রাজশাহী , সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
পবিত্র ইদুল আযহা উপলক্ষে আগামী ১৬ জুন ২০২৪ থেকে ২১ জুন ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত বাংলার জনপদের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। ২২ জুন ২০২৪ তারিখ থেকে পুনরায় সকল কার্যক্রম চালু থাকবে। ***ধন্যবাদ**

থার্টি ফার্স্ট নাইটে আতশবাজি নিষিদ্ধ

  • আপডেটের সময় : ০৮:২৪:৩৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮
  • ২২৬ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

ঢাকা প্রতিনিধি:একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কারণে থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপনে আতশবাজি নিষিদ্ধ করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। আজ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এই নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কারণে এ বছর থার্টি ফার্স্ট নাইটে সব ধরনের অনুষ্ঠানকে নিরুৎসাহিত করছে সরকার। নিরাপত্তার স্বার্থে এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

Trulli

বড় দিন এবং থার্টি ফার্স্ট নাইটের নিরাপত্তা বিষয়ে আজ রবিবার সচিবালয়ে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক এক সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যেহেতু আমাদের জাতীয় নির্বাচন ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে সে কারণে পরদিন দেশে থার্টি ফার্স্ট নাইটের সকল অনুষ্ঠানকে আমরা নিরুৎসাহিত করছি।  কারণ সমস্ত আইনশৃঙ্খলাবাহিনী নির্বাচনী কাজে ব্যস্ত থাকবে। এ কারণে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের কোথাও থার্টি ফার্স্ট নাইট পালন করা যাবে না। উম্মুক্ত স্থানে এমনকি বাসা-বাড়ির ছাদেও কোন অনুষ্ঠান করা যাবে না।

আসাদুজ্জামান খান বলেন, সব বার ১ জানুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। কোন বার খোলা রাখা যাবে না। কোন ধরনের আতশবাজি করা যাবে না। ফানুস উড়ানো যাবে না।

Adds Banner_2024

থার্টি ফার্স্ট নাইটে আতশবাজি নিষিদ্ধ

আপডেটের সময় : ০৮:২৪:৩৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮

ঢাকা প্রতিনিধি:একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কারণে থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপনে আতশবাজি নিষিদ্ধ করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। আজ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এই নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কারণে এ বছর থার্টি ফার্স্ট নাইটে সব ধরনের অনুষ্ঠানকে নিরুৎসাহিত করছে সরকার। নিরাপত্তার স্বার্থে এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

Trulli

বড় দিন এবং থার্টি ফার্স্ট নাইটের নিরাপত্তা বিষয়ে আজ রবিবার সচিবালয়ে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক এক সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যেহেতু আমাদের জাতীয় নির্বাচন ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে সে কারণে পরদিন দেশে থার্টি ফার্স্ট নাইটের সকল অনুষ্ঠানকে আমরা নিরুৎসাহিত করছি।  কারণ সমস্ত আইনশৃঙ্খলাবাহিনী নির্বাচনী কাজে ব্যস্ত থাকবে। এ কারণে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের কোথাও থার্টি ফার্স্ট নাইট পালন করা যাবে না। উম্মুক্ত স্থানে এমনকি বাসা-বাড়ির ছাদেও কোন অনুষ্ঠান করা যাবে না।

আসাদুজ্জামান খান বলেন, সব বার ১ জানুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। কোন বার খোলা রাখা যাবে না। কোন ধরনের আতশবাজি করা যাবে না। ফানুস উড়ানো যাবে না।