রাজশাহী , সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
পবিত্র ইদুল আযহা উপলক্ষে আগামী ১৬ জুন ২০২৪ থেকে ২১ জুন ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত বাংলার জনপদের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। ২২ জুন ২০২৪ তারিখ থেকে পুনরায় সকল কার্যক্রম চালু থাকবে। ***ধন্যবাদ**

রাজশাহীকে ১৮১ রানের লক্ষ্য দিলো সিলেট

  • আপডেটের সময় : ১০:০২:৩৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ জানুয়ারী ২০১৯
  • ৬২ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

স্পোর্টস ডেস্ক : ঢাকার দুই পর্ব ও সিলেট পর্ব শেষে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) এবার বন্দরনগরী চট্টগ্রামে। শুক্রবারের (২৫ জানুয়ারি) চট্টগ্রামে রাজশাহী কিংস ও সিলেট সিক্সার্সের মধ্যকার প্রথম ম্যাচে আগে ব্যাট করে ১৮০ রান করে সিলেট।

ব্যাটিংয়ে নেমে দারুণ শুরু করে সিলেট। ওপেনার লিটন কুমার দাস ও সাব্বির রহমান গড়েন ২০ রানের জুটি। তবে এই স্কোরে সাব্বির করেন মাত্র ১ রান। আর সেই এক রানেই আরাফাত সানির বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরেন তিনি।

Trulli

বল হাতে মোস্তাফিজুর রহমানের প্রথম ওভারেই ফেরেন আরেক ওপেনার লিটনও। ১৩ বলে ২৪ রান করা লিটন মেহেদি হাসানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন।

হাফসেঞ্চুরির কাছে গিয়েও ব্যর্থ হন জেসন রয়। সেকুল্লে প্রশন্নের বলে বোল্ড হয়ে ফেরার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ২৮ বলে ৪২ রান। যেখানে ছিল ৪ট চার ও ২টি ছক্কার মার। ১৮ বলে ১৯ রান করে কামরুল ইসলাম রাব্বির বলে ফেরেন নিকোলাস পুরান।

বড় স্কোরের আভাস দিলেও ২৯ বলে ২৮ রান করে টেন ডেসকটের বলে আউট হয়ে ফেরেন তরুণ আফিফ হোসেন। ৭ বলে ১১ রান করে মোসাফিজুর রহমানের বলে ফিরে যান মোহাম্মদ নাওয়াজ।

রাজশাহীর হয়ে দুটি উইকেট নেন মোস্তাফিজ। এছাড়া একটি করে উইকেট নেন ডেসকাটে, কামরুল ইসলাম, সানি ও প্রশন্নে।

এর আগে, চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে দুপুর ২টায় শুরু হওয়া ম্যাচে টসে জিতে ফিল্ডিং নেন রাজশাহী অধিনায়ক মেহেদি হাসান মিরাজ।

বিপিএলের চলতি আসরের তলানিতে থাকা সিলেটের মুখোমুখি হচ্ছে পয়েন্ট টেবিলের ৫ নম্বরের রাজশাহী। ৮ ম্যাচ খেলে সিলেটের জয় মাত্র ২ ম্যাচে। অপরদিকে একই সংখ্যক ম্যাচ খেলে রাজশাহীর জয় ৪ ম্যাচ।

রাজশাহী কিংস একাদশ:
মেহেদি হাসান মিরাজ (অধিনায়ক), মুমিনুল হক, মোস্তাফিজুর রহমান, জাকির হাসান(উইকেটরক্ষক), আরাফাত সানী, কামরুল ইসলাম রাব্বি, রায়ান টেন ডেসকাটে, লরি ইভান্স, ফজলে মাহমুদ, ক্রিস্টিয়ান জঙ্কার ও সেক্কুলে প্রশন্ন।

সিলেট সিক্সার্সের সম্ভাব্য একাদশ:

