Lead Newsউপজেলা পরিষদ নির্বাচনটপ স্টোরিজনির্বাচন

ভাতিজার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করলেন এমপি সালাম মূর্শেদী

জনপদ ডেস্ক:  আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে প্রভাবমুক্ত রাখতে আওয়ামী লীগের এমপি-মন্ত্রীদের আত্মীয়-স্বজনদেরও প্রার্থী হতে নিষেধ করেছেন দলীয় সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে নির্দেশ উপেক্ষা করে খুলনার রূপসা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন যুবলীগ নেতা নোমান ওসমানী রিচি।

তিনি খুলনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মূর্শেদীর ভাইয়ের ছেলে (ভাতিজা)। নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় ভাইয়ের ছেলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণা দিয়েছেন আব্দুস সালাম মূর্শেদী।

রোববার (১২ মে)  রাতে নিজের ফেসবুক পেজে তিনি এ ঘোষণা দেন। নিজের ফেসবুক আইডি’র ঘোষণাপত্রে সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মূর্শেদী উল্লেখ করেন, ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষিত হয়েছে। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ও সমাজ বিনির্মানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন পরিচালনার যে অঙ্গীকার রক্ষা করে চলেছে তা সারা বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে।

আগামী ৫ জুন রূপসা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও প্রভাবমুক্ত করার লক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মোতাবেক সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার মধ্যে নির্বাচনী আচরণ বিধি পালনে আন্তরিকতার সঙ্গে সচেষ্ট রয়েছি।

রূপসা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন আগামী ৫ জুন অনুষ্ঠিত হবে। যেখানে আমার ভাতিজা নোমান ওসমানী রিচি চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছে। আমার ভাতিজার অসৎ মানসিকতার কারণে আমি তাকে পরিত্যাগ ঘোষণা করি। আমার সামাজিক রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের প্রধান সমন্বয়কারী পদ থেকে তাকে বিগত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রায় দুই বছর আগে অব্যাহতি প্রদান করি।

আমার সামাজিক রাজনৈতিক ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার লক্ষে আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের পৃষ্ঠপোষকতায় নোমান ওসমানী রিচি রূপসা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবতীর্ণ হয়েছে।

আমি এ ঘোষণাপত্রের মাধ্যমে রূপসা উপজেলার সর্বস্তরের জনসাধারণের অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে, আমার ভাতিজার সঙ্গে আমার এবং আমার পরিবারের কোনো সম্পর্ক নেই । মূলত আমাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য নোমান ওসমানী রিচি রূপসা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবর্তীর্ণ হয়েছে। বিষয়টি সুস্পষ্ঠভাবে জানানোর জন্য এ ঘোষনাপত্রটি প্রকাশ করলাম।

এদিকে, এলাকাবাসী ও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতাদের কেউ কেউ এতদিন মনে করছিলেন, আব্দুস সালাম মূর্শেদী ক্ষমতা নিজের হাতে ধরে রাখতে নির্বাচনী এলাকায় ভাতিজাকে রূপসা উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করাচ্ছেন। যা স্পষ্ট করতে তিনি এ ঘোষণাপত্র প্রকাশ করেন।

আরো দেখুন

সম্পরকিত খবর

Back to top button