রাজশাহী , শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
রাজশাহীতে ঈদের প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৭টায় রাজশাহীতে র‌্যাবের জালে ২৪ জুয়াড়ি লাব্বাইক ধ্বনিতে মুখর আরাফাত ময়দান পবিত্র হজ আজ এমপি আনার হত্যা: আ.লীগ নেতা গ্যাস বাবুর দোষ স্বীকার টুং টাং শব্দে ব্যস্ত সময় পার করছে রাজশাহীর কামাররা রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত ১২৭৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যুগান্তর পত্রিকায় মেয়রসহ তার পরিবারকে নিয়ে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা কাল থেকে টানা ৫ দিনের ছুটিতে যাচ্ছেন সরকারি চাকরিজীবীরা ফের দি‌ল্লি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বগুড়ায় ব্যাংকের সিন্দুক কেটে ২৯ লাখ টাকা লুট বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে চলবে যাত্রীবাহী ফেরি শেখ হাসিনাকে ‘কোয়ালিশন অব লিডার্স’-এ চায় গ্লোবাল ফান্ড তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি : প্রধানমন্ত্রী দুর্যোগ মোকাবিলায় ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানালেন প্রধানমন্ত্রী বেনজীর পরিবারের আরও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ বড় দুঃসংবাদ পেলেন সাকিব পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে : প্রধানমন্ত্রী কুয়েতে ভবনে ভয়াবহ আগুন, নিহত অন্তত ৩৯ আনার হত্যাকাণ্ড : ডিবি কার্যালয়ে ঝিনাইদহ আ. লীগ সম্পাদক মিন্টু

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ২৪টি চিঠি আদান-প্রদান

  • আপডেটের সময় : ০৬:০৭:৫৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮
  • ৩৬০ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

ঢাকা: বিগত তিন বছরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ১০টি বৈঠক করেছেন। দ্বিপক্ষীয় বৈঠক ছাড়াও বিভিন্ন সম্মেলনের সাইড লাইনে বৈঠক করেছেন দুই নেতা। এছাড়া এই সময়ে তারা ছয়টি ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দিয়েছেন। আর দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী তিন বছরে চিঠি আদান-প্রদান করেছেন ২৪টি। ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশন সূত্র এ তথ্য জানায়।

সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সময়ে দু’দেশের সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় প্রবেশ করেছে। হাসিনা-মোদী সরকারের সময় দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা বেড়েছে। আর দু’দেশের প্রধানমন্ত্রীও বিভিন্ন সময়ে একে অপরের সঙ্গে আলোচনা করেছেন।

Trulli

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সেদেশে ক্ষমতায় আসার পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে প্রথম বৈঠক হয় নিউইয়র্কে জাতিসংঘে অধিবেশন যোগ দেওয়ার সময় ২০১৪ সালে ৩০ সেপ্টেম্বর। সেটাই ছিল তাদের প্রথম বৈঠক। সে সময় থেকে দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন সময়ে বৈঠক করেছেন। তবে গত তিন বছরে তারা বৈঠকে বসেছেন ১০ বার।

২০১৫ সালের ৬ জুন ঢাকায় আসেন নরেন্দ্র মোদী। সে সময় দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন তারা। ২০১৬ সালের ১৬ অক্টোবর ভারতের গোয়ায় ব্রিকস সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে সময় সাইড লাইনে বৈঠক করেন দুই নেতা। ২০১৭ সালের ৮ এপ্রিলে দিল্লিতে গিয়েছিলেন শেখ হাসিনা। সে সময় তাদের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

২০১৮ সালের ৩০ আগস্ট নেপালে চতুর্থ বিমসটেক সম্মেলনে যোগ দেন হাসিনা ও মোদি। সে সময় সাইড লাইনে বৈঠক করেন তারা। ২০১৮ সালের ২৫ মে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশ ভবন উদ্বোধনকালে দুই নেতার মধ্যে বৈঠক হয়। ২০১৮ সালের ১৯ এপ্রিল লন্ডনে কমনওয়েলথ শীর্ষ সম্মেলনে হাসিনা-মোদির বৈঠক হয়। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে তাদের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সূত্র জানায়, দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী গত তিন বছরে ১০ বৈঠক ছাড়াও ছয়টি ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দিয়েছেন। বিভিন্ন প্রকল্প উদ্বোধন করেছেন দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া গত তিন বছরে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন ইস্যুতে ২৪টি চিঠি আদান-প্রদান করেছেন। আর এসময় সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়েছে ৯২টি।

Adds Banner_2024

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ২৪টি চিঠি আদান-প্রদান

আপডেটের সময় : ০৬:০৭:৫৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮

ঢাকা: বিগত তিন বছরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ১০টি বৈঠক করেছেন। দ্বিপক্ষীয় বৈঠক ছাড়াও বিভিন্ন সম্মেলনের সাইড লাইনে বৈঠক করেছেন দুই নেতা। এছাড়া এই সময়ে তারা ছয়টি ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দিয়েছেন। আর দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী তিন বছরে চিঠি আদান-প্রদান করেছেন ২৪টি। ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশন সূত্র এ তথ্য জানায়।

সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সময়ে দু’দেশের সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় প্রবেশ করেছে। হাসিনা-মোদী সরকারের সময় দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা বেড়েছে। আর দু’দেশের প্রধানমন্ত্রীও বিভিন্ন সময়ে একে অপরের সঙ্গে আলোচনা করেছেন।

Trulli

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সেদেশে ক্ষমতায় আসার পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে প্রথম বৈঠক হয় নিউইয়র্কে জাতিসংঘে অধিবেশন যোগ দেওয়ার সময় ২০১৪ সালে ৩০ সেপ্টেম্বর। সেটাই ছিল তাদের প্রথম বৈঠক। সে সময় থেকে দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন সময়ে বৈঠক করেছেন। তবে গত তিন বছরে তারা বৈঠকে বসেছেন ১০ বার।

২০১৫ সালের ৬ জুন ঢাকায় আসেন নরেন্দ্র মোদী। সে সময় দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন তারা। ২০১৬ সালের ১৬ অক্টোবর ভারতের গোয়ায় ব্রিকস সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে সময় সাইড লাইনে বৈঠক করেন দুই নেতা। ২০১৭ সালের ৮ এপ্রিলে দিল্লিতে গিয়েছিলেন শেখ হাসিনা। সে সময় তাদের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

২০১৮ সালের ৩০ আগস্ট নেপালে চতুর্থ বিমসটেক সম্মেলনে যোগ দেন হাসিনা ও মোদি। সে সময় সাইড লাইনে বৈঠক করেন তারা। ২০১৮ সালের ২৫ মে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশ ভবন উদ্বোধনকালে দুই নেতার মধ্যে বৈঠক হয়। ২০১৮ সালের ১৯ এপ্রিল লন্ডনে কমনওয়েলথ শীর্ষ সম্মেলনে হাসিনা-মোদির বৈঠক হয়। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে তাদের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সূত্র জানায়, দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী গত তিন বছরে ১০ বৈঠক ছাড়াও ছয়টি ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দিয়েছেন। বিভিন্ন প্রকল্প উদ্বোধন করেছেন দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া গত তিন বছরে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন ইস্যুতে ২৪টি চিঠি আদান-প্রদান করেছেন। আর এসময় সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়েছে ৯২টি।