অলক কাপালি (অধিনায়ক), নিকোলাস পুরান, সোহেল তানভীর, মোহাম্মদ নওয়াজ, জেসন রয়, লিটন দাস, সাব্বির রহমান, তাসকিন আহমেদ, আফিফ হোসেন ধ্রুব, এবাদত হোসেন ও নাবিল সামাদ চৌধুরী।

Adds Banner_2024

রাজশাহীকে ১৮১ রানের লক্ষ্য দিলো সিলেট

আপডেটের সময় : ১০:০২:৩৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ জানুয়ারী ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক : ঢাকার দুই পর্ব ও সিলেট পর্ব শেষে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) এবার বন্দরনগরী চট্টগ্রামে। শুক্রবারের (২৫ জানুয়ারি) চট্টগ্রামে রাজশাহী কিংস ও সিলেট সিক্সার্সের মধ্যকার প্রথম ম্যাচে আগে ব্যাট করে ১৮০ রান করে সিলেট।

ব্যাটিংয়ে নেমে দারুণ শুরু করে সিলেট। ওপেনার লিটন কুমার দাস ও সাব্বির রহমান গড়েন ২০ রানের জুটি। তবে এই স্কোরে সাব্বির করেন মাত্র ১ রান। আর সেই এক রানেই আরাফাত সানির বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরেন তিনি।

Trulli

বল হাতে মোস্তাফিজুর রহমানের প্রথম ওভারেই ফেরেন আরেক ওপেনার লিটনও। ১৩ বলে ২৪ রান করা লিটন মেহেদি হাসানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন।

হাফসেঞ্চুরির কাছে গিয়েও ব্যর্থ হন জেসন রয়। সেকুল্লে প্রশন্নের বলে বোল্ড হয়ে ফেরার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ২৮ বলে ৪২ রান। যেখানে ছিল ৪ট চার ও ২টি ছক্কার মার। ১৮ বলে ১৯ রান করে কামরুল ইসলাম রাব্বির বলে ফেরেন নিকোলাস পুরান।

বড় স্কোরের আভাস দিলেও ২৯ বলে ২৮ রান করে টেন ডেসকটের বলে আউট হয়ে ফেরেন তরুণ আফিফ হোসেন। ৭ বলে ১১ রান করে মোসাফিজুর রহমানের বলে ফিরে যান মোহাম্মদ নাওয়াজ।

রাজশাহীর হয়ে দুটি উইকেট নেন মোস্তাফিজ। এছাড়া একটি করে উইকেট নেন ডেসকাটে, কামরুল ইসলাম, সানি ও প্রশন্নে।

এর আগে, চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে দুপুর ২টায় শুরু হওয়া ম্যাচে টসে জিতে ফিল্ডিং নেন রাজশাহী অধিনায়ক মেহেদি হাসান মিরাজ।

বিপিএলের চলতি আসরের তলানিতে থাকা সিলেটের মুখোমুখি হচ্ছে পয়েন্ট টেবিলের ৫ নম্বরের রাজশাহী। ৮ ম্যাচ খেলে সিলেটের জয় মাত্র ২ ম্যাচে। অপরদিকে একই সংখ্যক ম্যাচ খেলে রাজশাহীর জয় ৪ ম্যাচ।

রাজশাহী কিংস একাদশ:
মেহেদি হাসান মিরাজ (অধিনায়ক), মুমিনুল হক, মোস্তাফিজুর রহমান, জাকির হাসান(উইকেটরক্ষক), আরাফাত সানী, কামরুল ইসলাম রাব্বি, রায়ান টেন ডেসকাটে, লরি ইভান্স, ফজলে মাহমুদ, ক্রিস্টিয়ান জঙ্কার ও সেক্কুলে প্রশন্ন।

সিলেট সিক্সার্সের সম্ভাব্য একাদশ:

অলক কাপালি (অধিনায়ক), নিকোলাস পুরান, সোহেল তানভীর, মোহাম্মদ নওয়াজ, জেসন রয়, লিটন দাস, সাব্বির রহমান, তাসকিন আহমেদ, আফিফ হোসেন ধ্রুব, এবাদত হোসেন ও নাবিল সামাদ চৌধুরী।