রাজশাহী , শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
কোটা নিয়ে আপিল শুনানি রোববার এবার বিটিভির মূল ভবনে আগুন ২১, ২৩ ও ২৫ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত অবশেষে আটকে পড়া ৬০ পুলিশকে উদ্ধার করল র‍্যাবের হেলিকপ্টার উত্তরা-আজমপুরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত ৪ রামপুরা-বাড্ডায় ব্যাপক সংঘর্ষ, শিক্ষার্থী-পুলিশসহ আহত দুই শতাধিক আওয়ামী লীগের শক্ত অবস্থানে রাজশাহীতে দাঁড়াতেই পারেনি কোটা আন্দোলনকারীরা সরকার কোটা সংস্কারের পক্ষে, চাইলে আজই আলোচনা তারা যখনই বসবে আমরা রাজি আছি : আইনমন্ত্রী আন্দোলন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে কথা বলবেন আইনমন্ত্রী রাজশাহীতে শিক্ষার্থীদের সাথে সংঘর্ষ, পুলিশের গাড়ি ভাংচুর, আহত ২০ রাজশাহীতে ককটেল বিস্ফোরণে ছাত্রলীগ নেতা সবুজ আহত বাড্ডায় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া আজ সারা দেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ কর্মসূচি ঢাকাসহ সারা দেশে ২২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন আগামীকাল সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের প্রাণহানির প্রতিটি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত হবে : প্রধানমন্ত্রী হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী অহেতুক কতগুলো মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী আন্দোলনকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ সহযোগিতা করেছে: প্রধানমন্ত্রী

গাজায় নিখোঁজ ২১ হাজার শিশু

  • জনপদ ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ০৬:২৩:১৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪
  • ১৪ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

হামাস অধ্যুষিত ফিলিস্তিনের গাজা উপতক্যায় গত বছরের ৭ অক্টোবর হামলা শুরু করে ইসরায়েল। এতে হামাস সেনাদের পাশাপাশি মারা গেছে বেসামরিক লোকজনও। চলমান এই ধ্বংসযজ্ঞ থেকে রেহায় মেলেনি নারী, এমনকি শিশুদেরও। এ পর্যন্ত সাড়ে ৩৭ হাজারেরও বেশি ফিলিস্তিনির প্রাণ হারিয়েছেন। নিহতদের মধ্যে প্রায় অর্ধেকই শিশু। খবর আল জাজিরার।

ফিলিস্তিনি শিশুদের বেশিসংখ্যক হতাহতের ঘটনা এবং তাদের ওপর নির্যাতনে শঙ্কিত জাতিসংঘসহ বিভিন্ন সংস্থা। সংঘাতে শিশুদের ক্ষতি বিবেচনায় চলতি মাসের শুরুতে জাতিসংঘ ইসরায়েলকে কালো তালিকাভুক্ত করে। সোমবার (২৪ জুন) যুক্তরাজ্যভিত্তিক সেভ দ্য চিলড্রেন গাজায় নিখোঁজ শিশুদের বিষয়ে তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে।

Trulli

সংস্থাটি বলছে, অনুমান করা হচ্ছে, গাজায় ২১ হাজারের বেশি শিশু হারিয়ে গেছে, নিখোঁজ হয়েছে, আটক হয়েছে কিংবা ইসরায়েলের অভিযানে ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়েছে। গাজায় শিশুদের বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধের কথা তুলে ধরছে বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা ও আন্তর্জাতিক সংগঠন। সেভ দ্য চিলড্রেন সবশেষ এত শিশু নিখোঁজ হওয়ার তথ্য তুলে ধরল।

গব বছরের নভেম্বরে এক বিবৃতিতে জাতিসংঘ গাজাকে শিশুদের কবরস্থল বলে আখ্যা দিয়েছিল। চলতি বছরের মে মাসে ইউনিসেফ বলেছিল, গাজায় শিশুদের জন্য নিরাপদ কোনো স্থান নেই। শিশুরা যুদ্ধে সর্বোচ্চ মূল্য দিচ্ছে। জুন মাসে ইউনিসেফ বলেছিল, গাজায় ৯০ শতাংশ শিশু অপুষ্টিতে ভুগছে এবং তাদের বৃদ্ধি ও বিকাশ ঝুঁকিতে রয়েছে।

