রাজশাহী , বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
পবিত্র ইদুল আযহা উপলক্ষে আগামী ১৬ জুন ২০২৪ থেকে ২১ জুন ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত বাংলার জনপদের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। ২২ জুন ২০২৪ তারিখ থেকে পুনরায় সকল কার্যক্রম চালু থাকবে। ***ধন্যবাদ**

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন আর এক ঘন্টাও পেছানো যাবে না: এইচ টি ইমাম

  • আপডেটের সময় : ০৯:১৩:১৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮
  • ২৭৬ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

জনপদ ডেস্কঃ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান এইচ টি ইমাম নির্বাচনের সময় বিদেশি পর্যবেক্ষক আসা নিয়ে ভোটের তারিখ পেছানোর দাবি অযৌক্তিক বলে মন্তব্য করে বলেন  ‘আমরা নির্বাচন কমিশনকে পরিষ্কার বলেছি- ভোট আর পেছানো যাবে না, আর একঘণ্টাও পেছানো যাবে না।’ এছাড়া নির্বাচন পেছানোর নামে বানচালের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগও তুলেছেন তিনি।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে বৈঠক শেষ হওয়ার পরই বুধবার (১৪ নভেম্বর) সন্ধ্যা সোয়া ছয়টায় আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল কমিশনের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের নির্বাচন না পেছোনোর ব্যাপারে এসব কথা বলেন।

Trulli

এইচ টি ইমাম বলেন ‘আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন পেছানো যাবে না। আমরা পরিষ্কার বলেছি, ৩০ তারিখ পর্যন্ত নির্বাচন পিছিয়েছেন। আর নয়। একদিনও নয়, একঘণ্টাও নয়। এমনিতেই তিন বার নির্বাচন পেছানো হয়েছে। আর পেছানো যাবে না।’

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা আরও বলেন, ‘আপনারা কয়েকদিন ধরে লক্ষ্য করছেন, নির্বাচনের পেছানোর জন্য কয়েকটি মহল বিভিন্নভাবে কথা বলেছেন। কিন্তু নির্বাচন পেছালে কী অসুবিধা হবে তা ভেবে দেখছেন না। এর আগেও ২৯ ডিসেম্বর নির্বাচন হয়েছে, সেসময় কিন্তু বড় দিন কিংবা ইংরেজি নতুন বছর কোনও সমস্যা হয়নি। ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন হলে কেউ যে আসবেন না- তেমন কোনও বিষয় নয়।’

বিএনপির দাবি হাস্যকর উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর এমন কোনও দেশ নেই, যারা বিদেশিদের সুযোগ সুবিধার কথা ভেবে নির্বাচনের দিনক্ষণ ঠিক করে। আমরা একটি স্বাধীন স্বার্বভৌম দেশ। আমরা আমাদের সুযোগ সুবিধা দেখব।’

নির্বাচন না পেছানোর যুক্তি দেখিয়ে এইচ টি ইমাম বলেন, ‘ডিসেম্বরের পরে নির্বাচন হলে ১ জানুয়ারি কয়েক লাখ নতুন ভোটার হবে। তারা যদি নিবন্ধিত না হয়, তাহলে আদালতে রিট করলে নির্বাচন ভণ্ডুল হয়ে যাবে। এটার দায়-দায়িত্ব কে নিবেন? এছাড়া বছরের প্রথমে স্কুলে নতুন বই বিতরণ করা হয়। সেখানেও সমস্যা দেখা দেবে।’

দুপুরে নয়াপল্টনে পুলিশের ওপর বিএনপির নেতাকর্মীদের হামলা ও গাড়িতে আগুনের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এটি নির্বাচনি আচরণ বিধির সুষ্পষ্ট লঙ্ঘন। আমরা আজকের সন্ত্রাসী ঘটনাকে শাস্তিযুক্ত অপরাধ মনে করি। ২০১৩ থেকে ২০১৫ সালে জোট যেভাবে আগুন সন্ত্রাস করেছে, মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে; তারই আলামত কিনা এটি- আমি মনে করছি।’

