রাজশাহী , মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
পবিত্র ইদুল আযহা উপলক্ষে আগামী ১৬ জুন ২০২৪ থেকে ২১ জুন ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত বাংলার জনপদের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। ২২ জুন ২০২৪ তারিখ থেকে পুনরায় সকল কার্যক্রম চালু থাকবে। ***ধন্যবাদ**

ঢাবি ঘ ইউনিটের পরীক্ষার ফল প্রকাশ

  • আপডেটের সময় : ১২:৩৮:০১ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮
  • ১৮৮ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

ঢাকা প্রতিনিধি : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের পুনঃভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এতে মোট ৬১ দশমিক ১ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছেন।

সোমবার (১৯ নভেম্বর) বিকাল ৫টার পর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে (admission.ais.du.ac.bd) ফলাফল জানা যাচ্ছে। এর আগে ১৬ নভেম্বর পুনরায় ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

Trulli

এবার ‘ঘ’ ইউনিটের প্রথম দফা ভর্তি পরীক্ষা হয় গত ১২ অক্টোবর। সেদিন পরীক্ষা শুরুর পৌনে এক ঘণ্টা আগে হাতে লেখা প্রশ্নপত্রের ১৪টি ছবি এক শিক্ষার্থীর মোবাইল ফোনে পাওয়া যায়। এ ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

তদন্তে প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিষয়টি স্বীকার করে নিলেও পরীক্ষার ফল প্রকাশ করে কর্তৃপক্ষ। সেখানে দেখা যায় ‘ঘ’ ইউনিটের প্রথম ১০০ জনের তালিকায় থাকা অন্তত ৭০ জন ভর্তিচ্ছু অন্য ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণই হতে পারেননি।

আইন বিভাগের এক ছাত্র ফল বাতিলের দাবিতে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অনশন শুরু করলে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা সরব হয়ে ওঠেন। কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদও ‘ঘ’ ইউনিটের ফল বাতিলের দাবিতে সংহতি জানায়। পরীক্ষা বাতিলের দাবি জানায় ছাত্রলীগও।

ওই ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে অকৃতকার্য হওয়া এক শিক্ষার্থীর বাবা ফল বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করেন। এরই মধ্যে ওই রিট আবেদন খারিজ করে দেন হাইকোর্ট।

এর মাঝে প্রশ্নপত্র ফাঁসে জড়িত সন্দেহে ছয়জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে ঘোষিত ফলাফলে উত্তীর্ণ ১৮ হাজার ৪৬৪ জন শিক্ষার্থীকে নতুন করে পরীক্ষা করার ঘোষণা দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এদিকে প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির পুনঃভর্তি পরীক্ষায় ৯ হাজার ৮৮৬ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন। পাসের হার ৬১ দশমিক ১ শতাংশ।

এর মধ্যে বিজ্ঞান শাখায় ৬ হাজার ৮১৪, ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ১ হাজার ১৭২ এবং মানবিক শাখায় ১ হাজার ৯০০ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন।

উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের মধ্যে এক হাজার ৬১৫ জন শেষ পর্যন্ত সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত এই ইউনিটের বিভিন্ন বিভাগে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবেন।

Adds Banner_2024

ঢাবি ঘ ইউনিটের পরীক্ষার ফল প্রকাশ

আপডেটের সময় : ১২:৩৮:০১ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮

ঢাকা প্রতিনিধি : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের পুনঃভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। এতে মোট ৬১ দশমিক ১ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছেন।

সোমবার (১৯ নভেম্বর) বিকাল ৫টার পর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে (admission.ais.du.ac.bd) ফলাফল জানা যাচ্ছে। এর আগে ১৬ নভেম্বর পুনরায় ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

Trulli

এবার ‘ঘ’ ইউনিটের প্রথম দফা ভর্তি পরীক্ষা হয় গত ১২ অক্টোবর। সেদিন পরীক্ষা শুরুর পৌনে এক ঘণ্টা আগে হাতে লেখা প্রশ্নপত্রের ১৪টি ছবি এক শিক্ষার্থীর মোবাইল ফোনে পাওয়া যায়। এ ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

তদন্তে প্রশ্নপত্র ফাঁসের বিষয়টি স্বীকার করে নিলেও পরীক্ষার ফল প্রকাশ করে কর্তৃপক্ষ। সেখানে দেখা যায় ‘ঘ’ ইউনিটের প্রথম ১০০ জনের তালিকায় থাকা অন্তত ৭০ জন ভর্তিচ্ছু অন্য ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণই হতে পারেননি।

আইন বিভাগের এক ছাত্র ফল বাতিলের দাবিতে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অনশন শুরু করলে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা সরব হয়ে ওঠেন। কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদও ‘ঘ’ ইউনিটের ফল বাতিলের দাবিতে সংহতি জানায়। পরীক্ষা বাতিলের দাবি জানায় ছাত্রলীগও।

ওই ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে অকৃতকার্য হওয়া এক শিক্ষার্থীর বাবা ফল বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করেন। এরই মধ্যে ওই রিট আবেদন খারিজ করে দেন হাইকোর্ট।

এর মাঝে প্রশ্নপত্র ফাঁসে জড়িত সন্দেহে ছয়জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে ঘোষিত ফলাফলে উত্তীর্ণ ১৮ হাজার ৪৬৪ জন শিক্ষার্থীকে নতুন করে পরীক্ষা করার ঘোষণা দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এদিকে প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির পুনঃভর্তি পরীক্ষায় ৯ হাজার ৮৮৬ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন। পাসের হার ৬১ দশমিক ১ শতাংশ।

এর মধ্যে বিজ্ঞান শাখায় ৬ হাজার ৮১৪, ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ১ হাজার ১৭২ এবং মানবিক শাখায় ১ হাজার ৯০০ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন।

উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের মধ্যে এক হাজার ৬১৫ জন শেষ পর্যন্ত সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত এই ইউনিটের বিভিন্ন বিভাগে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবেন।