রাজশাহী , বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
হামলার ভয়ে হল ছাড়ছেন রাবি শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কার আন্দোলন: বৃহস্পতিবারের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা রাবির বঙ্গবন্ধু হলে অগ্নিসংযোগ, শহরে খণ্ড খণ্ড বিক্ষোভ লাঠিসোঁটা নিয়ে রাবিতে বিক্ষোভ, বঙ্গবন্ধু হলে ভাঙচুর, বাইকে আগুন রাজশাহীতে ৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন রাবিতে হলে ঢুকে মোটরসাইকেলে আগুন, ব্যাপক ভাঙচুর চট্টগ্রামে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ ঢাকা, চট্টগ্রাম, বগুড়া ও রাজশাহীতে বিজিবি মোতায়েন যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাল বাংলাদেশ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী কোটা আন্দোলনকারীদের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা এবার ঢামেকে আহত আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা হলে ফেরার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান আন্দোলনকারীদের হামলা-সংঘর্ষের পর ঢাবি ক্যাম্পাসে ‘অ্যাকশনে’ যাবে পুলিশ শহীদুল্লাহ হলের সামনে ফের সংঘর্ষ, ৪ ককটেল বিস্ফোরণ চট্টগ্রামে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ ঢাবিতে কোটা আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা, আহত অন্তত ৮০ ঢাবিতে আন্দোলনকারী-ছাত্রলীগ মুখোমুখি, ইট-পাটকেল নিক্ষেপ রাজাকারের নাতিরা সব পাবে, মুক্তিযোদ্ধার নাতিপুতিরা কিছুই পাবে না?

বাবার সাপোর্টেই আজকের সাদমান; স্বস্তিতে বিসিবি

  • আপডেটের সময় : ০৭:৪২:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ নভেম্বর ২০১৮
  • ৯৮ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

ক্রিড়া প্রতিবেদকঃ ‘সাদমান ইসলাম অনিক’ অভিষেক টেস্টেই নিজের নামের সুবিচার করেছেন। দুর্দান্ত ব্যাটিং করে নজর কেড়েছেন সকলের। ঢাকা টেস্টের প্রথম দিনেই তাই সকলের মুখে সাদমানের নাম।

ইনজুরির কারণে দলে নেই ইমরুল কায়েস ও তামিম ইকবাল। এদিকে লিটন ও সৌম্যর ব্যাট অনেক দিন ধরেই হাসছে না। এমন সময় একজন ওপেনার নিয়ে মহা দুশ্চিন্তায় ছিলো টিম ম্যানেজমেন্ট। টিম টাইগারের এই বিরাট খরার মধ্যে সাদমান যেন বৃষ্টি হয়ে এলো। তাতে স্বস্তি ফিরেছে বিসিবিতে।

Trulli
সাবেক ক্রিকেটার মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর কাছে টেস্ট ক্যাপ পরে অভিষিক্ত হন সাদমান।
ছবিঃ এ এফ পি

ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট ম্যাচে সাদমান বুঝিয়ে দিয়েছেন বড় ইনিংস খেলার সামর্থ্য আছে তার। সামনে সুযোগ পেলে এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখার আত্মবিশ্বাসও রয়েছে তার মধ্যে। প্রথম ইনিংসে ব্যাট হাতে ১৯৯ বলে ৬টি ৪ হাঁকিয়ে তিনি ৭৬ রান করেছেন। দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনে এটিই ছিল দলের সর্বোচ্চ ব্যাক্তিগত সংগ্রহ।

টাইগাররা প্রথম দিন শেষে স্কোরবোর্ডে সংগ্রহ ৫ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ২৫৯ রান।অধিনায়ক ও অধিনায়কের সহকারীর দারুণ জুটিতে দিনশেষে ভাল অবস্থানেই রয়েছে বাংলাদেশ, এমনটিই মনে করেন ঢাকা টেস্টের প্রথম দিনের সর্বোচ্চ স্কোরার সাদমান ইসলাম।

ম্যাচের প্রথম দিনের খেলা শেষে দলের প্রতিনিধি হয়ে সাদমানই এলেন সংবাদ সম্মেলনে। মন মাতানো এই ইনিংসে নিজের সেরাটাই দিয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই ভালো লাগবে। অভিষেক টেস্ট, সবারই স্বপ্ন থাকে এটা। চেষ্টা করেছি আমার দলের জন্য নিজের সেরাটা দিতে। হয়ত পুরোটা ভালো করে দিতে পারিনি। তবে যতটুকু হয়েছে, আশা করি দলের জন্য আরও বেশি করতে পারব।’