এছাড়া বিএনপি’র বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘণের অভিযোগ এনে এর বিরুদ্ধে কমিশনকে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ারও দাবি জানান এইচ টি ইমাম।

Adds Banner_2024

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন আর এক ঘন্টাও পেছানো যাবে না: এইচ টি ইমাম

আপডেটের সময় : ০৯:১৩:১৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮

জনপদ ডেস্কঃ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান এইচ টি ইমাম নির্বাচনের সময় বিদেশি পর্যবেক্ষক আসা নিয়ে ভোটের তারিখ পেছানোর দাবি অযৌক্তিক বলে মন্তব্য করে বলেন  ‘আমরা নির্বাচন কমিশনকে পরিষ্কার বলেছি- ভোট আর পেছানো যাবে না, আর একঘণ্টাও পেছানো যাবে না।’ এছাড়া নির্বাচন পেছানোর নামে বানচালের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগও তুলেছেন তিনি।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে বৈঠক শেষ হওয়ার পরই বুধবার (১৪ নভেম্বর) সন্ধ্যা সোয়া ছয়টায় আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল কমিশনের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের নির্বাচন না পেছোনোর ব্যাপারে এসব কথা বলেন।

Trulli

এইচ টি ইমাম বলেন ‘আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন পেছানো যাবে না। আমরা পরিষ্কার বলেছি, ৩০ তারিখ পর্যন্ত নির্বাচন পিছিয়েছেন। আর নয়। একদিনও নয়, একঘণ্টাও নয়। এমনিতেই তিন বার নির্বাচন পেছানো হয়েছে। আর পেছানো যাবে না।’

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা আরও বলেন, ‘আপনারা কয়েকদিন ধরে লক্ষ্য করছেন, নির্বাচনের পেছানোর জন্য কয়েকটি মহল বিভিন্নভাবে কথা বলেছেন। কিন্তু নির্বাচন পেছালে কী অসুবিধা হবে তা ভেবে দেখছেন না। এর আগেও ২৯ ডিসেম্বর নির্বাচন হয়েছে, সেসময় কিন্তু বড় দিন কিংবা ইংরেজি নতুন বছর কোনও সমস্যা হয়নি। ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন হলে কেউ যে আসবেন না- তেমন কোনও বিষয় নয়।’

বিএনপির দাবি হাস্যকর উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর এমন কোনও দেশ নেই, যারা বিদেশিদের সুযোগ সুবিধার কথা ভেবে নির্বাচনের দিনক্ষণ ঠিক করে। আমরা একটি স্বাধীন স্বার্বভৌম দেশ। আমরা আমাদের সুযোগ সুবিধা দেখব।’

নির্বাচন না পেছানোর যুক্তি দেখিয়ে এইচ টি ইমাম বলেন, ‘ডিসেম্বরের পরে নির্বাচন হলে ১ জানুয়ারি কয়েক লাখ নতুন ভোটার হবে। তারা যদি নিবন্ধিত না হয়, তাহলে আদালতে রিট করলে নির্বাচন ভণ্ডুল হয়ে যাবে। এটার দায়-দায়িত্ব কে নিবেন? এছাড়া বছরের প্রথমে স্কুলে নতুন বই বিতরণ করা হয়। সেখানেও সমস্যা দেখা দেবে।’

দুপুরে নয়াপল্টনে পুলিশের ওপর বিএনপির নেতাকর্মীদের হামলা ও গাড়িতে আগুনের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এটি নির্বাচনি আচরণ বিধির সুষ্পষ্ট লঙ্ঘন। আমরা আজকের সন্ত্রাসী ঘটনাকে শাস্তিযুক্ত অপরাধ মনে করি। ২০১৩ থেকে ২০১৫ সালে জোট যেভাবে আগুন সন্ত্রাস করেছে, মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে; তারই আলামত কিনা এটি- আমি মনে করছি।’

এছাড়া বিএনপি’র বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘণের অভিযোগ এনে এর বিরুদ্ধে কমিশনকে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ারও দাবি জানান এইচ টি ইমাম।