রাজশাহী , বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
হামলার ভয়ে হল ছাড়ছেন রাবি শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কার আন্দোলন: বৃহস্পতিবারের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা রাবির বঙ্গবন্ধু হলে অগ্নিসংযোগ, শহরে খণ্ড খণ্ড বিক্ষোভ লাঠিসোঁটা নিয়ে রাবিতে বিক্ষোভ, বঙ্গবন্ধু হলে ভাঙচুর, বাইকে আগুন রাজশাহীতে ৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন রাবিতে হলে ঢুকে মোটরসাইকেলে আগুন, ব্যাপক ভাঙচুর চট্টগ্রামে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ ঢাকা, চট্টগ্রাম, বগুড়া ও রাজশাহীতে বিজিবি মোতায়েন যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাল বাংলাদেশ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী কোটা আন্দোলনকারীদের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা এবার ঢামেকে আহত আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা হলে ফেরার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান আন্দোলনকারীদের হামলা-সংঘর্ষের পর ঢাবি ক্যাম্পাসে ‘অ্যাকশনে’ যাবে পুলিশ শহীদুল্লাহ হলের সামনে ফের সংঘর্ষ, ৪ ককটেল বিস্ফোরণ চট্টগ্রামে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ ঢাবিতে কোটা আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা, আহত অন্তত ৮০ ঢাবিতে আন্দোলনকারী-ছাত্রলীগ মুখোমুখি, ইট-পাটকেল নিক্ষেপ রাজাকারের নাতিরা সব পাবে, মুক্তিযোদ্ধার নাতিপুতিরা কিছুই পাবে না?

সেন্সর ছাড়পত্র পেল ‘নোলক’!

  • আপডেটের সময় : ০৫:১৫:০৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯
  • ৪৫ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

বিনোদন ডেস্কঃ একের পর এক বাধার মুখে পড়ছিল শাকিব খান ও ববি অভিনীত নির্মাণের শুরু থেকে আলোচনায় থাকা ছবি ‘নোলক’। এই বাধার কারণ ছিল পরিচালক ও প্রযোজকের দ্বন্দ্ব। অবশেষে কেটে গেল ঘোর অমানিশা। সব বাধা কাটিয়ে আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে ‘নোলক’।

সোমবার ছবিটি বিনা কর্তনে মুক্তির অনুমতি দিয়েছে সেন্সর বোর্ড। তাই আর কোনো বাধা নেই ‘নোলক’ মুক্তিতে।

Trulli

চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সদস্য ও প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু চ্যানেল আই অনলাইনকে ‘নোলক’-এর ছাড়পত্র পাওয়ার খবরটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বললেন, সোমবার আনকাট সেন্সর পেয়েছে ছবি। প্রযোজক চাইলে এখন যে কোনো সময় মুক্তি দিতে পারেন।

২০১৭ সালের ১ ডিসেম্বর রামুজি ফিল্ম সিটিতে ‘নোলক’ ছবির শুটিং শুরু হয়। টানা একমাস শুটিংয়ের পর পুরো ইউনিট দেশে ফেরে। এরপর শুরু হয় পরিচালক রাশেদ রাহা ও প্রযোজক সাকিব সনেটের মধ্যে মনোমানিল্য। প্রযোজক অভিযোগ করেন, রাহা শুটিং বাদে অন্যখাতে অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করেছেন। এছাড়া একাধিক অভিযোগ তুলে রাহাকে পরিচালনা থেকে বাদ দেন।

এর জেরে রাশেদ রাহা পরিচালকের শর্ত ফিরে পেতে পরিচালক সমিতিতে অভিযোগ করেন। সেন্সর আটকাতে তৎপর হন। কিন্তু সব প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে সিদ্ধান্ত আসে রাশেদ রাহা বাদ। প্রযোজক সাকিব সনেটই এ ছবির পরিচালক। তার নামটিই পরিচালক হিসেবে ছবিতেও ব্যবহার করা হবে। এমনকি মুক্তির পর সবখানে পরিচালকের নাম হিসেবে সাকিব সনেটই থাকবে।

