spot_img

শীতকাল  - বুধবার | ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১৭ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি | ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

শীতকাল  - বুধবার | ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১৭ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

spot_imgspot_imgspot_img

লস অ্যাঞ্জেলেসে বন্দুক হামলা, নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১১

spot_img
- বিজ্ঞাপন - 01309003902 -

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলেসের মন্টেয়ারি পার্কের একটি নাইট ক্লাবে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১ জনে। পুলিশ এখনো এই হত্যাকাণ্ডের কারণ খুঁজে পেতে তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে। প্রাথমিক তদন্তে ঘটনাস্থল থেকে ৪২টি গুলি খোসা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রয়টার্স জানায়, স্থানীয় সময় গত শনিবার (২১ জানুয়ারি) রাতে চীনা চান্দ্র নববর্ষের উৎসবে মেতেছিল মন্টেয়ারি পার্ক এলাকার চীনা এবং অন্যান্য জনগোষ্ঠী। সেই উৎসবে শোকের ছায়া নামিয়ে আনেন এক বন্দুকধারী। তার গুলিতে প্রাণ হারান ১০ জন।

পুলিশ এরই মধ্যে বন্দুকধারীকে শনাক্ত করেছে। হু চ্যান ট্র্যান (৭২) নামে মূল সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তি আত্মহত্যা করেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক সূত্র জানিয়েছে, চীনা চান্দ্রবর্ষের উৎসবের ওই অনুষ্ঠানে গোলাগুলির পর বন্দুকধারী ব্যক্তি একটি সাদা রঙের ভ্যানে আশ্রয় নেয়। পুলিশের ধারণা, ওই ব্যক্তি নিজের বন্দুক থেকে ছোড়া গুলিতেই নিহত হয়েছেন। বন্দুকধারীর সঙ্গে দীর্ঘ দেনদরবার শেষে তারা যখন গাড়ির কাছে পৌঁছায় তার অল্প আগেই ওই ব্যক্তি নিজের গায়ে গুলি করেন।

পুলিশের বরাত দিয়ে লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পুলিশ সদস্যরা ভ্যানটির কাছে গিয়ে দেখতে পান, ওই ব্যক্তির যে পাশে বসেছিলেন, সে পাশের জানালার কাচে গুলি করায় সৃষ্ট দুটো ছিদ্র রয়েছে।

হু চ্যান ট্র্যানকে শনাক্ত করেন লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টির শেরিফ রবার্ট লুনা। তিনি বলেন, তদন্তকারীরা নিশ্চিত করেছেন যে, সাদা ভ্যানের ভেতরে যে ব্যক্তির মরদেহ পাওয়া গেছে তিনিই মন্টেয়ারি পার্কের নাইটক্লাবের বলরুমে গণহারে গুলি চালানো ব্যক্তি। ওই ব্যক্তি নিজেই নিজেকে গুলি করেছেন।

এর আগে শনিবার (২১ জানুয়ারি) স্থানীয় সময় রাত ১০টা ২০ মিনিটের দিকে লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে প্রায় আট মাইল পূর্বে মোনাটারি পার্কে হামলার এ ঘটনা ঘটে। দুদিনের চান্দ্র নববর্ষ অনুষ্ঠানে আসা মানুষ সারাদিন মন্টেয়ারি পার্কে চীনের বিশেষ খাবার, গয়না ও অন্যান্য পণ্য কেনাসহ বিভিন্ন আয়োজন নিয়ে উৎসবে মেতেছিলেন।

spot_img

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, banglarjanapad@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন BanglarJanapad আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বাধিক পঠিত

- বিজ্ঞাপন - 01309003902spot_img