রাজশাহী , বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
আগামীকাল সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের প্রাণহানির প্রতিটি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত হবে : প্রধানমন্ত্রী হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী অহেতুক কতগুলো মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী আন্দোলনকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ সহযোগিতা করেছে: প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী দাবি না মানায় রাবি উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন শিক্ষার্থীরা ছাত্রশিবির-ছাত্রদল এবং বহিরাগতরা ঢাবির হলে তাণ্ডব চালিয়েছে: মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী হল ছাড়বেন না রাবি শিক্ষার্থীরা, তিন দাবিতে বিক্ষোভ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা ঢাবির সব হল সাধারণ শিক্ষার্থীদের দখলে এবার সিটি কর্পোরেশন এলাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা হামলার ভয়ে হল ছাড়ছেন রাবি শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কার আন্দোলন: বৃহস্পতিবারের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা রাবির বঙ্গবন্ধু হলে অগ্নিসংযোগ, শহরে খণ্ড খণ্ড বিক্ষোভ লাঠিসোঁটা নিয়ে রাবিতে বিক্ষোভ, বঙ্গবন্ধু হলে ভাঙচুর, বাইকে আগুন রাজশাহীতে ৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন রাবিতে হলে ঢুকে মোটরসাইকেলে আগুন, ব্যাপক ভাঙচুর চট্টগ্রামে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ

ঈশ্বরদীতে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

  • আপডেটের সময় : ০৯:৪১:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১ ডিসেম্বর ২০১৮
  • ৭৪ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

পাবনা প্রতিনিধি: পাবনার ঈশ্বরদীতে জাকিয়া সুলতানা ঝুমু (২৫) নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ বলছে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিটে মৃত্যু। নিহতের পরিবারের অভিযোগ শারীরিক নির্যাতন করে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

শনিবার (১ ডিসেম্বর) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার দাশুড়িয়া ইউনিয়নের দাদপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ঝুমু একই ইউনিয়নের আতাইল শিমুল গ্রামের রেলওয়ে কর্মচারী আবেদ আলী প্রামাণিকের ছোট মেয়ে ও দাদপুর গ্রামের রেজাউল করিম রিন্টুর স্ত্রী।

Trulli

নিহতের ভাই আরিফুল ইসলাম আরিফ জানান, ‘প্রায় চার বছর আগে দাদপুর গ্রামের আজমল হোসেনের ছেলে রেজাউল করিম রিন্টুর সঙ্গে জাকিয়া সুলতানা ঝুমুর দুই লাখ টাকা যৌতুক দিয়ে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করে আসছিল শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এমনকি বাবার বাড়ির লোকজনের সঙ্গে কথা বলতে ও বেড়াতে আসতে দিতো না।

শনিবার সকালের দিকে ওই এলাকার স্থানীয় এক প্রতিবেশী মোবাইলে খবর দেয়, আমার বোন ঝুমু বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিটে দগ্ধ হয়েছে। খবর পেয়ে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে শুনতে পাই কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেছেন।’

তিনি জানান, ‘ডাক্তার মৃত ঘোষণা করার পরও শ্বশুরবাড়ির লোকজন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য মরদেহ গাড়িতে তুলছিল। এসময় আমরা হাসপাতালে পৌঁছালে তারা মরদেহ ফেলে রেখে সটকে পড়েন। বোনের গায়ে বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন দেখে আমাদের সন্দেহ হয় তাকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।’

ঈশ্বরদী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শরিফুল ইসলাম জানান, স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় ওই গৃহবধূ বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিটে দগ্ধ হওয়ার পর প্রতিবেশীরা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়। পরে পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পর ঝুমুর মৃত্যু হয়।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকীম বলেন, তদন্তের জন্য ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Adds Banner_2024
Adds Banner_2024

রাবিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযান, ৪ ঘণ্টা পর অবমুক্ত উপাচার্য

Adds Banner_2024

ঈশ্বরদীতে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

আপডেটের সময় : ০৯:৪১:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১ ডিসেম্বর ২০১৮

পাবনা প্রতিনিধি: পাবনার ঈশ্বরদীতে জাকিয়া সুলতানা ঝুমু (২৫) নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ বলছে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিটে মৃত্যু। নিহতের পরিবারের অভিযোগ শারীরিক নির্যাতন করে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

শনিবার (১ ডিসেম্বর) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার দাশুড়িয়া ইউনিয়নের দাদপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ঝুমু একই ইউনিয়নের আতাইল শিমুল গ্রামের রেলওয়ে কর্মচারী আবেদ আলী প্রামাণিকের ছোট মেয়ে ও দাদপুর গ্রামের রেজাউল করিম রিন্টুর স্ত্রী।

Trulli

নিহতের ভাই আরিফুল ইসলাম আরিফ জানান, ‘প্রায় চার বছর আগে দাদপুর গ্রামের আজমল হোসেনের ছেলে রেজাউল করিম রিন্টুর সঙ্গে জাকিয়া সুলতানা ঝুমুর দুই লাখ টাকা যৌতুক দিয়ে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করে আসছিল শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এমনকি বাবার বাড়ির লোকজনের সঙ্গে কথা বলতে ও বেড়াতে আসতে দিতো না।

শনিবার সকালের দিকে ওই এলাকার স্থানীয় এক প্রতিবেশী মোবাইলে খবর দেয়, আমার বোন ঝুমু বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিটে দগ্ধ হয়েছে। খবর পেয়ে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে শুনতে পাই কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেছেন।’

তিনি জানান, ‘ডাক্তার মৃত ঘোষণা করার পরও শ্বশুরবাড়ির লোকজন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য মরদেহ গাড়িতে তুলছিল। এসময় আমরা হাসপাতালে পৌঁছালে তারা মরদেহ ফেলে রেখে সটকে পড়েন। বোনের গায়ে বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন দেখে আমাদের সন্দেহ হয় তাকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।’

ঈশ্বরদী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শরিফুল ইসলাম জানান, স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় ওই গৃহবধূ বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিটে দগ্ধ হওয়ার পর প্রতিবেশীরা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়। পরে পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পর ঝুমুর মৃত্যু হয়।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকীম বলেন, তদন্তের জন্য ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।