রাজশাহী , শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
রাজশাহীতে র‌্যাবের জালে ২৪ জুয়াড়ি লাব্বাইক ধ্বনিতে মুখর আরাফাত ময়দান পবিত্র হজ আজ এমপি আনার হত্যা: আ.লীগ নেতা গ্যাস বাবুর দোষ স্বীকার টুং টাং শব্দে ব্যস্ত সময় পার করছে রাজশাহীর কামাররা রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত ১২৭৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যুগান্তর পত্রিকায় মেয়রসহ তার পরিবারকে নিয়ে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা কাল থেকে টানা ৫ দিনের ছুটিতে যাচ্ছেন সরকারি চাকরিজীবীরা ফের দি‌ল্লি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বগুড়ায় ব্যাংকের সিন্দুক কেটে ২৯ লাখ টাকা লুট বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে চলবে যাত্রীবাহী ফেরি শেখ হাসিনাকে ‘কোয়ালিশন অব লিডার্স’-এ চায় গ্লোবাল ফান্ড তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি : প্রধানমন্ত্রী দুর্যোগ মোকাবিলায় ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানালেন প্রধানমন্ত্রী বেনজীর পরিবারের আরও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ বড় দুঃসংবাদ পেলেন সাকিব পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে : প্রধানমন্ত্রী কুয়েতে ভবনে ভয়াবহ আগুন, নিহত অন্তত ৩৯ আনার হত্যাকাণ্ড : ডিবি কার্যালয়ে ঝিনাইদহ আ. লীগ সম্পাদক মিন্টু যাদের জমিসহ ঘর করে দেওয়া হয়েছে, তাদের জীবন বদলে গেছে: প্রধানমন্ত্রী

ইসরায়েলে ঢোকার সুড়ঙ্গ

  • আপডেটের সময় : ০৭:২২:০২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৮ জানুয়ারী ২০১৯
  • ৬২ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: লেবানভিত্তিক সশস্ত্র সংগঠন হেজবুল্লাহর প্রধান মন্তব্য করেছেন, সম্প্রতি ইসরায়েলে গোপনে ঢোকার যে সুড়ঙ্গ ধরা পড়েছে তেমন সুড়ঙ্গ আরও আছে কি না তা কেউ বলতে পারে না! তবে বছরের পর বছর ধরেই ইসরায়েলে ঢোকার সুযোগ হেজবুল্লাহর রয়েছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স লিখেছে, নিজেদের সামরিক সক্ষমতার বিষয়ে অস্পষ্ট তথ্য প্রদানের রীতি রয়েছে হেজবুল্লাহর। কারণ তারা মনে করে, স্পষ্ট তথ্য দিলে তা ইসরায়েল হামলা চালানোর কারণ হিসেবে ব্যবহার করতে পারে।

লেবাননের হেজবুল্লাহ ইরান সমর্থিত সশস্ত্র গোষ্ঠী। অন্যদিকে ইসরায়েল ইরানকে তার প্রধান শত্রু হিসেবে গণ্য করে। সিরিয়া যুদ্ধে দেশটি আসাদ বাহিনীকে সহায়তা করা ইরানিদের ওপর দফায় দফায় হামলা করেছে। সম্প্রতি ইসরায়েল যে সুড়ঙ্গটি আবিষ্কার করেছে তা লেবাননের সীমানার ভেতর থেকে ইসরায়েলের মেতুলা শহর পর্যন্ত গেছে। ইসরায়েল এসব সুড়ঙ্গকে ‘অ্যাটাক টানেল’ নামে আখ্যায়িত করে।

Trulli

হেজবুল্লাহ প্রধান নসরুল্লাহ মায়েদিন টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন, আগামী এপ্রিল মাসে ইসরায়েলের নির্বাচনের আগে নেতানিয়াহু তড়িঘড়ি কোনও সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলতে পারেন। আর সেরকম হলে হেজবুল্লাহ জবাব দিতে প্রস্তুত। রয়টার্স লিখেছে, ইসরায়েল ও হেজবুল্লাহ দুই পক্ষই দাবি করছে, এবার কোনও সংঘাত হলে তা আগের চেয়ে অনেক বড় আকারে হবে। ২০০৬ সালে এই দুইপক্ষ সংঘাতে জড়িয়েছিল।

ইরান সিরিয়া ও নিজেদেরকে ‘রেজিসটেন্স এক্সিস’ আখ্যা দিয়ে নসরুল্লাহ দাবি করেছেন, ইসরায়েল হামলা চালালে দেশটির রাজধানী তেলআবিবে বোমা বর্ষণ করা হবে। নসরুল্লাহর ভাষ্য, ‘পরবর্তীতে সংঘাত হলে আমাদের লক্ষ্য হবে গ্যালিলিতে পৌঁছানো, এ করতে আমরা সক্ষম। আর এ সক্ষমতা আমাদের বহু বছর ধরেই রয়েছে।’ নসরুল্লাহ স্পষ্ট করে বলেননি, সুড়ঙ্গগুলো তাদের তৈরি। তারা তাদের সামরিক সক্ষমতার বিষয়ে স্পষ্ট তথ্য দেয় না। এর মূল কারণ, ইসরায়েল সেসব তথ্যকে হামলা চালানোর কারণ হিসেবে হিসেবে ব্যবহার করতে পারে।

