রাজশাহী , সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
পবিত্র ইদুল আযহা উপলক্ষে আগামী ১৬ জুন ২০২৪ থেকে ২১ জুন ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত বাংলার জনপদের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। ২২ জুন ২০২৪ তারিখ থেকে পুনরায় সকল কার্যক্রম চালু থাকবে। ***ধন্যবাদ**

৩০ জানুয়ারি নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা

  • আপডেটের সময় : ০১:৩১:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০১৯
  • ৬৫ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

জনপদ ডেস্ক: ২০১৮-১৯ অর্থবছরের দ্বিতীয়ার্ধের (জানুয়ারি-জুন) মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হবে ৩০ জানুয়ারি। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সভাকক্ষে গভর্নর ফজলে কবির নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা করবেন। বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক জী. এম. আবুল কালাম আজাদ এই তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, আগামী ৩০ জানুয়ারি (বুধবার) সকাল সাড়ে ১১ টায় বাংলাদেশ ব্যাংকের মূল ভবনের ৫ম তলাস্থ জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স হলে নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হবে।

Trulli

জানা গেছে, নতুন মুদ্রানীতিতে বিভিন্ন লক্ষ্যমাত্রা প্রাক্কলনের ক্ষেত্রে খুব একটা পরিবর্তন আসছে না। কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় এবারও মুদ্রানীতির কৌশল নির্ধারণে বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে মতবিনিময় করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ এবং কাঙ্ক্ষিত জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জনের জন্য ঋণ ও অর্থ সরবরাহের প্রবৃদ্ধির একটি আগাম ধারণা দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ লক্ষ্যে প্রতি ৬ মাসের আগাম মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হয়। যেখানে ঋণপ্রবাহ, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতিনির্ধারণী সুদহার, বৈদেশিক মুদ্রাবাজারসহ বিভিন্ন বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতির উল্লেখ থাকে।

চলতি অর্থবছরের প্রথমার্ধের মুদ্রানীতিতে ডিসেম্বর পর্যন্ত বেসরকারি খাতে বার্ষিক ঋণ প্রবৃদ্ধির প্রাক্কলন করা হয় ১৬ দশমিক ৮০ শতাংশ। তবে অর্জিত হয়েছে ১৩ দশমিক ২০ শতাংশ। এবারের মুদ্রানীতিতে লক্ষ্যমাত্রা আগের মতোই থাকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আগের মুদ্রানীতিতে সরকারি খাতে ১০ দশমিক ৪০ শতাংশ ঋণ বাড়ানোর লক্ষ্য ধরা হলেও তা বেড়েছে ১২ দশমিক ৫১ শতাংশ। এছাড়া এবারের বাজেটে মূল্যস্ফীতি ৫ দশমিক ৫০ শতাংশে সীমিত রাখার সরকারি লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। ডিসেম্বর পর্যন্ত গড় মূল্যস্ফীতি দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৫৫ শতাংশ।

Adds Banner_2024

৩০ জানুয়ারি নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা

আপডেটের সময় : ০১:৩১:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০১৯

জনপদ ডেস্ক: ২০১৮-১৯ অর্থবছরের দ্বিতীয়ার্ধের (জানুয়ারি-জুন) মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হবে ৩০ জানুয়ারি। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সভাকক্ষে গভর্নর ফজলে কবির নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা করবেন। বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক জী. এম. আবুল কালাম আজাদ এই তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, আগামী ৩০ জানুয়ারি (বুধবার) সকাল সাড়ে ১১ টায় বাংলাদেশ ব্যাংকের মূল ভবনের ৫ম তলাস্থ জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স হলে নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হবে।

Trulli

জানা গেছে, নতুন মুদ্রানীতিতে বিভিন্ন লক্ষ্যমাত্রা প্রাক্কলনের ক্ষেত্রে খুব একটা পরিবর্তন আসছে না। কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় এবারও মুদ্রানীতির কৌশল নির্ধারণে বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে মতবিনিময় করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ এবং কাঙ্ক্ষিত জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জনের জন্য ঋণ ও অর্থ সরবরাহের প্রবৃদ্ধির একটি আগাম ধারণা দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ লক্ষ্যে প্রতি ৬ মাসের আগাম মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হয়। যেখানে ঋণপ্রবাহ, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতিনির্ধারণী সুদহার, বৈদেশিক মুদ্রাবাজারসহ বিভিন্ন বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতির উল্লেখ থাকে।

চলতি অর্থবছরের প্রথমার্ধের মুদ্রানীতিতে ডিসেম্বর পর্যন্ত বেসরকারি খাতে বার্ষিক ঋণ প্রবৃদ্ধির প্রাক্কলন করা হয় ১৬ দশমিক ৮০ শতাংশ। তবে অর্জিত হয়েছে ১৩ দশমিক ২০ শতাংশ। এবারের মুদ্রানীতিতে লক্ষ্যমাত্রা আগের মতোই থাকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আগের মুদ্রানীতিতে সরকারি খাতে ১০ দশমিক ৪০ শতাংশ ঋণ বাড়ানোর লক্ষ্য ধরা হলেও তা বেড়েছে ১২ দশমিক ৫১ শতাংশ। এছাড়া এবারের বাজেটে মূল্যস্ফীতি ৫ দশমিক ৫০ শতাংশে সীমিত রাখার সরকারি লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। ডিসেম্বর পর্যন্ত গড় মূল্যস্ফীতি দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৫৫ শতাংশ।