রাজশাহী , মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
পবিত্র ইদুল আযহা উপলক্ষে আগামী ১৬ জুন ২০২৪ থেকে ২১ জুন ২০২৪ তারিখ পর্যন্ত বাংলার জনপদের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। ২২ জুন ২০২৪ তারিখ থেকে পুনরায় সকল কার্যক্রম চালু থাকবে। ***ধন্যবাদ**

প্রাথমিক সমাপনীর ফল হতে পারে ২৬-২৭ ডিসেম্বর

  • আপডেটের সময় : ০৮:২৩:৩৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ ডিসেম্বর ২০১৮
  • ১৩২ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

ঢাকা প্রতিনিধি: পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রাথমিক শিক্ষা ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হতে পারে আগামী ২৬ বা ২৭ ডিসেম্বর। অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফলও ২৫-২৭ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশিত হতে পারে।

২৫-২৭ ডিসেম্বরের মধ্যে বা প্রধানমন্ত্রী যেদিন সময় দেন সেভাবে ফল প্রকাশের অনুরোধ করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছে দুই মন্ত্রণালয়।

Trulli

গত বছর একই দিন দুই সমাপনী পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছিল। রেওয়াজ অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রীর হাতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী এবং শিক্ষামন্ত্রী কর্মকর্তাদের নিয়ে ফলের অনুলিপি তুলে দেন। তবে এবার ৩০ ডিসেম্বর ভোটের কারণে কবে ফল প্রকাশিত হবে- তা প্রধানমন্ত্রীর সময় দেওয়ার ওপর নির্ভর করছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, ২৬ ও ২৭ ডিসেম্বর বা প্রধানমন্ত্রী যে দিন সময় দেবেন সেভাবে অনুরোধ করে গত সোমবার প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

গত ১৮ নভেম্বর শুরু হয়ে প্রাথমিক শিক্ষা ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শেষ হয় ২৬ নভেম্বর। ৬টি বিষয়ের প্রতিটিতে ১০০ করে মোট ৬০০ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এবার পরীক্ষার বহুনির্বাচনী প্রশ্ন (এমসিকিউ) বাদ দেওয়া হয়েছে।

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় এবার ২৭ লাখ ৭৭ হাজার ২৭০ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এরমধ্যে ছাত্র সংখ্যা ১২ লাখ ৭৮ হাজার ৭৪২ জন এবং ছাত্রী সংখ্যা ১৪ লাখ ৯৮ হাজার ৫২৮ জন। আর ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ৩ লাখ ১৭ হাজার ৮৫৩ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এতে ছাত্র সংখ্যা ১ লাখ ৬৬ হাজার ৮১৪ জন এবং ছাত্রী সংখ্যা ১ লাখ ৫১ হাজার ৩৯ জন।

এদিকে, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে ফল প্রকাশের জন্য প্রস্তাব পাঠিয়েছে মন্ত্রণালয়।

অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা ১ নভেম্বর শুরু হয়ে শেষ হয় ১৫ নভেম্বর। সারাদেশে এবার ২৬ লাখ ৭০ হাজার ৩৩৩ জন শিক্ষার্থী অংশে নেয়। আট বোর্ডের অধীনে জেএসসিতে ২২ লাখ ৬৭ হাজার ৩৪৩ জন এবং মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে জেডিসিতে ৪ লাখ ২ হাজার ৯৯০ জন পরীক্ষা দেয়।

Adds Banner_2024

প্রাথমিক সমাপনীর ফল হতে পারে ২৬-২৭ ডিসেম্বর

আপডেটের সময় : ০৮:২৩:৩৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ ডিসেম্বর ২০১৮

ঢাকা প্রতিনিধি: পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রাথমিক শিক্ষা ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হতে পারে আগামী ২৬ বা ২৭ ডিসেম্বর। অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফলও ২৫-২৭ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকাশিত হতে পারে।

২৫-২৭ ডিসেম্বরের মধ্যে বা প্রধানমন্ত্রী যেদিন সময় দেন সেভাবে ফল প্রকাশের অনুরোধ করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছে দুই মন্ত্রণালয়।

Trulli

গত বছর একই দিন দুই সমাপনী পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছিল। রেওয়াজ অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রীর হাতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী এবং শিক্ষামন্ত্রী কর্মকর্তাদের নিয়ে ফলের অনুলিপি তুলে দেন। তবে এবার ৩০ ডিসেম্বর ভোটের কারণে কবে ফল প্রকাশিত হবে- তা প্রধানমন্ত্রীর সময় দেওয়ার ওপর নির্ভর করছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, ২৬ ও ২৭ ডিসেম্বর বা প্রধানমন্ত্রী যে দিন সময় দেবেন সেভাবে অনুরোধ করে গত সোমবার প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

গত ১৮ নভেম্বর শুরু হয়ে প্রাথমিক শিক্ষা ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শেষ হয় ২৬ নভেম্বর। ৬টি বিষয়ের প্রতিটিতে ১০০ করে মোট ৬০০ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এবার পরীক্ষার বহুনির্বাচনী প্রশ্ন (এমসিকিউ) বাদ দেওয়া হয়েছে।

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় এবার ২৭ লাখ ৭৭ হাজার ২৭০ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এরমধ্যে ছাত্র সংখ্যা ১২ লাখ ৭৮ হাজার ৭৪২ জন এবং ছাত্রী সংখ্যা ১৪ লাখ ৯৮ হাজার ৫২৮ জন। আর ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ৩ লাখ ১৭ হাজার ৮৫৩ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এতে ছাত্র সংখ্যা ১ লাখ ৬৬ হাজার ৮১৪ জন এবং ছাত্রী সংখ্যা ১ লাখ ৫১ হাজার ৩৯ জন।

এদিকে, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে ফল প্রকাশের জন্য প্রস্তাব পাঠিয়েছে মন্ত্রণালয়।

অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা ১ নভেম্বর শুরু হয়ে শেষ হয় ১৫ নভেম্বর। সারাদেশে এবার ২৬ লাখ ৭০ হাজার ৩৩৩ জন শিক্ষার্থী অংশে নেয়। আট বোর্ডের অধীনে জেএসসিতে ২২ লাখ ৬৭ হাজার ৩৪৩ জন এবং মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে জেডিসিতে ৪ লাখ ২ হাজার ৯৯০ জন পরীক্ষা দেয়।