রাজশাহী , মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
তিস্তা মহাপরিকল্পনায় চীন-ভারতের ভারসাম্য কীভাবে? বাংলাদেশের সঙ্গে তিস্তার পানি বণ্টন সম্ভব নয় : মমতা মারা গেছেন ‘জল্লাদ’ শাহজাহান ‘প্রযুক্তিজ্ঞান ছাড়া দেশ বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে পারে না’ দুদকে হা‌জির হন‌নি বেনজীর, আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা রাজশাহীতে দেখা মিলল সাত রাসেলস ভাইপারের, পিটিয়ে মারলো এলাকাবাসী নগর যুবলীগের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন শফিকুজ্জামান শফিক আওয়ামী লীগ জনগণের শক্তিতে বিশ্বাস করে : প্রধানমন্ত্রী বন্যায় স্থগিত জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন পরীক্ষা আ’লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী একাদশে ভর্তির প্রথম ধাপের ফল প্রকাশ আজ দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টায় বাস্তবায়ন হচ্ছে রাসিক মেয়র লিটনের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি রাজশাহী-কলকাতা ট্রেন চালুর ঘোষণা আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আগামীকাল দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে শেখ হাসিনাকে লাল গালিচা সংবর্ধনা রাজশাহী মহানগর যুবলীগের নেতৃত্বে মনি,রনি ও জেলায় সজল,সৈকত নির্বাচিত  প্রধানমন্ত্রীর কণ্ঠ শুনেই ছুটে এলো খরগোশের দল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে সব আন্তঃনগর ট্রেন রাসিক মেয়র ও তার পরিবারের সদস্যদের জড়িয়ে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছে উলামা কল্যাণ পরিষদ রাজশাহীতে ঈদের প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৭টায়

ইসিতে ৮২ জনের রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল

  • আপডেটের সময় : ০২:৫৩:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩ ডিসেম্বর ২০১৮
  • ১৬৯ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকঃ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) আজ প্রথম দিনে ৮২ জন আপিল করেছেন। রবিবার (২ ডিসেম্বর) রিটার্নিং কর্মকর্তাদের প্রার্থিতা বাতিলের সিদ্ধান্তের পরদিন আজ সোমবার (৩ ডিসেম্বর) আপিল করেন তারা।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মোট তিন হাজার ৬৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। রোববার মনোনয়নপত্র বাছাইয়ে ৭৮৬ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল এবং ২ হাজার ২৭৯ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আজ এই ৮২ জন নির্বাচন কমিশনে আপিল করেন।

এদের মধ্যে বিএনপির মীর নাছির উদ্দিন, গোলাম মওলা রনি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের রেজা কিবরিয়ার পাশাপাশি স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া হিরো আলমও রয়েছেন।

Trulli

রিটার্নিং কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আগামী বুধবার পর্যন্ত ইসিতে আপিল করা যাবে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার নেতৃত্বে ৬ থেকে ৮ ডিসেম্বর আপিলের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, ‘যেসব মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষিত হয়েছে, সেসব প্রার্থী তাদের প্রার্থিতা ফিরে পেতে ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত কমিশনে আপিলের সুযোগ পাবেন। ৬, ৭, ৮ ডিসেম্বর আপিল শুনানি করে নিষ্পত্তি করবে কমিশন। আগামী ৯ ডিসেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। ১০ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দ এবং ৩০ ডিসেম্বর ভোট হবে।

প্রথম দিন রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিলের আবেদন করলেন যারা

ঢাকা-১ খন্দকার আবু আশফাক, পটুয়াখালী-৩ গোলাম মাওলা রনি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ শামসুল হুদা, বগুড়া-৭ খোরশেদ মিলটন, খাগড়াছড়ি-আবুল ওয়াদুদ ভুইয়া, রাঙ্গামাটি- অমর কুমার দে, ঝিনাইদহ-১ আ. ওয়াহাব, ঢাকা-২০ তমিজউদদীন, সাতক্ষীরা-২ মো. আফসার আলী, কিশোরগঞ্জ-২ মো. আক্তারুজ্জামান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ তৈয়ব আলী, মাদারীপুর-৩ আব্দুল খালেক, দিনাজপুর-২ মোকাররম হোসেন।