একই মাসে জাতিসংঘ প্রধান সশস্ত্র সংঘাতে শিশুদের অধিকার গুরুতরভাবে লঙ্ঘনের দায়ে ইসরায়েলের নাম লজ্জার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেন। তিনি বলেন, পূর্ব জেরুজালেমসহ গাজা উপত্যকা ও অধিকৃত পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি বাহিনী ও নিরাপত্তা বাহিনী নজিরবিহীন সংখ্যক শিশুকে হত্যা করছে এবং পঙ্গু করছে। এতে তিনি তিনি বিস্মিত। ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের নিয়ে কাজ করা জাতিসংঘের সংস্থা ইউএনআরডব্লিউএ বলছে, গাজায় তীব্র অপুষ্টিতে ভুগতে থাকা ৫০ হাজারেরও বেশি শিশুর জন্য দ্রুত চিকিৎসা প্রয়োজন।

Adds Banner_2024

গাজায় নিখোঁজ ২১ হাজার শিশু

আপডেটের সময় : ০৬:২৩:১৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪

হামাস অধ্যুষিত ফিলিস্তিনের গাজা উপতক্যায় গত বছরের ৭ অক্টোবর হামলা শুরু করে ইসরায়েল। এতে হামাস সেনাদের পাশাপাশি মারা গেছে বেসামরিক লোকজনও। চলমান এই ধ্বংসযজ্ঞ থেকে রেহায় মেলেনি নারী, এমনকি শিশুদেরও। এ পর্যন্ত সাড়ে ৩৭ হাজারেরও বেশি ফিলিস্তিনির প্রাণ হারিয়েছেন। নিহতদের মধ্যে প্রায় অর্ধেকই শিশু। খবর আল জাজিরার।

ফিলিস্তিনি শিশুদের বেশিসংখ্যক হতাহতের ঘটনা এবং তাদের ওপর নির্যাতনে শঙ্কিত জাতিসংঘসহ বিভিন্ন সংস্থা। সংঘাতে শিশুদের ক্ষতি বিবেচনায় চলতি মাসের শুরুতে জাতিসংঘ ইসরায়েলকে কালো তালিকাভুক্ত করে। সোমবার (২৪ জুন) যুক্তরাজ্যভিত্তিক সেভ দ্য চিলড্রেন গাজায় নিখোঁজ শিশুদের বিষয়ে তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে।

Trulli

সংস্থাটি বলছে, অনুমান করা হচ্ছে, গাজায় ২১ হাজারের বেশি শিশু হারিয়ে গেছে, নিখোঁজ হয়েছে, আটক হয়েছে কিংবা ইসরায়েলের অভিযানে ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়েছে। গাজায় শিশুদের বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধের কথা তুলে ধরছে বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা ও আন্তর্জাতিক সংগঠন। সেভ দ্য চিলড্রেন সবশেষ এত শিশু নিখোঁজ হওয়ার তথ্য তুলে ধরল।

গব বছরের নভেম্বরে এক বিবৃতিতে জাতিসংঘ গাজাকে শিশুদের কবরস্থল বলে আখ্যা দিয়েছিল। চলতি বছরের মে মাসে ইউনিসেফ বলেছিল, গাজায় শিশুদের জন্য নিরাপদ কোনো স্থান নেই। শিশুরা যুদ্ধে সর্বোচ্চ মূল্য দিচ্ছে। জুন মাসে ইউনিসেফ বলেছিল, গাজায় ৯০ শতাংশ শিশু অপুষ্টিতে ভুগছে এবং তাদের বৃদ্ধি ও বিকাশ ঝুঁকিতে রয়েছে।

একই মাসে জাতিসংঘ প্রধান সশস্ত্র সংঘাতে শিশুদের অধিকার গুরুতরভাবে লঙ্ঘনের দায়ে ইসরায়েলের নাম লজ্জার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেন। তিনি বলেন, পূর্ব জেরুজালেমসহ গাজা উপত্যকা ও অধিকৃত পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি বাহিনী ও নিরাপত্তা বাহিনী নজিরবিহীন সংখ্যক শিশুকে হত্যা করছে এবং পঙ্গু করছে। এতে তিনি তিনি বিস্মিত। ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের নিয়ে কাজ করা জাতিসংঘের সংস্থা ইউএনআরডব্লিউএ বলছে, গাজায় তীব্র অপুষ্টিতে ভুগতে থাকা ৫০ হাজারেরও বেশি শিশুর জন্য দ্রুত চিকিৎসা প্রয়োজন।