রাজশাহী , শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
রাজশাহীতে ঈদের প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৭টায় রাজশাহীতে র‌্যাবের জালে ২৪ জুয়াড়ি লাব্বাইক ধ্বনিতে মুখর আরাফাত ময়দান পবিত্র হজ আজ এমপি আনার হত্যা: আ.লীগ নেতা গ্যাস বাবুর দোষ স্বীকার টুং টাং শব্দে ব্যস্ত সময় পার করছে রাজশাহীর কামাররা রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত ১২৭৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যুগান্তর পত্রিকায় মেয়রসহ তার পরিবারকে নিয়ে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা কাল থেকে টানা ৫ দিনের ছুটিতে যাচ্ছেন সরকারি চাকরিজীবীরা ফের দি‌ল্লি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বগুড়ায় ব্যাংকের সিন্দুক কেটে ২৯ লাখ টাকা লুট বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে চলবে যাত্রীবাহী ফেরি শেখ হাসিনাকে ‘কোয়ালিশন অব লিডার্স’-এ চায় গ্লোবাল ফান্ড তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি : প্রধানমন্ত্রী দুর্যোগ মোকাবিলায় ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানালেন প্রধানমন্ত্রী বেনজীর পরিবারের আরও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ বড় দুঃসংবাদ পেলেন সাকিব পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে : প্রধানমন্ত্রী কুয়েতে ভবনে ভয়াবহ আগুন, নিহত অন্তত ৩৯ আনার হত্যাকাণ্ড : ডিবি কার্যালয়ে ঝিনাইদহ আ. লীগ সম্পাদক মিন্টু

নির্বাচনের দিন বাংলাদেশকে রণক্ষেত্র বানানোর পরিকল্পনা তারেকের

  • আপডেটের সময় : ০৫:৩৬:২৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ নভেম্বর ২০১৮
  • ৯০ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

জনপদ ডেস্ক: ২৭ নভেম্বর লন্ডনে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের সঙ্গে গোপন বৈঠকে বসেছিলেন বিএনপি নেতা তারেক রহমান। নির্বাচনের ফলাফল বিএনপির বিপক্ষে গেলে সমগ্র বাংলাদেশে একযোগে বোমা হামলার পরিকল্পনা করা হয় উক্ত বৈঠকে। লন্ডনের একটি বিশেষ সূত্র-বরাত তথ্যের সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গিয়েছে।

লন্ডন সূত্র জানায়, জিয়াউর রহমানের কথিত বোন সায়রা বেগমের লন্ডনের বাস ভবনে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে লন্ডনস্থ পাকিস্তান হাই কমিশনের একজন মিলিটারি কর্মকর্তা ও পাকিস্তানী গোয়েন্দা সংস্থার একজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে তারেক রহমানের সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন জামায়াত নেতা ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাক, মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বুদ্ধিজীবী হত্যার দুই মহানায়ক চৌধুরী মঈনুদ্দিন ও আশরাফুল আলম। বৈঠকে বাংলাদেশের নির্বাচনে নাশকতা চালানোর জন্য পাকিস্তানের পক্ষ থেকে ৫ মিলিয়ন ডলারের একটি ফান্ড তারেক রহমানের কাছে হস্তান্তর করা হয় ।

Trulli

জানা যায়, নির্বাচনের দিন ফলাফল বিএনপির পক্ষে না গেলে সংঘাত সৃষ্টির জন্য একটি পরিকল্পনা ইতিমধ্যে চূড়ান্ত হয়েছে। পরিকল্পনার বিষয় হচ্ছে নির্বাচনের দিন পুলিশ, র‌্যাব ও অন্যান্য বাহিনীর উপর হামলা করে গোলমালের সূত্র ধরে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হবে। এছাড়া পল্টনের হামলার জের হিসেবে আরও কিছু সংঘাত সৃষ্টি, জেএমবিসহ জঙ্গিদের অর্থায়ন নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়।

