রাজশাহী , শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
কোটা নিয়ে আপিল শুনানি রোববার এবার বিটিভির মূল ভবনে আগুন ২১, ২৩ ও ২৫ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত অবশেষে আটকে পড়া ৬০ পুলিশকে উদ্ধার করল র‍্যাবের হেলিকপ্টার উত্তরা-আজমপুরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত ৪ রামপুরা-বাড্ডায় ব্যাপক সংঘর্ষ, শিক্ষার্থী-পুলিশসহ আহত দুই শতাধিক আওয়ামী লীগের শক্ত অবস্থানে রাজশাহীতে দাঁড়াতেই পারেনি কোটা আন্দোলনকারীরা সরকার কোটা সংস্কারের পক্ষে, চাইলে আজই আলোচনা তারা যখনই বসবে আমরা রাজি আছি : আইনমন্ত্রী আন্দোলন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে কথা বলবেন আইনমন্ত্রী রাজশাহীতে শিক্ষার্থীদের সাথে সংঘর্ষ, পুলিশের গাড়ি ভাংচুর, আহত ২০ রাজশাহীতে ককটেল বিস্ফোরণে ছাত্রলীগ নেতা সবুজ আহত বাড্ডায় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া আজ সারা দেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ কর্মসূচি ঢাকাসহ সারা দেশে ২২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন আগামীকাল সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের প্রাণহানির প্রতিটি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত হবে : প্রধানমন্ত্রী হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী অহেতুক কতগুলো মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী আন্দোলনকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ সহযোগিতা করেছে: প্রধানমন্ত্রী

জাপার সঙ্গে আ.লীগের আসন জটিলতা কাটেনি

  • আপডেটের সময় : ০৬:৩১:২৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৮
  • ৮৮ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

বিশেষ প্রতিনিধি: মহাজোটের বড় শরিক এইচ এম এরশাদের জাতীয় পার্টির (জাপা) সঙ্গে আওয়ামী লীগের আসন সমঝোতা চূড়ান্ত হয়নি। এ জন্য আওয়ামী লীগ ও জাপা তাদের প্রার্থী তালিকা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করেনি। ফলে নৌকা ও লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে কোন আসনে কারা এককভাবে ভোট করবেন, তা গতকাল পর্যন্ত স্পষ্ট হয়নি।

আজ রোববার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। আজকের মধ্যেই নির্বাচন কমিশনকে জানাতে হবে কে কোন প্রতীকে ভোট করবেন। অর্থাৎ কে দলের প্রার্থী আর কে জোটের প্রার্থী, সেই তালিকা নির্বাচন কমিশনে দিতে হবে।

Trulli

আওয়ামী লীগ গত শুক্রবারই ১৪-দলীয় জোটের শরিকদের ১৩টি আসনে ছাড় দিয়ে সমঝোতা করেছে। বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্টকে তিনটি আসনে ছাড় দিয়েছে। তারা সবাই নৌকা প্রতীকে ভোট করবে। শুক্রবার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, জাপাকে ৪০ থেকে ৪২টি আসন দেওয়া হতে পারে।

তবে গতকাল দলীয় সূত্রে জানা গেছে, এইচ এম এরশাদের জাপাকে ৩০ থেকে ৩২টি আসন ছেড়ে দেওয়ার বিষয়ে আলোচনা চলছে। এর বাইরে ৮ থেকে ১০টি আসন উন্মুক্ত থাকতে পারে। এসব আসনে আওয়ামী লীগ, জাপা ও অন্য শরিকেরও প্রার্থী থাকবে। এতে জাপা খুশি নয়। শনিবার রাত আটটায় জাপার চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন ডেকে তা স্থগিত করা হয়।

এ ছাড়া যুক্তফ্রন্টও তিন আসনে সন্তুষ্ট নয়। শুক্রবার রাতে যুক্তফ্রন্টের প্রধান সমন্বয়ক গোলাম সারোয়ার এক বিবৃতিতে এ অসন্তুষ্টির কথা
জানান। যুক্তফ্রন্ট আরও চারটি আসন বাড়তি চাইছে বলে জানা গেছে।

বিদ্রোহীদের নিয়ে আ. লীগে চিন্তা
মহাজোটের শরিকদের আসন নিয়ে জটিলতার মধ্যে আওয়ামী লীগের আরেক গলার কাঁটা দলের বিদ্রোহী প্রার্থী। দলের মনোনয়ন না পেয়ে অন্তত ৮০ জন বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছিলেন। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে বাদ পড়ার পরও অর্ধশতাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী টিকে আছেন। নিজ দলের যাঁরা বিভিন্ন আসনে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন, তাঁদের প্রতি চিঠি দিয়ে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করতে বলেছেন আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিএনপির বিরুদ্ধে মনোনয়ন-বাণিজ্যের অভিযোগ
এদিকে গতকাল আওয়ামী লীগের ধানমন্ডি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক অভিযোগ করেন, ‘বিএনপির মনোনয়ন-বাণিজ্য বেসামাল পর্যায়ে চলে গেছে। ঢাকা বা বাংলাদেশে নয়, লন্ডনে গিয়ে পৌঁছেছে এ অবস্থা। মাত্র টেলিভিশনে দেখলাম, বিএনপি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ চলছে।’