ঝিনাইদহ-২ আব্দুল মজিদ, মাদারীপুর-৩ আব্দুল খালেক, দিনাজপুর-২ মোকারম হোসেন, ঝিনাইদহ-২ অব. লেফটেন্যান্ট আব্দুল মজিদ, দিনাজপুর-৩ সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম, জামালপুর-৪ ফরিদুল কবির তালুকদার।

পটুয়াখালী-৩ মো. শাহাজাহান, পটুয়াখালী-১ মো. সুমন, দিনাজপুর-১ পারভেজ হোসেন, মাদারীপুর-১ জহিরুল ইসলাম মিন্টু, সিলেট-৩ কাইয়ুম চৌধুরী, ঠাকুরগাঁও-৩ এস এম খলিলুর রহমান, জয়পুরহাট-১ মো. ফজলুল রহমান।

পাবনা-৩ হাসাদুল ইসলাম, ফেনী-১ মিজানুর রহমান, কিশোরগঞ্জ-৩ ড. মিজানুল হক, ময়মনসিংহ-৪ আবু সাঈদ মহিউদ্দিন, নেত্রকোনা-১ মো রুবেল ইসলাম, পঞ্চগড়-১ তৌহিদুল ইসলাম, ময়মনসিংহ-২ এনামুল হক খান, মানিকগঞ্জ-২ আরিফুর রহমান খান, খুলনা-২ এস এম এরশাদুর উজ্জামান, নটোর-১ নীরেন্দ্রনাথ শাহা, সিরাজগঞ্জ-৩ আইনাল হক, ঢাকা-১ আইয়ুব খান, বগুড়া-৩ আব্দুল মুহিত, গাজীপুর-২ মাহবুব আলম।

বগুড়া-৬ এ কে এম মাহাবুবুর রহমান, গাজীপুর-২ মো. জয়লান আবেদীন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ জেসমিন নুর বেবী, রংপুর-৪ মোস্তফা সেলিম, খুলনা-৬ এস এম শফিকুল আলম, বগুড়া-৪ মো. আশরাফুল হোসেন (হিরো আলম), হবিগঞ্জ-২ মো. জাকির হোসেন, হবিগঞ্জ-১ জোবাইর আহম্মেদ, ঢাকা-১৪ সাইফুদ্দিন আহম্মেদ, সাতক্ষীরা-১ মুজিবুর রহমান, ময়মনসিংহ-৭ জয়নাল আবেদীন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আব্দুল্লাহ আল হেলাল।

ময়মনসিংহ-২ মো আবু বক্কর সিদ্দিক, শেরপুর-২ এ কে এম মোখলেছুর রহমান, হবিগঞ্জ-৪ মওলানা মো সোলাইমান খান, নাটোর-৪ আলাউদ্দিন মৃধা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ মো, বশির উল্লাহ, নওগা-৪ মো. আফজাল হোসেন, কুড়িগ্রাম-৪ ইউনুস আলী, বরিশাল-২ আনিসুজ্জামান, ঢাকা-৫ সেলিম ভুইয়া, ঝিনাইদহ-৩ কামরুজ্জামান, মৌলভীবাজার-২ মহিবুল কাদির চৌধুরী, কুমিল্লা-৩ কে এম মুজিবুল হক, মানিকগঞ্জ-১ তোজাম্মেল হক।

