spot_img

শরৎকাল  - মঙ্গলবার | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১লা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি | ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

শরৎকাল  - মঙ্গলবার | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১লা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

বাড়ছে নিষিদ্ধ হাইড্রলিক হর্নের ব্যবহার, আতংকিত রাজশাহী নগরবাসী

spot_img
- বিজ্ঞাপন - 01309003902 -

নিজস্ব প্রতিবেদক : দিন দিন বদলে যাচ্ছে রাজশাহী নগরীর উন্নয়ন অবকাঠামো। শান্তির নগরী হিসেবে খ্যাতি রয়েছে শহরটির। ফুলে ফুলে সজ্জিত এই শহরটির সৌন্দর্যে মুগ্ধ স্থানীয়রা থেকে শুরু করে বিদেশি পর্যটকরাও। এরই মধ্যে পরিবেশবান্ধব শহর হিসেবে দুইবার পুরস্কৃত হয়েছে রাজশাহী নগরী। তবে নগরী জুরে বেড়েছে যান চলাচলের সংখ্যাও। তার সাথে সাথে বেড়েছে যানবাহনের অতিরিক্ত গতি ও হাইড্রোলিক হর্নের ব্যবহার। যা বিশেষ করে লক্ষ্য করা যায় কিশোর বাইক রাইডারদের । তাদের বাইকের বেপরোয়া গতি যেন নগরীতে এক আতংকে নাম। এতে করে নগরে ঘটছে নানা সড়ক দুর্ঘটনা।এমন দুর্ঘটনা ঝড়ছে অগণিত প্রাণ। আর তাদের বাইকে ব্যবহিত হাইড্রোলিক হর্ন যা শব্দ দূষণের অন্যতম কারণ।

রাজশাহী মহানগরীতে রাস্তা-ঘাট গুলো দুইলেন থেকে চারলেনে প্রস্থকরণের ফলে এই পরিষ্কার পরিছন্ন শহরের মুগ্ধতা বেড়েছে দ্বিগুণ। আর তা উপভোগ করতে আসতে দেখা যায় নানা প্রান্তের মানুষকে। এছাড়া সাপ্তাহিক ছুটির দিনসহ বিশেষ বিশেষ দিন গুলোতে মানুষের পাশাপাশি দেখা মিলছে হাইড্রোলিক হর্ন যুক্ত যানবাহনের।

প্রতিদিন বিকেল হলেই নগরী বিমান চত্তর, বাইপাস, তালাইমারি মোড় সহ শহরের বড় বড় প্রস্তস্থ সড়ক গুলোতে বাড়ছে মোটরসাইকেল সহ বিভিন্ন যানবাহনের সংখ্যা আর কারণ-অকারণ ছাড়াই বাজানো হচ্ছে হর্ন।

নগরী বিমান চত্তর রাস্তার পাশে বসবাসরত আলীউল্লাহ নামের এক ব্যক্তি বলেন, আগে রাস্তা ছিলো না আরামে ঘুমতে পারতাম। কিন্তু এখন তা পারিনা সব সময় গাড়ি চলাচল আর হর্নের শব্দে অতিষ্ঠ হয়ে গেছি।

এদিকে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এ ধরনের হাইড্রোলিক হর্ন স্বাভাবিক হর্নের চেয়ে অনেক বেশি অস্বস্তিকর, যা মানুষের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের ব্যাপক ক্ষতি করছে। আর অতিরিক্ত গতিতে যানবাহন চলাচল সড়ক দুর্ঘটনা অন্যতম কারণ হিসেবে দেখছেন তারা।