মাঠে নামার আগে সবাই তাকে বলেও দিয়েছিলেন, স্বভাববিরুদ্ধ ব্যাটিং যাতে না করেন। সাদমান বলেন-

‘ঘরোয়া ক্রিকেটে যেভাবে বল দেখে দেখে খেলি আমি সেভাবেই খেলার চেষ্টা করেছি। সবাই আমাকে বারবার বলছিলেন, তুমি ঘরোয়া ক্রিকেটে যেভাবে খেলো এখানেও সেভাবেই খেলো। ন্যাচারাল শটসই খেলো, অন্যরকম কিছু করতে যেয়ো না।’

অভিষেক টেস্টের অভিষেক ইনিংসেই শতক হাঁকানো হতে পারতো দারুণ এক কীর্তি। ২৪ রানের স্বল্পতায় সেটি আর হয়নি। তবে শতক না পাওয়ায় কোনো হতাশা নেই তরুণ এই ক্রিকেটারের, ‘হতাশা নেই। অভিষেকে সেঞ্চুরির ইচ্ছা তো সবারই থাকে। সেঞ্চুরি না পাওয়ায় ওরকম কোনো হতাশা নেই। দলকে আমার যতটুকু দেওয়ার ছিল আমি সেই অনুযায়ীই ব্যাটিং করেছি। দল যেভাবে চেয়েছে সেভাবে হয়ত আমি শেষ করতে পারিনি তবে আমার মনে হয় দলকে আরও একটু ভালো কিছু দিতে পারতাম।’

আজকের এই সাদমান হওয়ার পিছনে তাঁর বাবা। তাই অভিষেকের সূচনা দারুণ হওয়ায় ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাদমান জানিয়ে গেলেন বাবার অনুপ্রেরণার কথা তিনি বলেন –

“আব্বু আমাকে সব সময় সাপোর্ট করেছেন । আমি যখন অনূর্ধ্ব ১৫, ১৭ খেলতাম তখন আব্বু আমাকে সাথে নিয়ে ক্যাম্পে যেত তখন আমি ছোট ছিলাম। আমি যখন থেকে ভাবতাম আমি ক্রিকেটার হবো তখন থেকেই আব্বু আমাকে খেলার জন্য বলেছে।’

তিনি আরোও বলেন ‘যেহেতু আমি একাডেমি, স্কুল ক্রিকেট থেকে এসেছি তো আমাকে খেলার জন্য অনেক সাপোর্ট করেছে। কিভাবে খেলতে হয়, কিভাবে লাইফ সেট করতে হয় ক্রিকেটারদের এই কথা গুলো আমাকে এখনো বলে। আমি নিজেকে চেষ্টা করি ওই ভাবে রাখার।’

সংবাদ সম্মেলনে সাদমান নার্ভাস থাকলেও দিব্যি জানিয়ে গেলেন দলের পরবর্তী পরিকল্পনার কথা।  সাদমানের দাবি, দিনের শেষভাগে সাকিব আল হাসান ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের না ভাঙা জুটিতে ভর করে ভালো অবস্থানেই রয়েছে বাংলাদেশ। তিনি বলেন-‘বাংলাদেশের অবস্থা আজকে অনেক ভালো আছে। কাল তো আমাদের পুরো দিন বাকি রয়েছে। দলের যেরকম পরিকল্পনা, সেই অনুযায়ী কাল ভালো কিছু হবে ইনশাআল্লাহ্।’

সাকিব ও রিয়াদ সহ দলের বাকি ব্যাটসম্যানরা দলীয় পরিকল্পনা সফল করতে পারবেন বলেই বিশ্বাস অভিষিক্ত এই বাঁহাতি ওপেনারের। তিনি বলেন, ‘টস জিতে আমরা যে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছি, এরপর আমাদের লক্ষ্য ছিল বড় পার্টনারশিপ। শেষদিকে সাকিব ভাই ও রিয়াদ ভাই ভালো পার্টনারশিপ গড়েছে। ম্যাচ তো এখনও পুরোটাই বাকি। হয়ত কাল আরও বড় পার্টনারশিপ হবে আর আমাদের পরিকল্পনা ইনশাআল্লাহ্ সফল হবে।’

দলীয় রান কত হবে বাংলাদেশের? এ নিয়ে কোনো ভাবনা নেই সাদমানের। ব্যাটসম্যানরা যত বেশি সম্ভব রান স্কোরবোর্ডে জড়ো করবেন, এমনটাই প্রত্যাশা তার, তিনি বলেন-

