রাজশাহী , মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
তিস্তা মহাপরিকল্পনায় চীন-ভারতের ভারসাম্য কীভাবে? বাংলাদেশের সঙ্গে তিস্তার পানি বণ্টন সম্ভব নয় : মমতা মারা গেছেন ‘জল্লাদ’ শাহজাহান ‘প্রযুক্তিজ্ঞান ছাড়া দেশ বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে পারে না’ দুদকে হা‌জির হন‌নি বেনজীর, আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা রাজশাহীতে দেখা মিলল সাত রাসেলস ভাইপারের, পিটিয়ে মারলো এলাকাবাসী নগর যুবলীগের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন শফিকুজ্জামান শফিক আওয়ামী লীগ জনগণের শক্তিতে বিশ্বাস করে : প্রধানমন্ত্রী বন্যায় স্থগিত জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন পরীক্ষা আ’লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী একাদশে ভর্তির প্রথম ধাপের ফল প্রকাশ আজ দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টায় বাস্তবায়ন হচ্ছে রাসিক মেয়র লিটনের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি রাজশাহী-কলকাতা ট্রেন চালুর ঘোষণা আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আগামীকাল দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে শেখ হাসিনাকে লাল গালিচা সংবর্ধনা রাজশাহী মহানগর যুবলীগের নেতৃত্বে মনি,রনি ও জেলায় সজল,সৈকত নির্বাচিত  প্রধানমন্ত্রীর কণ্ঠ শুনেই ছুটে এলো খরগোশের দল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে সব আন্তঃনগর ট্রেন রাসিক মেয়র ও তার পরিবারের সদস্যদের জড়িয়ে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছে উলামা কল্যাণ পরিষদ রাজশাহীতে ঈদের প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৭টায়

ভুল আসামি’ তিন বছর কারাগারে, ব্যাখ্যা চাইলেন হাইকোর্ট

  • আপডেটের সময় : ০১:৫৫:০৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ জানুয়ারী ২০১৯
  • ৫৬ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

ঢাকা প্রতিনিধি: মামলার প্রকৃত আসামি নন কিন্তু তিন বছর ধরে আছেন কারাগারে। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত এমন প্রতিবেদন দেখে হতবাক দেশের উচ্চ আদালত। এ ঘটনার ব্যাখ্যা চেয়ে দুদকের আইন শাখার মহাপরিচালকসহ চারজনকে ডেকে পাঠানো হয়েছে। তাকে কেন মুক্তি দেয়া হবে না তাও জানতে চেয়েছেন আদালত।

সোমবার (২৮ জানুয়ারি) বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের স্বপ্রণোদিত হয়ে এ আদেশ দেন।

Trulli

রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন কর্মকর্তা বলছেন, তদন্ত করে এ ধরণের ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা উচিৎ।

তিনি আসামি নন। সোনালী ব্যাংকের অর্থ জালিয়াতির ৩৩ মামলায় কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হলে বারবার এ কথা বলেছেন পাটকল শ্রমিক জাহালম। তারপরও এ মামলার ঘানি টানতে টানতে সর্বশান্ত তার পরিবার।

আদালতে সুরাহা না হওয়ায় জাহালমের মা দ্বারস্থ হন মানবাধিকার কমিশনে। মামলাকারী সংস্থা দুদকও করে তদন্ত। এই দুই কমিশনের তদন্তে নিরপরাধ প্রমাণিত হন জাহালম। ততদিনে কেটে গেছে তিন বছর।

জাহালমের এমন অমানবিক কারাবাসের রিপোর্ট সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হলে ব্যাপক চাঞ্চল্যের জন্ম দেয়। বিষয়টি নজরে আনা হলে হতবাক হন দেশের উচ্চ আদালত। ডেকে পাঠানো হয় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা, দুদকের আইন শাখার মহাপরিচালকসহ চারজনকে।

সংবদমাধ্যমের রিপোর্ট আদালতে উত্থাপনকারী অমিত দাস গুপ্ত বলেন, ‘দুদক মহাপরিচালক (আইন শাখা) এই মামলার যিনি বাদী ছিলেন এবং হোম সেক্রেটারি, ল সেক্রেটারির প্রতিনিধি দুজনকে আগামী রোববার হাজির হওয়ার জন্য আদালত নির্দেশনা দিয়েছেন।’

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘যেহেতু মামলাটা এখনো প্রক্রিয়ার মধ্যে আছে এবং উনাদের আসতে বলা হয়েছে, ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে। সমস্ত কিছু জানার পরে আদালত একটা সিদ্ধান্তে আসবেন।’

রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন কর্মকর্তা বলছেন, ‘নিরপরাধ ব্যক্তিকে উদ্দেশ্যমূলকভাবে ফাঁসানো হলে জড়িতরা কেউ ছাড় পাবে না।’

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ভেতরে কেউ কোনো রকম উদ্দেশ্যমূলকভাবে এই ধরনের কাজ করে থাকে, নিশ্চয় আইন তার আমলে আসবে। নিরপরাধ কেউ যেন কোনোরকমভাবে হয়রানির শিকার না হয় তার জন্য এটা বন্ধ করতে হবে।’

সোনালী ব্যাংকের অর্থ জালিয়াতির ৩৩ মামলার মধ্যে শুধু একটি মামলায় জামিন পেয়েছেন জাহালত। বাকি মামলাগুলোতেও কেন তাকে জামিনে মুক্তি দেয়া হবে না তাও জানতে চেয়েছেন উচ্চ আদালত।

Adds Banner_2024

ভুল আসামি’ তিন বছর কারাগারে, ব্যাখ্যা চাইলেন হাইকোর্ট

আপডেটের সময় : ০১:৫৫:০৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ জানুয়ারী ২০১৯

ঢাকা প্রতিনিধি: মামলার প্রকৃত আসামি নন কিন্তু তিন বছর ধরে আছেন কারাগারে। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত এমন প্রতিবেদন দেখে হতবাক দেশের উচ্চ আদালত। এ ঘটনার ব্যাখ্যা চেয়ে দুদকের আইন শাখার মহাপরিচালকসহ চারজনকে ডেকে পাঠানো হয়েছে। তাকে কেন মুক্তি দেয়া হবে না তাও জানতে চেয়েছেন আদালত।

সোমবার (২৮ জানুয়ারি) বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের স্বপ্রণোদিত হয়ে এ আদেশ দেন।

Trulli

রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন কর্মকর্তা বলছেন, তদন্ত করে এ ধরণের ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা উচিৎ।

তিনি আসামি নন। সোনালী ব্যাংকের অর্থ জালিয়াতির ৩৩ মামলায় কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হলে বারবার এ কথা বলেছেন পাটকল শ্রমিক জাহালম। তারপরও এ মামলার ঘানি টানতে টানতে সর্বশান্ত তার পরিবার।

আদালতে সুরাহা না হওয়ায় জাহালমের মা দ্বারস্থ হন মানবাধিকার কমিশনে। মামলাকারী সংস্থা দুদকও করে তদন্ত। এই দুই কমিশনের তদন্তে নিরপরাধ প্রমাণিত হন জাহালম। ততদিনে কেটে গেছে তিন বছর।

জাহালমের এমন অমানবিক কারাবাসের রিপোর্ট সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হলে ব্যাপক চাঞ্চল্যের জন্ম দেয়। বিষয়টি নজরে আনা হলে হতবাক হন দেশের উচ্চ আদালত। ডেকে পাঠানো হয় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা, দুদকের আইন শাখার মহাপরিচালকসহ চারজনকে।

সংবদমাধ্যমের রিপোর্ট আদালতে উত্থাপনকারী অমিত দাস গুপ্ত বলেন, ‘দুদক মহাপরিচালক (আইন শাখা) এই মামলার যিনি বাদী ছিলেন এবং হোম সেক্রেটারি, ল সেক্রেটারির প্রতিনিধি দুজনকে আগামী রোববার হাজির হওয়ার জন্য আদালত নির্দেশনা দিয়েছেন।’

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘যেহেতু মামলাটা এখনো প্রক্রিয়ার মধ্যে আছে এবং উনাদের আসতে বলা হয়েছে, ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে। সমস্ত কিছু জানার পরে আদালত একটা সিদ্ধান্তে আসবেন।’

রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন কর্মকর্তা বলছেন, ‘নিরপরাধ ব্যক্তিকে উদ্দেশ্যমূলকভাবে ফাঁসানো হলে জড়িতরা কেউ ছাড় পাবে না।’

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ভেতরে কেউ কোনো রকম উদ্দেশ্যমূলকভাবে এই ধরনের কাজ করে থাকে, নিশ্চয় আইন তার আমলে আসবে। নিরপরাধ কেউ যেন কোনোরকমভাবে হয়রানির শিকার না হয় তার জন্য এটা বন্ধ করতে হবে।’

সোনালী ব্যাংকের অর্থ জালিয়াতির ৩৩ মামলার মধ্যে শুধু একটি মামলায় জামিন পেয়েছেন জাহালত। বাকি মামলাগুলোতেও কেন তাকে জামিনে মুক্তি দেয়া হবে না তাও জানতে চেয়েছেন উচ্চ আদালত।