রাজশাহী , মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
পবিত্র ইদুল আযহা উপলক্ষে আগামী ১৬ জুন ২০২৪ থেকে ২১ জুন ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত বাংলার জনপদের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। ২২ জুন ২০২৪ তারিখ থেকে পুনরায় সকল কার্যক্রম চালু থাকবে। ***ধন্যবাদ**

নবীগঞ্জে তিন গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত ৩০

  • আপডেটের সময় : ১২:৩৫:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩ ডিসেম্বর ২০১৮
  • ৭৭ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি: তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে তিন গ্রামবাসীর সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন।

সোমবার (৩ ডিসেম্বর) বিকেলে উপজেলার ইমামবাড়ী বাজারে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সাত রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পুলিশ।

Trulli

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিকেলে ওই বাজারের ব্যবসায়ী হাজী সাইফুল ইসলামের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে গ্যাসের সিলিন্ডার বোঝাই গাড়ি রাখেন চালক লহরজপুর গ্রামের আলতু মিয়ার ছেলে নজরুল ইসলাম। এ সময় নজরুলকে পুরানগাঁও গ্রামের আরজু মেম্বারের ছেলে নিজাম ও সাইফুর বাধা দিলে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। একপর্যায়ে নজরুলের চাচাত ভাই কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়ন কৃষকলীগ সভাপতি কয়েস মিয়া এগিয়ে এলে বল্লম দিয়ে তাকে আঘাত করেন নিজাম ও সাইফুর। এ নিয়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। নজরুলের পক্ষে শ্রীমতপুর ও লহরজপুর গ্রামের লোকজন এবং নিজাম ও সাইফুরের পক্ষে পুরানগাঁও গ্রামের লোকজন এতে অংশ নেয়। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হয়। বন্ধ হয়ে যায় হবিগঞ্জ-নবীগঞ্জ সড়কে যান চলাচল।

নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সাত রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। আহতদের উদ্ধার করে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতাল এবং নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি ও চিকিৎসা দেওয়া হয়। হবিগঞ্জ-নবীগঞ্জ সড়কের যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে।

Adds Banner_2024

নবীগঞ্জে তিন গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত ৩০

আপডেটের সময় : ১২:৩৫:১০ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩ ডিসেম্বর ২০১৮

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি: তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে তিন গ্রামবাসীর সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন।

সোমবার (৩ ডিসেম্বর) বিকেলে উপজেলার ইমামবাড়ী বাজারে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সাত রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পুলিশ।

Trulli

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিকেলে ওই বাজারের ব্যবসায়ী হাজী সাইফুল ইসলামের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে গ্যাসের সিলিন্ডার বোঝাই গাড়ি রাখেন চালক লহরজপুর গ্রামের আলতু মিয়ার ছেলে নজরুল ইসলাম। এ সময় নজরুলকে পুরানগাঁও গ্রামের আরজু মেম্বারের ছেলে নিজাম ও সাইফুর বাধা দিলে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। একপর্যায়ে নজরুলের চাচাত ভাই কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়ন কৃষকলীগ সভাপতি কয়েস মিয়া এগিয়ে এলে বল্লম দিয়ে তাকে আঘাত করেন নিজাম ও সাইফুর। এ নিয়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। নজরুলের পক্ষে শ্রীমতপুর ও লহরজপুর গ্রামের লোকজন এবং নিজাম ও সাইফুরের পক্ষে পুরানগাঁও গ্রামের লোকজন এতে অংশ নেয়। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হয়। বন্ধ হয়ে যায় হবিগঞ্জ-নবীগঞ্জ সড়কে যান চলাচল।

নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সাত রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। আহতদের উদ্ধার করে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতাল এবং নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি ও চিকিৎসা দেওয়া হয়। হবিগঞ্জ-নবীগঞ্জ সড়কের যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে।