রাজশাহী , শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
রাজশাহীতে ঈদের প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৭টায় রাজশাহীতে র‌্যাবের জালে ২৪ জুয়াড়ি লাব্বাইক ধ্বনিতে মুখর আরাফাত ময়দান পবিত্র হজ আজ এমপি আনার হত্যা: আ.লীগ নেতা গ্যাস বাবুর দোষ স্বীকার টুং টাং শব্দে ব্যস্ত সময় পার করছে রাজশাহীর কামাররা রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত ১২৭৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যুগান্তর পত্রিকায় মেয়রসহ তার পরিবারকে নিয়ে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা কাল থেকে টানা ৫ দিনের ছুটিতে যাচ্ছেন সরকারি চাকরিজীবীরা ফের দি‌ল্লি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বগুড়ায় ব্যাংকের সিন্দুক কেটে ২৯ লাখ টাকা লুট বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে চলবে যাত্রীবাহী ফেরি শেখ হাসিনাকে ‘কোয়ালিশন অব লিডার্স’-এ চায় গ্লোবাল ফান্ড তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি : প্রধানমন্ত্রী দুর্যোগ মোকাবিলায় ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানালেন প্রধানমন্ত্রী বেনজীর পরিবারের আরও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ বড় দুঃসংবাদ পেলেন সাকিব পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে : প্রধানমন্ত্রী কুয়েতে ভবনে ভয়াবহ আগুন, নিহত অন্তত ৩৯ আনার হত্যাকাণ্ড : ডিবি কার্যালয়ে ঝিনাইদহ আ. লীগ সম্পাদক মিন্টু

দেশের আভ্যন্তরীন বিষয়ে বিদেশীদের হস্তক্ষেপ কাম্য নয়

  • আপডেটের সময় : ১০:১০:১০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮
  • ৩৫৫ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

সম্পাদকীয়

অতি সম্প্রতি বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচনে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পর্যবেক্ষক না পাঠানোর একটি বার্তা দিয়েছেন ইউরোপিয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র বিষয়ক দপ্তর। বাংলাদেশের মানুষের এতে বিস্মত হয়েছে বলে আমাদের ধারণা। কেননা ইতোমধ্যে বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতিতে এক ধরণের ইতিবাচক পরিবেশ দেখা যাচ্ছে । রাজনৈতিক দল সমূহের সাথে সরকারের সংলাপ চলছে।

Trulli

এবং সেই সাথে নির্বাচন কমিশনের সাথেও রাজনৈতিক দল সমূহের অলোচনা অব্যহত আছে। বলতে গেলে সমস্ত রাজনৈতিক দল সমূহ জাতীয় নির্বাচনের লক্ষ্যে নিজেদের মধ্যে প্রস্তুতি এবং সেই সাথে আন্ত: রাজনৈতিক কৌশল নিয়ে তৎপরতা চালাচ্ছে। বাংলাদেশের মানুষ ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশনের নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা এবং ভোটের দিন ২৩ ডিস্মেবর থেকে ৩০ ডিস্মেবর করার সিদ্ধান্ত কে সাধুবাদ জানাচ্ছেন।

বস্তুত বাংলাদেশের মানুষ ইউরোপীয় ইউনিয়নের এমন বার্তকে নেতিবাচক দৃষ্টিভাবে দেখতে শুরু করেছে। কেননা আমাদের ধারণা ইউরোপীয় ইউনিয়নের এমন বার্তা বাংলাদেশের উদারনৈতিক গণতান্ত্রিক বিকাশের সাথে এক ধরণের হস্তক্ষেপ।

এ দেশের রাজনৈতিক দল, নির্বাচন কমিশন ও নাগরিকগণের যৌথ প্রয়াস প্রযত্নে বাংলাদেশ তাঁর স্বাধীন বিকাশে এগিয়ে যাবে। এটাই এ দেশের মুক্তিসংগ্রামের মুলমন্ত্র তাই মনে হয় ইউরোসেন্ট্রিজম তাদের কলোনিয়াল ম্যানটালিস্ট থেকে এখন ও বের হয়ে আসতে পারচ্ছেন না। তারা ভুলে যাচ্ছেন লক্ষ লক্ষ মানুষ তাদের প্রাণ ও সম্ভ্রম দিয়ে এ দেশকে মুক্ত করেছেন।

গড়ে তুলেছেন স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ তাই তাদের উত্তরাধিকার হিসেবে অপনারও চাই কোন দেশ আমাদেরকে রাষ্ট্র পরিচালনার কোন বিষয়ে অহেতুক হস্তক্ষেপ করুক। আমাদের শিক্ষা এ দেশের রাজনৈতিক দল, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ নির্বাচন কমিশনসহ এ দেশের সাধারণ মানুষ রাষ্ট্র ও সরকারে প্রগতিশীল অগ্রযাত্রা অব্যহত রাখতে যতেষ্ট।