সিলেট-৫ ফয়েজুল মনির চৌধুরী, ময়মনসিংহ-৩ আহম্মেদ তাইবুর রহমান, চট্টগ্রাম-৫ মীর নাছির উদ্দিন, ঝিনাইদহ-৪ আব্দুল মান্নান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ সৈয়দ আহম্মদ লিটন, ফেনী-৩ হাসান আহম্মদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ মামুনুর রশিদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আবু আসিফ আহম্মদ, ঢাকা-১৪ জাকির হোসেন, ময়মনসিংহ-১০ হাবিবুল্লাহ বেলালী, পঞ্চগড়-২ ফরহাদ হোসেন আজাদ, জামালপুর-৪ মামুনুর রশিদ।

মানিকগঞ্জ-৩ আতাউর রহমান আতা, ময়মনসিংহ-৮ এম এ বাশার, ঢাকা-১৪ আবু বক্কর সিদ্দিক, বগুড়া-২ আবুল কাশেম, কুড়িগ্রাম-৩ আব্দুল খালেক, কুড়িগ্রাম-৪ মাহাফুজা রহমান ও নেত্রকোনা-১ শাহ কুতুব উদ্দিন তালুকদার।

Adds Banner_2024

ইসিতে ৮২ জনের রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল

আপডেটের সময় : ০২:৫৩:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩ ডিসেম্বর ২০১৮

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকঃ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) আজ প্রথম দিনে ৮২ জন আপিল করেছেন। রবিবার (২ ডিসেম্বর) রিটার্নিং কর্মকর্তাদের প্রার্থিতা বাতিলের সিদ্ধান্তের পরদিন আজ সোমবার (৩ ডিসেম্বর) আপিল করেন তারা।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মোট তিন হাজার ৬৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। রোববার মনোনয়নপত্র বাছাইয়ে ৭৮৬ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল এবং ২ হাজার ২৭৯ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আজ এই ৮২ জন নির্বাচন কমিশনে আপিল করেন।

এদের মধ্যে বিএনপির মীর নাছির উদ্দিন, গোলাম মওলা রনি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের রেজা কিবরিয়ার পাশাপাশি স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া হিরো আলমও রয়েছেন।

Trulli

রিটার্নিং কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আগামী বুধবার পর্যন্ত ইসিতে আপিল করা যাবে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার নেতৃত্বে ৬ থেকে ৮ ডিসেম্বর আপিলের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, ‘যেসব মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষিত হয়েছে, সেসব প্রার্থী তাদের প্রার্থিতা ফিরে পেতে ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত কমিশনে আপিলের সুযোগ পাবেন। ৬, ৭, ৮ ডিসেম্বর আপিল শুনানি করে নিষ্পত্তি করবে কমিশন। আগামী ৯ ডিসেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। ১০ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দ এবং ৩০ ডিসেম্বর ভোট হবে।

প্রথম দিন রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিলের আবেদন করলেন যারা

ঢাকা-১ খন্দকার আবু আশফাক, পটুয়াখালী-৩ গোলাম মাওলা রনি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ শামসুল হুদা, বগুড়া-৭ খোরশেদ মিলটন, খাগড়াছড়ি-আবুল ওয়াদুদ ভুইয়া, রাঙ্গামাটি- অমর কুমার দে, ঝিনাইদহ-১ আ. ওয়াহাব, ঢাকা-২০ তমিজউদদীন, সাতক্ষীরা-২ মো. আফসার আলী, কিশোরগঞ্জ-২ মো. আক্তারুজ্জামান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ তৈয়ব আলী, মাদারীপুর-৩ আব্দুল খালেক, দিনাজপুর-২ মোকাররম হোসেন।

ঝিনাইদহ-২ আব্দুল মজিদ, মাদারীপুর-৩ আব্দুল খালেক, দিনাজপুর-২ মোকারম হোসেন, ঝিনাইদহ-২ অব. লেফটেন্যান্ট আব্দুল মজিদ, দিনাজপুর-৩ সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম, জামালপুর-৪ ফরিদুল কবির তালুকদার।