উল্লেখ্য, খালেদা জিয়া লন্ডনে থাকাকালীন এ বাসায় দুই দফা এমন বৈঠক হয়েছিলো। সেই বৈঠকগুলোতেও পাকিস্তানী সামরিক বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। জানা যায়, সেই বাসাটাই এখন বাংলাদেশের জন্য কাশিম বাজারের কুঠি। তারেক রহমান নাকি এখন করাচীর মাধ্যমে ঢাকাকে গোপনে মনিটরিং করছেন।

তবে এ প্রসঙ্গে রাজধানীর একাধিক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজধানীসহ দেশের কোন প্রান্তে জঙ্গি হামলা বা সংঘাত সৃষ্টি করার সুযোগ দেয়া হবে না। যেকোন ধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে প্রস্তুত রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

Adds Banner_2024

নির্বাচনের দিন বাংলাদেশকে রণক্ষেত্র বানানোর পরিকল্পনা তারেকের

আপডেটের সময় : ০৫:৩৬:২৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ নভেম্বর ২০১৮

জনপদ ডেস্ক: ২৭ নভেম্বর লন্ডনে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের সঙ্গে গোপন বৈঠকে বসেছিলেন বিএনপি নেতা তারেক রহমান। নির্বাচনের ফলাফল বিএনপির বিপক্ষে গেলে সমগ্র বাংলাদেশে একযোগে বোমা হামলার পরিকল্পনা করা হয় উক্ত বৈঠকে। লন্ডনের একটি বিশেষ সূত্র-বরাত তথ্যের সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গিয়েছে।

লন্ডন সূত্র জানায়, জিয়াউর রহমানের কথিত বোন সায়রা বেগমের লন্ডনের বাস ভবনে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে লন্ডনস্থ পাকিস্তান হাই কমিশনের একজন মিলিটারি কর্মকর্তা ও পাকিস্তানী গোয়েন্দা সংস্থার একজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে তারেক রহমানের সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন জামায়াত নেতা ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাক, মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বুদ্ধিজীবী হত্যার দুই মহানায়ক চৌধুরী মঈনুদ্দিন ও আশরাফুল আলম। বৈঠকে বাংলাদেশের নির্বাচনে নাশকতা চালানোর জন্য পাকিস্তানের পক্ষ থেকে ৫ মিলিয়ন ডলারের একটি ফান্ড তারেক রহমানের কাছে হস্তান্তর করা হয় ।

Trulli

জানা যায়, নির্বাচনের দিন ফলাফল বিএনপির পক্ষে না গেলে সংঘাত সৃষ্টির জন্য একটি পরিকল্পনা ইতিমধ্যে চূড়ান্ত হয়েছে। পরিকল্পনার বিষয় হচ্ছে নির্বাচনের দিন পুলিশ, র‌্যাব ও অন্যান্য বাহিনীর উপর হামলা করে গোলমালের সূত্র ধরে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হবে। এছাড়া পল্টনের হামলার জের হিসেবে আরও কিছু সংঘাত সৃষ্টি, জেএমবিসহ জঙ্গিদের অর্থায়ন নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়।

উল্লেখ্য, খালেদা জিয়া লন্ডনে থাকাকালীন এ বাসায় দুই দফা এমন বৈঠক হয়েছিলো। সেই বৈঠকগুলোতেও পাকিস্তানী সামরিক বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। জানা যায়, সেই বাসাটাই এখন বাংলাদেশের জন্য কাশিম বাজারের কুঠি। তারেক রহমান নাকি এখন করাচীর মাধ্যমে ঢাকাকে গোপনে মনিটরিং করছেন।

তবে এ প্রসঙ্গে রাজধানীর একাধিক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজধানীসহ দেশের কোন প্রান্তে জঙ্গি হামলা বা সংঘাত সৃষ্টি করার সুযোগ দেয়া হবে না। যেকোন ধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে প্রস্তুত রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।