ক্যাম্পাসশিক্ষা

নোবিপ্রবিতে মাতৃভাষা দিবসে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে হট্টগোল

নিজস্ব প্রতিবেদক, নোবিপ্রবিঃ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২৪ উপলক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদনে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) অব্যবস্থাপনার অভিযোগ উঠেছে।

আজ বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারী) বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এই ঘটনা ঘটে।

দিবসটি উপলক্ষে শোক পদযাত্রা ও শ্রদ্ধা নিবেদনের কর্মসূচি গ্রহণ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। শোক পদযাত্রাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে শহীদ মিনারে এসে শেষ হয়। পরবর্তীতে শহীদ মিনারে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে শহীদ মিনার চত্বরে হট্টগোলের সৃষ্টি হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, ফুল দেওয়ার ক্ষেত্রে কোনোরকম পূর্বনির্ধারিত নিয়মনীতি অনুসরণ না করেই শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য আহ্বান করা হয়। এতে করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের শ্রদ্ধা নিবেদনের পর ফুল দেওয়া নিয়ে হট্টগোলের সৃষ্টি হয়।

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও শিক্ষক সমিতির পর নোবিপ্রবি ছাত্রলীগের নাম ঘোষণা করা হয়।শিক্ষক সমিতির পরে নোবিপ্রবি অফিসার্স এসোসিয়েশনের নাম ঘোষণা না করায় তাৎক্ষণিক ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেন অফিসার্স এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ। পরবর্তীতে সবার শেষে তারা শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী বলেন, নোবিপ্রবিতে সব সময়ই সাদামাটা ভাবে আয়োজন করা হয় যে কোনো দিবস। যার ফলে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ এক শতাংশ ও হয়না।

এ বিষয়ে কথা বলতে গেলে নোবিপ্রবি অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি মেজবাহ উদ্দিন পলাশ ও সাধারণ সম্পাদক ইবনে ওয়াজেদ ইমন বলেন, এখানে একটি ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে। আমরা আশা করি পরিবর্তীতে এরকম কোন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটবেনা।

নোবিপ্রবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নাঈম রহমান ও সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান শুভ বলেন, আমাদেরকে যখনই সুযোগ দেওয়া হতো তখনি আমরা শ্রদ্ধা নিবেদন করতাম। দিবস উদযাপনে সব সময়ের মত সমন্বয়হীনতা রয়েছে। আমরা আশা করি জাতীয় দিবস উদযাপনে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আরো সতর্ক হয়ে পরিকল্পনা করবেন।

নোবিপ্রবির জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটির নির্দেশনায় আন্তর্জাতিক দিবসের আয়োজনের সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করে নোবিপ্রবির ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগ। এ বিষয়ে ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক ড. বিপ্লব মল্লিক বলেন,আমাদের দিবস উদযাপনের বিষয়ে সংশ্লিষ্টটা নেই। আমরা নির্দেশিত হয়ে দায়িত্ব পালন করেছি।

উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা সভায় নোবিপ্রবি কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর বলেন,শুরুর দিকে কিছুটা সমস্যা হয়েছে যা আমাদেরকে ব্যথিত করেছে।আমরা আশা করছি পরবর্তীতে সঠিক ভাবে শ্রদ্ধাবোধের সাথে দিবসগুলো পালন করতে পারবো। সকলের সহযোগিতা আশা করছি।

দিবস উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক নোবিপ্রবি উপ- উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আব্দুল বাকী বলেন, প্রশাসনিক কিছু বিষয়ে সমস্যা হলে তা পুরো নোবিপ্রবির নাম চলে আসে।তাই আমাদের সবাইকে এই বিষয়ে সতর্ক হতে হবে।আমরা সকলে পরবর্তীতে আরো সতর্কতার সাথে সকলের সহযোগিতায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে সুন্দর আয়োজন করবো।

আরো দেখুন

সম্পরকিত খবর

Back to top button