সারাবাংলা

অজ্ঞান পার্টির কবলে বর-কনের পরিবার, ১৬ জন হাসপাতালে ভর্তি

জনপদ ডেস্কঃ বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে একটি বিয়েবাড়িসহ দুটি বাড়ির সকলকে অজ্ঞান করে মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। অজ্ঞান অবস্থায় দুই বাড়ির ১৬ জনকে উদ্ধার করে শনিবার বেলা ৯ টার দিকে শরণখোলা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে খাউলিয়া ইউনিয়নের বানিয়াখালী গ্রামের হাবিবুর রহমান ওরফে তোতা মিয়া ও খেজুরবাড়িয়া গ্রামের গ্রাম পুলিশ নারায়ন চন্দ্র গোমস্তার বাড়িতে খাবারের সাথে চেতনানাশক পদার্থ মিশিয়ে রাখে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা। খাবার খেয়ে ওই দুই বাড়ির ৫ নারী ও ৩ জন শিশুসহ ১৬ সদস্য ঘরের মধ্যে বিক্ষিপ্ত অবস্থায় অজ্ঞান হয়ে পড়ে থাকে। শনিবার সকালে প্রতিবেশীরা সকলকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।

শরণখোলা উপজেলা হাসপাতালের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা প্রিয় গোপাল বিশ্বাস বলেন, অজ্ঞাত বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মোরেলগঞ্জের ১৬ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। ভর্তি থাকাদের মধ্যে রয়েছেন, বিয়েবাড়ির গৃহকর্তা হাবিবুর রহমান তোতা, তার ছেলে ফেরদৌস হাওলাদার, হাসান হাওলাদার, আশ্রাফুল ইসলাম, তিতাস হাওলাদার, নব-বিবাহিতা কনে আখি আক্তার ও বর নাঈম হোসেন।

এছাড়াও খেজুরবাড়িয়া গ্রামের গ্রাম পুলিশ নারায়ণ চন্দ্র গোমস্তা, তার স্ত্রী শ্যামলী রানী, পুত্রবধূ শান্তা রানী, ছোট ছেলে জীবন কুমার গোমস্তাকে অজ্ঞান অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে থানার ভারপ্রাাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোহাম্মদ সামসুদ্দীন বলেন, দুই বাড়ির কয়েকজনকে অজ্ঞান অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। কেউ লিখিত অভিযোগ দায়ের করেনি।

আরো দেখুন

সম্পরকিত খবর

Back to top button