রাজশাহী , মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
কোটা নিয়ে আপিল শুনানি রোববার এবার বিটিভির মূল ভবনে আগুন ২১, ২৩ ও ২৫ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত অবশেষে আটকে পড়া ৬০ পুলিশকে উদ্ধার করল র‍্যাবের হেলিকপ্টার উত্তরা-আজমপুরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত ৪ রামপুরা-বাড্ডায় ব্যাপক সংঘর্ষ, শিক্ষার্থী-পুলিশসহ আহত দুই শতাধিক আওয়ামী লীগের শক্ত অবস্থানে রাজশাহীতে দাঁড়াতেই পারেনি কোটা আন্দোলনকারীরা সরকার কোটা সংস্কারের পক্ষে, চাইলে আজই আলোচনা তারা যখনই বসবে আমরা রাজি আছি : আইনমন্ত্রী আন্দোলন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে কথা বলবেন আইনমন্ত্রী রাজশাহীতে শিক্ষার্থীদের সাথে সংঘর্ষ, পুলিশের গাড়ি ভাংচুর, আহত ২০ রাজশাহীতে ককটেল বিস্ফোরণে ছাত্রলীগ নেতা সবুজ আহত বাড্ডায় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া আজ সারা দেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ কর্মসূচি ঢাকাসহ সারা দেশে ২২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন আগামীকাল সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের প্রাণহানির প্রতিটি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত হবে : প্রধানমন্ত্রী হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী অহেতুক কতগুলো মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী আন্দোলনকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ সহযোগিতা করেছে: প্রধানমন্ত্রী

কোটা সংস্কার আন্দোলন: বুধবার সকাল-সন্ধ্যা ‘বাংলা ব্লকেড’

  • জনপদ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০৭:৪৪:৪২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪
  • ৬২ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

এবার সকাল-সন্ধ্যা ‘ব্লকেড’ ঘোষণা করেছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা। বুধবার (১০ জুলাই) সকাল ১০টা থেকে সারা দেশে শিক্ষার্থীদের সড়ক-মহাসড়কের গুরুত্ব পয়েন্ট অবরোধ করে ‘বাংলা ব্লকেড’ পালনের আহ্বান জানিয়েছেন তারা। মঙ্গলবার (৯ জুলাই) সংবাদ সম্মেলনে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের নেতারা এই ঘোষণা দেন।

কোটা সংস্কার আন্দোলনের সমন্বয়কারীরা সাংবাদিকদের জানান, আজ দেশের বিভিন্ন জায়গার শিক্ষার্থীদের সঙ্গে গণসংযোগ করেছেন তারা। আদালতের নির্দেশের বাইরেও তারা সরকারের নির্বাহী বিভাগের কাছ থেকে লিখিত আশ্বাস চান কোটা সংস্কারের বিষয়ে। এ কারণে তারা বুধবার সকাল-সন্ধ্যা ব্লকেড পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

Trulli

সংবাদ সম্মেলনে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের সমন্বয়ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাহিদ ইসলাম বলেন, সারা দেশের সব মহাসড়ক ও রেলপথ বাংলা ব্লকেডের আওতাভুক্ত থাকবে। আমাদের আন্দোলন কোটার বিরুদ্ধে নয়, যৌক্তিকভাবে কোটা সংস্কারের। সিদ্ধান্তটা আসতে হবে নির্বাহী বিভাগ থেকে কমিশন গঠনের মাধ্যমে।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কারের দাবিতে ১ জুলাই থেকে টানা আন্দোলন চলছে। প্রথমে ক্লাস পরীক্ষা বর্জন তারপর অবস্থান কর্মসূচি ও শাহবাগের সড়ক অবরোধ আর এখন চলছে বাংলা ব্লকেড। গত দুই দিনের ব্লকেডে চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা করে কার্যত বন্ধ ছিল শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলো।

সংবাদ সম্মেলন বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনে আরেক সমন্বয়ক হাসনাত আবদুল বলেন, আমাদের আন্দোলন মুক্তিযোদ্ধাদের সুবিধা দেওয়ার বিপক্ষে নয়। বরং, তাদের তাদের নাতিপুতিরা যেন এই সুবিধা না পায় তার জন্য। আমরা কোটা বাতিল নয় যৌক্তিক সংস্কার চাই।

কোটার বিষয়টি আদালতে বিচারাধীন সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের দাবি নির্বাহী বিভাগের কাছে। কমিশন গঠন করে কোটার যৌক্তিক সংস্কারের লিখিত পরিপত্র জারি না করা পাওয়া পর্যন্ত রাজপথ ছাড়বে না আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। আমার বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন মানুষ ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য সর্বোচ্চ ৫ শতাংশ কোটা থাকতে পারে বলে মনে করি।

সংবাদ সম্মেলন শেষে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হলে আগামীকালের সকাল সন্ধ্যার ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচির লিফলেট বিতরণ করেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ৪ অক্টোবর সরকারি চাকরিতে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির পদে সরাসরি নিয়োগে বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি তুলে দিয়ে পরিপত্র জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। ওই প্রজ্ঞাপনকে চ্যালেঞ্জ করে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সাত সদস্য ২০২১ সালে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। এই রিটের চূড়ান্ত শুনানিতে গত ৫ জুন সরকারি চাকরিতে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির মুক্তিযোদ্ধা কোটা পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করেন হাইকোর্ট।