কোন বিদেশে সংস্থা বা দেশ আমাদের আভ্যন্তরীন ক্ষেত্রে হস্তক্ষেপ না করায় ভাল। কারণ এদেশে ইউরোপিয়ানিজম অথবা আমেরিকানিজম কিংবা ওয়েস্টনিজাম এর তাত্বিক বা ব্যবহারিক ব্যবস্থার চেয়ে নিজেদের ভাল করে ব্যবস্থার উন্নয়ন সাধন জরুরী ভুলে গেলে চলবে না। এই জনপদের সমাজ সংস্কৃতি ও সভ্যতার ইতিহাস ঐতিহ্য হাজার বছর পুরনো । তাই আমাদের কে আমাদের মত করে বলতে দিন। অহেতুক বৈদেশিক হস্তক্ষেপ বাংলার মানুষ পচ্ছন্দ করে না ।

Adds Banner_2024

দেশের আভ্যন্তরীন বিষয়ে বিদেশীদের হস্তক্ষেপ কাম্য নয়

আপডেটের সময় : ১০:১০:১০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮

সম্পাদকীয়

অতি সম্প্রতি বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচনে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পর্যবেক্ষক না পাঠানোর একটি বার্তা দিয়েছেন ইউরোপিয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র বিষয়ক দপ্তর। বাংলাদেশের মানুষের এতে বিস্মত হয়েছে বলে আমাদের ধারণা। কেননা ইতোমধ্যে বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতিতে এক ধরণের ইতিবাচক পরিবেশ দেখা যাচ্ছে । রাজনৈতিক দল সমূহের সাথে সরকারের সংলাপ চলছে।

Trulli

এবং সেই সাথে নির্বাচন কমিশনের সাথেও রাজনৈতিক দল সমূহের অলোচনা অব্যহত আছে। বলতে গেলে সমস্ত রাজনৈতিক দল সমূহ জাতীয় নির্বাচনের লক্ষ্যে নিজেদের মধ্যে প্রস্তুতি এবং সেই সাথে আন্ত: রাজনৈতিক কৌশল নিয়ে তৎপরতা চালাচ্ছে। বাংলাদেশের মানুষ ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশনের নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা এবং ভোটের দিন ২৩ ডিস্মেবর থেকে ৩০ ডিস্মেবর করার সিদ্ধান্ত কে সাধুবাদ জানাচ্ছেন।

বস্তুত বাংলাদেশের মানুষ ইউরোপীয় ইউনিয়নের এমন বার্তকে নেতিবাচক দৃষ্টিভাবে দেখতে শুরু করেছে। কেননা আমাদের ধারণা ইউরোপীয় ইউনিয়নের এমন বার্তা বাংলাদেশের উদারনৈতিক গণতান্ত্রিক বিকাশের সাথে এক ধরণের হস্তক্ষেপ।

এ দেশের রাজনৈতিক দল, নির্বাচন কমিশন ও নাগরিকগণের যৌথ প্রয়াস প্রযত্নে বাংলাদেশ তাঁর স্বাধীন বিকাশে এগিয়ে যাবে। এটাই এ দেশের মুক্তিসংগ্রামের মুলমন্ত্র তাই মনে হয় ইউরোসেন্ট্রিজম তাদের কলোনিয়াল ম্যানটালিস্ট থেকে এখন ও বের হয়ে আসতে পারচ্ছেন না। তারা ভুলে যাচ্ছেন লক্ষ লক্ষ মানুষ তাদের প্রাণ ও সম্ভ্রম দিয়ে এ দেশকে মুক্ত করেছেন।

গড়ে তুলেছেন স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ তাই তাদের উত্তরাধিকার হিসেবে অপনারও চাই কোন দেশ আমাদেরকে রাষ্ট্র পরিচালনার কোন বিষয়ে অহেতুক হস্তক্ষেপ করুক। আমাদের শিক্ষা এ দেশের রাজনৈতিক দল, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ নির্বাচন কমিশনসহ এ দেশের সাধারণ মানুষ রাষ্ট্র ও সরকারে প্রগতিশীল অগ্রযাত্রা অব্যহত রাখতে যতেষ্ট।

কোন বিদেশে সংস্থা বা দেশ আমাদের আভ্যন্তরীন ক্ষেত্রে হস্তক্ষেপ না করায় ভাল। কারণ এদেশে ইউরোপিয়ানিজম অথবা আমেরিকানিজম কিংবা ওয়েস্টনিজাম এর তাত্বিক বা ব্যবহারিক ব্যবস্থার চেয়ে নিজেদের ভাল করে ব্যবস্থার উন্নয়ন সাধন জরুরী ভুলে গেলে চলবে না। এই জনপদের সমাজ সংস্কৃতি ও সভ্যতার ইতিহাস ঐতিহ্য হাজার বছর পুরনো । তাই আমাদের কে আমাদের মত করে বলতে দিন। অহেতুক বৈদেশিক হস্তক্ষেপ বাংলার মানুষ পচ্ছন্দ করে না ।