পটুয়াখালী-৩ মো. শাহাজাহান, পটুয়াখালী-১ মো. সুমন, দিনাজপুর-১ পারভেজ হোসেন, মাদারীপুর-১ জহিরুল ইসলাম মিন্টু, সিলেট-৩ কাইয়ুম চৌধুরী, ঠাকুরগাঁও-৩ এস এম খলিলুর রহমান, জয়পুরহাট-১ মো. ফজলুল রহমান।

পাবনা-৩ হাসাদুল ইসলাম, ফেনী-১ মিজানুর রহমান, কিশোরগঞ্জ-৩ ড. মিজানুল হক, ময়মনসিংহ-৪ আবু সাঈদ মহিউদ্দিন, নেত্রকোনা-১ মো রুবেল ইসলাম, পঞ্চগড়-১ তৌহিদুল ইসলাম, ময়মনসিংহ-২ এনামুল হক খান, মানিকগঞ্জ-২ আরিফুর রহমান খান, খুলনা-২ এস এম এরশাদুর উজ্জামান, নটোর-১ নীরেন্দ্রনাথ শাহা, সিরাজগঞ্জ-৩ আইনাল হক, ঢাকা-১ আইয়ুব খান, বগুড়া-৩ আব্দুল মুহিত, গাজীপুর-২ মাহবুব আলম।

বগুড়া-৬ এ কে এম মাহাবুবুর রহমান, গাজীপুর-২ মো. জয়লান আবেদীন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ জেসমিন নুর বেবী, রংপুর-৪ মোস্তফা সেলিম, খুলনা-৬ এস এম শফিকুল আলম, বগুড়া-৪ মো. আশরাফুল হোসেন (হিরো আলম), হবিগঞ্জ-২ মো. জাকির হোসেন, হবিগঞ্জ-১ জোবাইর আহম্মেদ, ঢাকা-১৪ সাইফুদ্দিন আহম্মেদ, সাতক্ষীরা-১ মুজিবুর রহমান, ময়মনসিংহ-৭ জয়নাল আবেদীন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আব্দুল্লাহ আল হেলাল।

ময়মনসিংহ-২ মো আবু বক্কর সিদ্দিক, শেরপুর-২ এ কে এম মোখলেছুর রহমান, হবিগঞ্জ-৪ মওলানা মো সোলাইমান খান, নাটোর-৪ আলাউদ্দিন মৃধা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ মো, বশির উল্লাহ, নওগা-৪ মো. আফজাল হোসেন, কুড়িগ্রাম-৪ ইউনুস আলী, বরিশাল-২ আনিসুজ্জামান, ঢাকা-৫ সেলিম ভুইয়া, ঝিনাইদহ-৩ কামরুজ্জামান, মৌলভীবাজার-২ মহিবুল কাদির চৌধুরী, কুমিল্লা-৩ কে এম মুজিবুল হক, মানিকগঞ্জ-১ তোজাম্মেল হক।

সিলেট-৫ ফয়েজুল মনির চৌধুরী, ময়মনসিংহ-৩ আহম্মেদ তাইবুর রহমান, চট্টগ্রাম-৫ মীর নাছির উদ্দিন, ঝিনাইদহ-৪ আব্দুল মান্নান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ সৈয়দ আহম্মদ লিটন, ফেনী-৩ হাসান আহম্মদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ মামুনুর রশিদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আবু আসিফ আহম্মদ, ঢাকা-১৪ জাকির হোসেন, ময়মনসিংহ-১০ হাবিবুল্লাহ বেলালী, পঞ্চগড়-২ ফরহাদ হোসেন আজাদ, জামালপুর-৪ মামুনুর রশিদ।

মানিকগঞ্জ-৩ আতাউর রহমান আতা, ময়মনসিংহ-৮ এম এ বাশার, ঢাকা-১৪ আবু বক্কর সিদ্দিক, বগুড়া-২ আবুল কাশেম, কুড়িগ্রাম-৩ আব্দুল খালেক, কুড়িগ্রাম-৪ মাহাফুজা রহমান ও নেত্রকোনা-১ শাহ কুতুব উদ্দিন তালুকদার।