হাইড্রোলিক হর্ন স্বাস্থ্য ও শ্রবণের জন্য ক্ষতিকর বলে উচ্চ আদালতে করা এক রিটের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৭ সালের ২৩ আগস্ট সারাদেশে হাইড্রোলিক হর্নের ব্যবহার নিষিদ্ধ ঘোষণা করে আদালত। তার পরেও এর ব্যবহার কমেনি রাজশাহী নগরীতে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মতে, মানুষের জন্য শ্রবণযোগ্য শব্দের সহনীয় মাত্রা সর্বোচ্চ ৪০ ডেসিবেল। কিন্তু হাইড্রোলিক হর্ন শব্দ ছড়ায় ১২০ ডেসিবেল পর্যন্ত। এর স্থিতি ৯ সেকেন্ডের বেশি হলে ক্ষতিকর হয়ে ওঠে। দেশের শব্দদূষণ (নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালা অনুসারে দেশের নগর এলাকায় দূষণের সর্বোচ্চ মাত্রা ৬০ ডেসিবেল। এর চেয়ে উচ্চ মাত্রার শব্দে নানা রকম সমস্যা সৃষ্টি হয়।

রাজশাহী নগরীতে উঠতি বয়সের কিশোরা মোটরসাইকেল ব্যবহার করছে এ হাইড্রোলিক হর্ন। আর ট্রাফিক পুলিশের নির্দেশনা ও সংকেত চিহ্ন অমান্য করেই শহর অভ্যন্তরীণ স্কুল-কলেজ,অফিস, আদালতসহ লোকালয়ের ছোট ছোট রাস্তা গুলোর সামনে দিয়ে হর্ন বাজিয়ে অতিরিক্ত গতিতে মোটরসাইকেল চালাছে তারা। এর ফলে মানুষের শ্রবণশক্তি হ্রাস, বধিরতা, হৃদ্‌রোগ, মেজাজ খিটখিটে হওয়া, বিরক্তি সৃষ্টি ও শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় বিঘ্ন ঘটছে।

রাজশাহী নগর অভ্যন্তরে অতিরিক্ত গতিতে মোটরসাইকেল চলাচল ও হাইড্রোলিক হর্ন নিয়ে জানতে চাইলে আরএমপি ট্র্যাফিক পুলিশের টিআই এডমিন মো. আতাউল আল কোরায়েশি বাংলার জনপদকে বলেন, মোটরসাইকেলের গতি বিভিন্ন জায়গায় ভিন্ন। হাইওয়েতে সর্বোচ্চ ৭০ থেকে ৮০ কি.মি, বাজার এলাকায় সর্বোচ্চ ১৫ কি.মি ও শহররে স্বাভাবিক গতি ২৬ থেকে ৩০ কি.মি গতিতে চালাতে পারবে। কিন্ত অতিরিক্ত গতি হলে আমরা আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করি।

তিনি আরও বলেন, কোন কোন জায়গায় একজন চালক হর্ন বাজাতে পারবে। যেমন আমদাবাঁক ও গোলচত্তর বাঁকে বাজাতে পারবে স্বাভাবিক হর্ন তবে হাইড্রোলিক হর্ন না। কারণ এ হর্ন উচ্চ শব্দ হওয়ায় ছোট শিশুদের শ্রবণশক্তি হ্রাস সহ নান সমস্যা হয়। তাই ২০১৭ সালে সরকার সারাদেশে এ হর্ন নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। কেউ যদি এই হর্ন ব্যবহার করে তাহলে অপরাধের জন্য চালককে সর্বোচ্চ ১ থেকে ৩ বছরের জেল ও ৩ লক্ষ টাকা জরিমান দিতে হবে।

ট্র্যাফিক পুলিশের টিআই এডমিন মো. আতাউল আল কোরায়েশি বলেন, আমরা প্রতিনিয়ত হাইড্রোলিক হর্নের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করি। এখন অভিযান বন্ধ আছে। সামনে মাস থেকে আবারও অভিযান পরিচালনা করব।

বাংলার জনপদ/ রিয়াজ

spot_img

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, banglarjanapad@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন BanglarJanapad আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

এই বিভাগের আরও খবর
- বিজ্ঞাপন - 01309003902 spot_img

সর্বাধিক পঠিত

- বিজ্ঞাপন - 01309003902spot_img