এরপর ৯ জুন হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়ে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। গত ৪ জুলাই প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে ছয় বিচারপতির আপিল বেঞ্চ সরকারি চাকরির প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায় আপাতত বহাল রাখার নির্দেশ দেন।

আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে গত ২ জুলাই থেকে আন্দোলনে নামের শিক্ষার্থীরা। ৭ ও ৮ জুলাই তারা দুপুরের পর থেকে রাত ৭টা থেকে ৮টা পর্যন্ত রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকার সড়ক অবরোধ করে ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচি পালন করেন।

Adds Banner_2024

কোটা সংস্কার আন্দোলন: বুধবার সকাল-সন্ধ্যা ‘বাংলা ব্লকেড’

আপডেটের সময় : ০৭:৪৪:৪২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪

এবার সকাল-সন্ধ্যা ‘ব্লকেড’ ঘোষণা করেছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা। বুধবার (১০ জুলাই) সকাল ১০টা থেকে সারা দেশে শিক্ষার্থীদের সড়ক-মহাসড়কের গুরুত্ব পয়েন্ট অবরোধ করে ‘বাংলা ব্লকেড’ পালনের আহ্বান জানিয়েছেন তারা। মঙ্গলবার (৯ জুলাই) সংবাদ সম্মেলনে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের নেতারা এই ঘোষণা দেন।

কোটা সংস্কার আন্দোলনের সমন্বয়কারীরা সাংবাদিকদের জানান, আজ দেশের বিভিন্ন জায়গার শিক্ষার্থীদের সঙ্গে গণসংযোগ করেছেন তারা। আদালতের নির্দেশের বাইরেও তারা সরকারের নির্বাহী বিভাগের কাছ থেকে লিখিত আশ্বাস চান কোটা সংস্কারের বিষয়ে। এ কারণে তারা বুধবার সকাল-সন্ধ্যা ব্লকেড পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

Trulli

সংবাদ সম্মেলনে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের সমন্বয়ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাহিদ ইসলাম বলেন, সারা দেশের সব মহাসড়ক ও রেলপথ বাংলা ব্লকেডের আওতাভুক্ত থাকবে। আমাদের আন্দোলন কোটার বিরুদ্ধে নয়, যৌক্তিকভাবে কোটা সংস্কারের। সিদ্ধান্তটা আসতে হবে নির্বাহী বিভাগ থেকে কমিশন গঠনের মাধ্যমে।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কারের দাবিতে ১ জুলাই থেকে টানা আন্দোলন চলছে। প্রথমে ক্লাস পরীক্ষা বর্জন তারপর অবস্থান কর্মসূচি ও শাহবাগের সড়ক অবরোধ আর এখন চলছে বাংলা ব্লকেড। গত দুই দিনের ব্লকেডে চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা করে কার্যত বন্ধ ছিল শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলো।

সংবাদ সম্মেলন বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনে আরেক সমন্বয়ক হাসনাত আবদুল বলেন, আমাদের আন্দোলন মুক্তিযোদ্ধাদের সুবিধা দেওয়ার বিপক্ষে নয়। বরং, তাদের তাদের নাতিপুতিরা যেন এই সুবিধা না পায় তার জন্য। আমরা কোটা বাতিল নয় যৌক্তিক সংস্কার চাই।

কোটার বিষয়টি আদালতে বিচারাধীন সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের দাবি নির্বাহী বিভাগের কাছে। কমিশন গঠন করে কোটার যৌক্তিক সংস্কারের লিখিত পরিপত্র জারি না করা পাওয়া পর্যন্ত রাজপথ ছাড়বে না আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। আমার বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন মানুষ ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য সর্বোচ্চ ৫ শতাংশ কোটা থাকতে পারে বলে মনে করি।

সংবাদ সম্মেলন শেষে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হলে আগামীকালের সকাল সন্ধ্যার ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচির লিফলেট বিতরণ করেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ৪ অক্টোবর সরকারি চাকরিতে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির পদে সরাসরি নিয়োগে বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি তুলে দিয়ে পরিপত্র জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। ওই প্রজ্ঞাপনকে চ্যালেঞ্জ করে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সাত সদস্য ২০২১ সালে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। এই রিটের চূড়ান্ত শুনানিতে গত ৫ জুন সরকারি চাকরিতে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির মুক্তিযোদ্ধা কোটা পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করেন হাইকোর্ট।

এরপর ৯ জুন হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়ে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। গত ৪ জুলাই প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে ছয় বিচারপতির আপিল বেঞ্চ সরকারি চাকরির প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায় আপাতত বহাল রাখার নির্দেশ দেন।

আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে গত ২ জুলাই থেকে আন্দোলনে নামের শিক্ষার্থীরা। ৭ ও ৮ জুলাই তারা দুপুরের পর থেকে রাত ৭টা থেকে ৮টা পর্যন্ত রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকার সড়ক অবরোধ করে ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচি পালন করেন।