‘কত রান হবে এ নিয়ে কোনো পরিকল্পনা নেই। আমাদের ব্যাটসম্যানরা ইনিংসকে যত বড় করতে পারেন।’

উল্লেখ্য, সাদমান ইসলাম প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৪২ ম্যাচে ৬৭ ইনিংসে ৪৬.৫০ গড়ে ৩০২৩ রান করে। সর্বোচ্চ ১৮৯। তার ব্যাট থেকে আসে ৭টি সেঞ্চুরি। লিস্ট এ’র ৫১ ম্যাচে ৩৭ গড়ে ১৭৩৯ রান। সেঞ্চুরি করেছেন ২টি। সর্বোচ্চ অপরাজিত ১৪৪।

Adds Banner_2024

বাবার সাপোর্টেই আজকের সাদমান; স্বস্তিতে বিসিবি

আপডেটের সময় : ০৭:৪২:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ নভেম্বর ২০১৮

ক্রিড়া প্রতিবেদকঃ ‘সাদমান ইসলাম অনিক’ অভিষেক টেস্টেই নিজের নামের সুবিচার করেছেন। দুর্দান্ত ব্যাটিং করে নজর কেড়েছেন সকলের। ঢাকা টেস্টের প্রথম দিনেই তাই সকলের মুখে সাদমানের নাম।

ইনজুরির কারণে দলে নেই ইমরুল কায়েস ও তামিম ইকবাল। এদিকে লিটন ও সৌম্যর ব্যাট অনেক দিন ধরেই হাসছে না। এমন সময় একজন ওপেনার নিয়ে মহা দুশ্চিন্তায় ছিলো টিম ম্যানেজমেন্ট। টিম টাইগারের এই বিরাট খরার মধ্যে সাদমান যেন বৃষ্টি হয়ে এলো। তাতে স্বস্তি ফিরেছে বিসিবিতে।

Trulli
সাবেক ক্রিকেটার মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর কাছে টেস্ট ক্যাপ পরে অভিষিক্ত হন সাদমান।
ছবিঃ এ এফ পি

ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট ম্যাচে সাদমান বুঝিয়ে দিয়েছেন বড় ইনিংস খেলার সামর্থ্য আছে তার। সামনে সুযোগ পেলে এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখার আত্মবিশ্বাসও রয়েছে তার মধ্যে। প্রথম ইনিংসে ব্যাট হাতে ১৯৯ বলে ৬টি ৪ হাঁকিয়ে তিনি ৭৬ রান করেছেন। দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনে এটিই ছিল দলের সর্বোচ্চ ব্যাক্তিগত সংগ্রহ।

টাইগাররা প্রথম দিন শেষে স্কোরবোর্ডে সংগ্রহ ৫ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ২৫৯ রান।অধিনায়ক ও অধিনায়কের সহকারীর দারুণ জুটিতে দিনশেষে ভাল অবস্থানেই রয়েছে বাংলাদেশ, এমনটিই মনে করেন ঢাকা টেস্টের প্রথম দিনের সর্বোচ্চ স্কোরার সাদমান ইসলাম।

ম্যাচের প্রথম দিনের খেলা শেষে দলের প্রতিনিধি হয়ে সাদমানই এলেন সংবাদ সম্মেলনে। মন মাতানো এই ইনিংসে নিজের সেরাটাই দিয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই ভালো লাগবে। অভিষেক টেস্ট, সবারই স্বপ্ন থাকে এটা। চেষ্টা করেছি আমার দলের জন্য নিজের সেরাটা দিতে। হয়ত পুরোটা ভালো করে দিতে পারিনি। তবে যতটুকু হয়েছে, আশা করি দলের জন্য আরও বেশি করতে পারব।’

মাঠে নামার আগে সবাই তাকে বলেও দিয়েছিলেন, স্বভাববিরুদ্ধ ব্যাটিং যাতে না করেন। সাদমান বলেন-

‘ঘরোয়া ক্রিকেটে যেভাবে বল দেখে দেখে খেলি আমি সেভাবেই খেলার চেষ্টা করেছি। সবাই আমাকে বারবার বলছিলেন, তুমি ঘরোয়া ক্রিকেটে যেভাবে খেলো এখানেও সেভাবেই খেলো। ন্যাচারাল শটসই খেলো, অন্যরকম কিছু করতে যেয়ো না।’

