রাজশাহী , বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
পবিত্র ইদুল আযহা উপলক্ষে আগামী ১৬ জুন ২০২৪ থেকে ২১ জুন ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত বাংলার জনপদের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। ২২ জুন ২০২৪ তারিখ থেকে পুনরায় সকল কার্যক্রম চালু থাকবে। ***ধন্যবাদ**

নিয়ামতপুরে ১০১ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক

Adds Banner_2024

নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলায় শনিবার (০৮ জুন) রাতে অভিযান চালিয়ে ১০১ কেজি গাঁজাসহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে নওগাঁর গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশ। এ সময় মাদকদ্রব্য বহনের কাজে ব্যবহৃত একটি কাভার্ড ভ্যান জব্দ করা হয়। উপজেলার ছাতড়া-কোদালীশহর সড়কের সন্তোষপাড়া এলাকায় একটি কাভার্ড ভ্যানে তল্লাশি চালিয়ে এসব গাঁজা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার হওয়া গাঁজার মূল্য প্রায় ২০ লাখ টাকা।

রোববার (০৯ জুন) দুপুরে নওগাঁ ডিবি পুলিশের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান, নওগাঁর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) গাজিউর রহমান।

Trulli

গ্রেপ্তার দুজন হলেন, ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্জারামপুর উপজেলার খাউরপুর গ্রামের সুমন বাপ্পী (৩৫) ও নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার সন্তোষপাড়া গ্রামের টুয়েল ম-ল (৫৫)। গ্রেপ্তার ওই দুজন ব্যক্তি ছাড়াও গাঁজা উদ্ধারের এই ঘটনায় আরও ছয়জনের নাম উল্লেখ করে নিয়ামতপুর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়, গোপন সূত্রে কিছু মাদক ব্যবসায়ী বিপুল পরিমান গাঁজা নিয়ে নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার ছাতড়া বাজার এলাকার দিকে যাচ্ছে- এমন খবরের ভিত্তিতে নওগাঁ ডিবি পুলিশের একটি দল বিশেষ অভিযান পরিচালনা করেন। গোপন সংবাদ অনুযায়ী পুলিশ সদস্য রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টা থেকে উপজেলার ছাতড়া-কোদালীশহর সড়কের সন্তোষপাড়া এলাকায় অবস্থান নেয়। রাত ১টার দিকে ছাতড়া থেকে সন্তোষপাড়াগামী একটি কাভার্ডভ্যান সন্তোষপাড়া গ্রামের মোকলেছার রহমানের পুকুরের কাছে পৌঁছালে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ৮-১০ ব্যক্তি পালিয়ে যায়। পালানোর সময় সুমন বাপ্পী ও টুয়েল মন্ডল নামের দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে পুলিশ। পরে পুলিশ সদস্যরা আটক কাভার্ডভ্যানে তল্লাশি চালিয়ে চারটি পাটের বস্তার মধ্যে বিশেষ কায়দায় পলিথিন ও টেপ দিয়ে পেঁচানো অবস্থায় ৩৪টি গাঁজার প্যাকেট উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার করা গাঁজার ওজন ১০১ কেজি। বর্তমান বাজারমূল্য অনুযায়ী উদ্ধার করা গাঁজার আনুমানিক মূল্য ২০ লাখ ২০ হাজার টাকা।

এএসপি গাজিউর রহমান বলেন, এ ঘটনায় গ্রেপ্তার দুই ব্যক্তিসহ আট ব্যক্তির নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে নিয়ামতপুর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের আদালতে নেওয়া হবে। আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Adds Banner_2024

নিয়ামতপুরে ১০১ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক

আপডেটের সময় : ০৬:০৫:২১ অপরাহ্ন, রবিবার, ৯ জুন ২০২৪

নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলায় শনিবার (০৮ জুন) রাতে অভিযান চালিয়ে ১০১ কেজি গাঁজাসহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে নওগাঁর গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশ। এ সময় মাদকদ্রব্য বহনের কাজে ব্যবহৃত একটি কাভার্ড ভ্যান জব্দ করা হয়। উপজেলার ছাতড়া-কোদালীশহর সড়কের সন্তোষপাড়া এলাকায় একটি কাভার্ড ভ্যানে তল্লাশি চালিয়ে এসব গাঁজা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার হওয়া গাঁজার মূল্য প্রায় ২০ লাখ টাকা।

রোববার (০৯ জুন) দুপুরে নওগাঁ ডিবি পুলিশের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান, নওগাঁর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) গাজিউর রহমান।

Trulli

গ্রেপ্তার দুজন হলেন, ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্জারামপুর উপজেলার খাউরপুর গ্রামের সুমন বাপ্পী (৩৫) ও নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার সন্তোষপাড়া গ্রামের টুয়েল ম-ল (৫৫)। গ্রেপ্তার ওই দুজন ব্যক্তি ছাড়াও গাঁজা উদ্ধারের এই ঘটনায় আরও ছয়জনের নাম উল্লেখ করে নিয়ামতপুর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়, গোপন সূত্রে কিছু মাদক ব্যবসায়ী বিপুল পরিমান গাঁজা নিয়ে নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার ছাতড়া বাজার এলাকার দিকে যাচ্ছে- এমন খবরের ভিত্তিতে নওগাঁ ডিবি পুলিশের একটি দল বিশেষ অভিযান পরিচালনা করেন। গোপন সংবাদ অনুযায়ী পুলিশ সদস্য রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টা থেকে উপজেলার ছাতড়া-কোদালীশহর সড়কের সন্তোষপাড়া এলাকায় অবস্থান নেয়। রাত ১টার দিকে ছাতড়া থেকে সন্তোষপাড়াগামী একটি কাভার্ডভ্যান সন্তোষপাড়া গ্রামের মোকলেছার রহমানের পুকুরের কাছে পৌঁছালে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ৮-১০ ব্যক্তি পালিয়ে যায়। পালানোর সময় সুমন বাপ্পী ও টুয়েল মন্ডল নামের দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে পুলিশ। পরে পুলিশ সদস্যরা আটক কাভার্ডভ্যানে তল্লাশি চালিয়ে চারটি পাটের বস্তার মধ্যে বিশেষ কায়দায় পলিথিন ও টেপ দিয়ে পেঁচানো অবস্থায় ৩৪টি গাঁজার প্যাকেট উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার করা গাঁজার ওজন ১০১ কেজি। বর্তমান বাজারমূল্য অনুযায়ী উদ্ধার করা গাঁজার আনুমানিক মূল্য ২০ লাখ ২০ হাজার টাকা।

এএসপি গাজিউর রহমান বলেন, এ ঘটনায় গ্রেপ্তার দুই ব্যক্তিসহ আট ব্যক্তির নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে নিয়ামতপুর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের আদালতে নেওয়া হবে। আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।