহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলে। তারই অংশ হিসেবে রিজওয়ান ২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠাতা লতিফ আহম্মেদের কাছ থেকে লেকহেড গ্রামার স্কুল কিনে নেয়। পরবর্তী সময়ে তিনি এখানে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ইসলামী জঙ্গিগোষ্ঠীর কার্যকলাপ সম্পর্কে উদ্বুদ্ধ করতে থাকে। এই স্কুলটি আসামি রিজওয়ান জঙ্গি প্রশিক্ষণের জন্য ব্যবহার করত।

বিজ্ঞপ্তিতে ডিএমপি আরও জানিয়েছে, এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অবগত হলে রিজওয়ান হারুন কৌশলে ২০১৭ সালে অপর আসামি খালেদ হাসান মতিনের কাছে লেকহেড গ্রামার স্কুলটির স্বত্ব বিক্রি করে আত্মগোপনে চলে যায়।

Adds Banner_2024

লেকহেড স্কুলে চলতো জঙ্গি প্রশিক্ষণ

আপডেটের সময় : ১২:০৫:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২০ জানুয়ারী ২০১৯

ঢাকা প্রতিনিধি: রাজধানীর ধানমন্ডি থেকে পুলিশের কালো তালিকাভুক্ত জঙ্গি সংগঠন জামাতুল মুসলিমিনের (জেএম) এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সদস্যরা।

রোববার ভোরে রাজধানীর ধানমন্ডি থেকে লেকহেড গ্রামার স্কুলের সাবেক মালিক রিজওয়ান হারুন নামে ওই জঙ্গি সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে লেকহেড গ্রামার স্কুলে জঙ্গি প্রশিক্ষণ দেয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছে।

Trulli

রোববার ডিএমপির এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ডিবি দক্ষিণ বিভাগের একটি টিম বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। রিজওয়ান জেএম’র প্রত্যক্ষ মদদদাতা।

ডিএমপি আরও জানিয়েছে, রিজওয়ানের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের ৩০ জানুয়ারি গুলশান থানায় সন্ত্রাস বিরোধী আইনে মামলা ছিল। ২০০৫ সালে জামাতুল মুসলিমিনের কার্যকলাপ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজরে আসলে সংগঠনটিকে কালো তালিকাভুক্ত করে সরকার।

ডিএমপি জানিয়েছে জামাতুল মুসলিমিন (জেএম) বাংলাদেশের সর্বপ্রথম আল-কায়দার মতাদর্শী জঙ্গি সংগঠন। রিজওয়ানসহ এই সংগঠনের অন্যান্য সহযোগীরা ঢাকা শহরের বিভিন্ন বাসা, মসজিদ এবং নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশে হারুন ইঞ্জিনিয়ারিং নামে নিজস্ব অফিস দাওয়াতের কাজ পরিচালনার জন্য ব্যবহার করত।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয় এই সংগঠনের সদস্যরা জঙ্গি কার্যক্রম দ্রুত বিস্তারের জন্য বিভিন্ন ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলসহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলে। তারই অংশ হিসেবে রিজওয়ান ২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠাতা লতিফ আহম্মেদের কাছ থেকে লেকহেড গ্রামার স্কুল কিনে নেয়। পরবর্তী সময়ে তিনি এখানে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ইসলামী জঙ্গিগোষ্ঠীর কার্যকলাপ সম্পর্কে উদ্বুদ্ধ করতে থাকে। এই স্কুলটি আসামি রিজওয়ান জঙ্গি প্রশিক্ষণের জন্য ব্যবহার করত।

বিজ্ঞপ্তিতে ডিএমপি আরও জানিয়েছে, এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অবগত হলে রিজওয়ান হারুন কৌশলে ২০১৭ সালে অপর আসামি খালেদ হাসান মতিনের কাছে লেকহেড গ্রামার স্কুলটির স্বত্ব বিক্রি করে আত্মগোপনে চলে যায়।