রাজশাহী , বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
পবিত্র ইদুল আযহা উপলক্ষে আগামী ১৬ জুন ২০২৪ থেকে ২১ জুন ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত বাংলার জনপদের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। ২২ জুন ২০২৪ তারিখ থেকে পুনরায় সকল কার্যক্রম চালু থাকবে। ***ধন্যবাদ**

চিলিতে ৮ দশমিক ৮ মাত্রার ভূমিকম্প, ২ জনের মৃত্যু

  • আপডেটের সময় : ০৫:৩০:৩৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২০ জানুয়ারী ২০১৯
  • ৭০ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো দক্ষিণ আমেরিকার দেশ চিলি। এতে হার্ট অ্যাটাকে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বেশ কিছু ঘর-বাড়িসহ স্থাপনা।

স্থানীয় সময় শনিবার (১৯ জানুয়ারি) রাত ১০টা ৩২ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় রোববার সকাল ৭টা ৩২ মিনিটে) দেশটির মধ্যাঞ্চলের শহর ককুইম্বোর অদূরে এ ভূমিকম্প অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে ৬ দশমিক ৭ মাত্রার এ ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ছিল প্রশান্ত মহাসাগর উপকূলের কাছে ভূ-পৃষ্ঠের ৩৩ দশমিক ৫ কিলোমিটার গভীরে।

Trulli

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, ভূমিকম্পের সময় চারদিকে আতঙ্ক দেখা যায়। রাস্তায় অবস্থান নেন লোকজন। দু’জন হার্ট অ্যাটাকে মারা যান। ক্ষতিগ্রস্ত হয় বেশ কিছু বাড়ি-ঘরসহ স্থাপনা। অনেক এলাকায় গাছপালা ও বৈদ্যুতিক খুঁটি রাস্তায় উপড়ে পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

চিলির অবস্থান ভূমিকম্প প্রবণ ‘রিং অব ফায়ারে’। দেশটিতে প্রায়ই ভূমিকম্পের তাণ্ডব দেখা যায়। ২০১০ সালে চিলিতে ৮ দশমিক ৮ মাত্রার একটি ভূমিকম্প অনুভূত হয়। প্রায় তিন মিনিট স্থায়ী ওই ভূমিকম্পে ৫২৫ জনের প্রাণহানি হয়।

Adds Banner_2024

চিলিতে ৮ দশমিক ৮ মাত্রার ভূমিকম্প, ২ জনের মৃত্যু

আপডেটের সময় : ০৫:৩০:৩৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২০ জানুয়ারী ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো দক্ষিণ আমেরিকার দেশ চিলি। এতে হার্ট অ্যাটাকে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বেশ কিছু ঘর-বাড়িসহ স্থাপনা।

স্থানীয় সময় শনিবার (১৯ জানুয়ারি) রাত ১০টা ৩২ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় রোববার সকাল ৭টা ৩২ মিনিটে) দেশটির মধ্যাঞ্চলের শহর ককুইম্বোর অদূরে এ ভূমিকম্প অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে ৬ দশমিক ৭ মাত্রার এ ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ছিল প্রশান্ত মহাসাগর উপকূলের কাছে ভূ-পৃষ্ঠের ৩৩ দশমিক ৫ কিলোমিটার গভীরে।

Trulli

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, ভূমিকম্পের সময় চারদিকে আতঙ্ক দেখা যায়। রাস্তায় অবস্থান নেন লোকজন। দু’জন হার্ট অ্যাটাকে মারা যান। ক্ষতিগ্রস্ত হয় বেশ কিছু বাড়ি-ঘরসহ স্থাপনা। অনেক এলাকায় গাছপালা ও বৈদ্যুতিক খুঁটি রাস্তায় উপড়ে পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

চিলির অবস্থান ভূমিকম্প প্রবণ ‘রিং অব ফায়ারে’। দেশটিতে প্রায়ই ভূমিকম্পের তাণ্ডব দেখা যায়। ২০১০ সালে চিলিতে ৮ দশমিক ৮ মাত্রার একটি ভূমিকম্প অনুভূত হয়। প্রায় তিন মিনিট স্থায়ী ওই ভূমিকম্পে ৫২৫ জনের প্রাণহানি হয়।