ফাঁস হয়ে যাওয়া গোপন সুড়ঙ্গগুলোর বিষয়ে তিনি মন্তব্য করেছেন, তল্লাশি শেষ হয়ে গেছে জানালেও, আসলে এখনও এমন সুড়ঙ্গের বিষয়ে তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েল। কে জানে, এমন আরও সুড়ঙ্গ আছে কি না! ইসরায়েল যেসব সুড়ঙ্গ খুঁজে পাওয়ার কথা জানিয়েছে, তাদের একটি ১৩ বছর পুরাতন। ইসরায়েলের যে এত বছর লেগেছে সুড়ঙ্গটি খুঁজে বের করতে সেটাই না কি নসরুল্লাহকে বিস্মিত করেছে।

Adds Banner_2024
Adds Banner_2024

ধীরগতির পর বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম মহাসড়ক অনেকটাই ফাঁকা

Adds Banner_2024

ইসরায়েলে ঢোকার সুড়ঙ্গ

আপডেটের সময় : ০৭:২২:০২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৮ জানুয়ারী ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: লেবানভিত্তিক সশস্ত্র সংগঠন হেজবুল্লাহর প্রধান মন্তব্য করেছেন, সম্প্রতি ইসরায়েলে গোপনে ঢোকার যে সুড়ঙ্গ ধরা পড়েছে তেমন সুড়ঙ্গ আরও আছে কি না তা কেউ বলতে পারে না! তবে বছরের পর বছর ধরেই ইসরায়েলে ঢোকার সুযোগ হেজবুল্লাহর রয়েছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স লিখেছে, নিজেদের সামরিক সক্ষমতার বিষয়ে অস্পষ্ট তথ্য প্রদানের রীতি রয়েছে হেজবুল্লাহর। কারণ তারা মনে করে, স্পষ্ট তথ্য দিলে তা ইসরায়েল হামলা চালানোর কারণ হিসেবে ব্যবহার করতে পারে।

লেবাননের হেজবুল্লাহ ইরান সমর্থিত সশস্ত্র গোষ্ঠী। অন্যদিকে ইসরায়েল ইরানকে তার প্রধান শত্রু হিসেবে গণ্য করে। সিরিয়া যুদ্ধে দেশটি আসাদ বাহিনীকে সহায়তা করা ইরানিদের ওপর দফায় দফায় হামলা করেছে। সম্প্রতি ইসরায়েল যে সুড়ঙ্গটি আবিষ্কার করেছে তা লেবাননের সীমানার ভেতর থেকে ইসরায়েলের মেতুলা শহর পর্যন্ত গেছে। ইসরায়েল এসব সুড়ঙ্গকে ‘অ্যাটাক টানেল’ নামে আখ্যায়িত করে।

Trulli

হেজবুল্লাহ প্রধান নসরুল্লাহ মায়েদিন টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন, আগামী এপ্রিল মাসে ইসরায়েলের নির্বাচনের আগে নেতানিয়াহু তড়িঘড়ি কোনও সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলতে পারেন। আর সেরকম হলে হেজবুল্লাহ জবাব দিতে প্রস্তুত। রয়টার্স লিখেছে, ইসরায়েল ও হেজবুল্লাহ দুই পক্ষই দাবি করছে, এবার কোনও সংঘাত হলে তা আগের চেয়ে অনেক বড় আকারে হবে। ২০০৬ সালে এই দুইপক্ষ সংঘাতে জড়িয়েছিল।

ইরান সিরিয়া ও নিজেদেরকে ‘রেজিসটেন্স এক্সিস’ আখ্যা দিয়ে নসরুল্লাহ দাবি করেছেন, ইসরায়েল হামলা চালালে দেশটির রাজধানী তেলআবিবে বোমা বর্ষণ করা হবে। নসরুল্লাহর ভাষ্য, ‘পরবর্তীতে সংঘাত হলে আমাদের লক্ষ্য হবে গ্যালিলিতে পৌঁছানো, এ করতে আমরা সক্ষম। আর এ সক্ষমতা আমাদের বহু বছর ধরেই রয়েছে।’ নসরুল্লাহ স্পষ্ট করে বলেননি, সুড়ঙ্গগুলো তাদের তৈরি। তারা তাদের সামরিক সক্ষমতার বিষয়ে স্পষ্ট তথ্য দেয় না। এর মূল কারণ, ইসরায়েল সেসব তথ্যকে হামলা চালানোর কারণ হিসেবে হিসেবে ব্যবহার করতে পারে।

ফাঁস হয়ে যাওয়া গোপন সুড়ঙ্গগুলোর বিষয়ে তিনি মন্তব্য করেছেন, তল্লাশি শেষ হয়ে গেছে জানালেও, আসলে এখনও এমন সুড়ঙ্গের বিষয়ে তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েল। কে জানে, এমন আরও সুড়ঙ্গ আছে কি না! ইসরায়েল যেসব সুড়ঙ্গ খুঁজে পাওয়ার কথা জানিয়েছে, তাদের একটি ১৩ বছর পুরাতন। ইসরায়েলের যে এত বছর লেগেছে সুড়ঙ্গটি খুঁজে বের করতে সেটাই না কি নসরুল্লাহকে বিস্মিত করেছে।