নিজ দলের বিদ্রোহীদের প্রসঙ্গে নানক বলেন, বিদ্রোহী ২৪ জন ছিলেন। ৬-৭ জন প্রত্যাহার করেছেন। যাঁরা এখনো প্রত্যাহার করেননি, তাঁদের সঙ্গে কথা হয়েছে, প্রত্যাহার করবেন।

Adds Banner_2024

জাপার সঙ্গে আ.লীগের আসন জটিলতা কাটেনি

আপডেটের সময় : ০৬:৩১:২৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৮

বিশেষ প্রতিনিধি: মহাজোটের বড় শরিক এইচ এম এরশাদের জাতীয় পার্টির (জাপা) সঙ্গে আওয়ামী লীগের আসন সমঝোতা চূড়ান্ত হয়নি। এ জন্য আওয়ামী লীগ ও জাপা তাদের প্রার্থী তালিকা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করেনি। ফলে নৌকা ও লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে কোন আসনে কারা এককভাবে ভোট করবেন, তা গতকাল পর্যন্ত স্পষ্ট হয়নি।

আজ রোববার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। আজকের মধ্যেই নির্বাচন কমিশনকে জানাতে হবে কে কোন প্রতীকে ভোট করবেন। অর্থাৎ কে দলের প্রার্থী আর কে জোটের প্রার্থী, সেই তালিকা নির্বাচন কমিশনে দিতে হবে।

Trulli

আওয়ামী লীগ গত শুক্রবারই ১৪-দলীয় জোটের শরিকদের ১৩টি আসনে ছাড় দিয়ে সমঝোতা করেছে। বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্টকে তিনটি আসনে ছাড় দিয়েছে। তারা সবাই নৌকা প্রতীকে ভোট করবে। শুক্রবার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, জাপাকে ৪০ থেকে ৪২টি আসন দেওয়া হতে পারে।

তবে গতকাল দলীয় সূত্রে জানা গেছে, এইচ এম এরশাদের জাপাকে ৩০ থেকে ৩২টি আসন ছেড়ে দেওয়ার বিষয়ে আলোচনা চলছে। এর বাইরে ৮ থেকে ১০টি আসন উন্মুক্ত থাকতে পারে। এসব আসনে আওয়ামী লীগ, জাপা ও অন্য শরিকেরও প্রার্থী থাকবে। এতে জাপা খুশি নয়। শনিবার রাত আটটায় জাপার চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন ডেকে তা স্থগিত করা হয়।

এ ছাড়া যুক্তফ্রন্টও তিন আসনে সন্তুষ্ট নয়। শুক্রবার রাতে যুক্তফ্রন্টের প্রধান সমন্বয়ক গোলাম সারোয়ার এক বিবৃতিতে এ অসন্তুষ্টির কথা
জানান। যুক্তফ্রন্ট আরও চারটি আসন বাড়তি চাইছে বলে জানা গেছে।

বিদ্রোহীদের নিয়ে আ. লীগে চিন্তা
মহাজোটের শরিকদের আসন নিয়ে জটিলতার মধ্যে আওয়ামী লীগের আরেক গলার কাঁটা দলের বিদ্রোহী প্রার্থী। দলের মনোনয়ন না পেয়ে অন্তত ৮০ জন বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছিলেন। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে বাদ পড়ার পরও অর্ধশতাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী টিকে আছেন। নিজ দলের যাঁরা বিভিন্ন আসনে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন, তাঁদের প্রতি চিঠি দিয়ে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করতে বলেছেন আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিএনপির বিরুদ্ধে মনোনয়ন-বাণিজ্যের অভিযোগ
এদিকে গতকাল আওয়ামী লীগের ধানমন্ডি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক অভিযোগ করেন, ‘বিএনপির মনোনয়ন-বাণিজ্য বেসামাল পর্যায়ে চলে গেছে। ঢাকা বা বাংলাদেশে নয়, লন্ডনে গিয়ে পৌঁছেছে এ অবস্থা। মাত্র টেলিভিশনে দেখলাম, বিএনপি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ চলছে।’

নিজ দলের বিদ্রোহীদের প্রসঙ্গে নানক বলেন, বিদ্রোহী ২৪ জন ছিলেন। ৬-৭ জন প্রত্যাহার করেছেন। যাঁরা এখনো প্রত্যাহার করেননি, তাঁদের সঙ্গে কথা হয়েছে, প্রত্যাহার করবেন।