অভিষেক টেস্টের অভিষেক ইনিংসেই শতক হাঁকানো হতে পারতো দারুণ এক কীর্তি। ২৪ রানের স্বল্পতায় সেটি আর হয়নি। তবে শতক না পাওয়ায় কোনো হতাশা নেই তরুণ এই ক্রিকেটারের, ‘হতাশা নেই। অভিষেকে সেঞ্চুরির ইচ্ছা তো সবারই থাকে। সেঞ্চুরি না পাওয়ায় ওরকম কোনো হতাশা নেই। দলকে আমার যতটুকু দেওয়ার ছিল আমি সেই অনুযায়ীই ব্যাটিং করেছি। দল যেভাবে চেয়েছে সেভাবে হয়ত আমি শেষ করতে পারিনি তবে আমার মনে হয় দলকে আরও একটু ভালো কিছু দিতে পারতাম।’

আজকের এই সাদমান হওয়ার পিছনে তাঁর বাবা। তাই অভিষেকের সূচনা দারুণ হওয়ায় ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাদমান জানিয়ে গেলেন বাবার অনুপ্রেরণার কথা তিনি বলেন –

“আব্বু আমাকে সব সময় সাপোর্ট করেছেন । আমি যখন অনূর্ধ্ব ১৫, ১৭ খেলতাম তখন আব্বু আমাকে সাথে নিয়ে ক্যাম্পে যেত তখন আমি ছোট ছিলাম। আমি যখন থেকে ভাবতাম আমি ক্রিকেটার হবো তখন থেকেই আব্বু আমাকে খেলার জন্য বলেছে।’

তিনি আরোও বলেন ‘যেহেতু আমি একাডেমি, স্কুল ক্রিকেট থেকে এসেছি তো আমাকে খেলার জন্য অনেক সাপোর্ট করেছে। কিভাবে খেলতে হয়, কিভাবে লাইফ সেট করতে হয় ক্রিকেটারদের এই কথা গুলো আমাকে এখনো বলে। আমি নিজেকে চেষ্টা করি ওই ভাবে রাখার।’

সংবাদ সম্মেলনে সাদমান নার্ভাস থাকলেও দিব্যি জানিয়ে গেলেন দলের পরবর্তী পরিকল্পনার কথা।  সাদমানের দাবি, দিনের শেষভাগে সাকিব আল হাসান ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের না ভাঙা জুটিতে ভর করে ভালো অবস্থানেই রয়েছে বাংলাদেশ। তিনি বলেন-‘বাংলাদেশের অবস্থা আজকে অনেক ভালো আছে। কাল তো আমাদের পুরো দিন বাকি রয়েছে। দলের যেরকম পরিকল্পনা, সেই অনুযায়ী কাল ভালো কিছু হবে ইনশাআল্লাহ্।’

সাকিব ও রিয়াদ সহ দলের বাকি ব্যাটসম্যানরা দলীয় পরিকল্পনা সফল করতে পারবেন বলেই বিশ্বাস অভিষিক্ত এই বাঁহাতি ওপেনারের। তিনি বলেন, ‘টস জিতে আমরা যে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছি, এরপর আমাদের লক্ষ্য ছিল বড় পার্টনারশিপ। শেষদিকে সাকিব ভাই ও রিয়াদ ভাই ভালো পার্টনারশিপ গড়েছে। ম্যাচ তো এখনও পুরোটাই বাকি। হয়ত কাল আরও বড় পার্টনারশিপ হবে আর আমাদের পরিকল্পনা ইনশাআল্লাহ্ সফল হবে।’

দলীয় রান কত হবে বাংলাদেশের? এ নিয়ে কোনো ভাবনা নেই সাদমানের। ব্যাটসম্যানরা যত বেশি সম্ভব রান স্কোরবোর্ডে জড়ো করবেন, এমনটাই প্রত্যাশা তার, তিনি বলেন-

‘কত রান হবে এ নিয়ে কোনো পরিকল্পনা নেই। আমাদের ব্যাটসম্যানরা ইনিংসকে যত বড় করতে পারেন।’

উল্লেখ্য, সাদমান ইসলাম প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৪২ ম্যাচে ৬৭ ইনিংসে ৪৬.৫০ গড়ে ৩০২৩ রান করে। সর্বোচ্চ ১৮৯। তার ব্যাট থেকে আসে ৭টি সেঞ্চুরি। লিস্ট এ’র ৫১ ম্যাচে ৩৭ গড়ে ১৭৩৯ রান। সেঞ্চুরি করেছেন ২টি। সর্বোচ্চ অপরাজিত ১৪৪।