সেন্সর সদস্য ও প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু বলেন, পরিচালক-প্রযোজকের দ্বন্দের বিষয়টি সেন্সর বোর্ডের দেখার বিষয় নয়। ছবির প্রযোজক যিনি তিনি লিখিত আবেদনের মাধ্যমে ছবি জমা দেন। সেন্সর বোর্ড থেকে একটা ফর্ম দেয়া হয় সেখানে কারা কারা কাজ করেছেন শিল্পী, মিউজিক ডিরেক্টর থেকে শুরু করে সবকিছু তাদের নাম লিখে দিতে হয়।

কে পরিচালক এটা বাইরে থেকে সমাধানের ব্যাপার। সেন্সর বোর্ডে পরিচালকের আবেদনের কোনো জায়গা নেই। প্রযোজকের আবেদনের প্রেক্ষিতে ছবি সেন্সর হয়। ‘নোলক’-ও তাই হয়েছে-বললেন প্রযোজক নেতা খসরু।

‘নোলক’ দেখে কেমন লেগেছে জানতে চাইলে প্রযোজক খসরু বলেন, ‘নোলক’-এ ভিন্নতা আছে। শাকিব খানের গতানুগতিক ছবি না। ববিকে দেখতেও দারুণ লেগেছে। ভালোই কমেডি আছে দেখলাম। মামলা পরিবারের কতোটা ক্ষতি করতে পারে, বেকার থাকলে মাথায় শয়তানের বাসা বাঁধে এ বিষয়টি আছে। এমন ছোট ছোট খুব ভালো কিছু ট্রিটমেন্ট আছে। এছাড়া দুই পরিবারের সুন্দর একটা গল্পের ছবি ‘নোলক’।

‘নোলক’ প্রযোজনা করেছে ‘বি হ্যাপি এন্টারটেনমেন্ট’। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার সাকিব সনেট চ্যানেল আই অনালাইনকে বলেন, এ ছবির প্রযোজক আমি। এখন পরিচালক হিসেবে আমার নাম থাকবে। ‘নোলক’ মুক্তি দেব ঈদুল ফিতরে এটা পুরোপুরি নিশ্চিত। সেন্সর যেহেতু পেয়ে গেছি, মুক্তি আর কেউ আটকাতে পারবে না।

‘নোলক’-এর সেন্সর পাওয়ার খবরটি জানতেন না রাশেদ রাহা। চ্যানেল আই অনলাইনের কাছে বিষয়টি শোনে নিজের অবস্থান জানিয়ে তিনি বলেন, যদি ‘নোলক’-এর সেন্সর হয়েই থাকে তাহলে এটা নির্মাতাদের জন্য একটা অশনী সংকেত। এ ধরনের ঘটনা এখন অনেকেই করতে সাহস পাবে। পরিচালককে হেয় করার একটা রাস্তা তৈরী করে দেয়া হলো।

‘নোলক’ মুক্তির জন্য কখনোই বাধা হয়ে দাঁড়াননি দাবী করে রাশেদ রাহা আরো বলেন, আমি কখনোই চাইনি ‘নোলক’ প্রেক্ষাগৃহে না আসুক। যদি চাইতাম তাহলে মামলা মোকদ্দমার আশ্রয় নিতাম। আমিও চাই ‘নোলক’ দর্শকের সামনে আসুক। শুধু আমার চাওয়া ছিলো, এই ছবির নব্বই ভাগ কাজ আমি করেছি, সেই ন্যায্যতা যেন বজায় থাকে।

শাকিব-ববি ছাড়াও ‘নোলক’ ছবিতে অভিনয় করছেন ওমর সানি, মৌসুমি, শহিদুল আলম সাচ্চু, রেবেকা, রজতাভ দত্ত, অনুভব মাহাবুব প্রমুখ। ছবির কাহিনি, সংলাপ ও চিত্রনাট্য করেছেন ফেরারি ফরহাদ।

Adds Banner_2024

সেন্সর ছাড়পত্র পেল ‘নোলক’!

আপডেটের সময় : ০৫:১৫:০৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯

বিনোদন ডেস্কঃ একের পর এক বাধার মুখে পড়ছিল শাকিব খান ও ববি অভিনীত নির্মাণের শুরু থেকে আলোচনায় থাকা ছবি ‘নোলক’। এই বাধার কারণ ছিল পরিচালক ও প্রযোজকের দ্বন্দ্ব। অবশেষে কেটে গেল ঘোর অমানিশা। সব বাধা কাটিয়ে আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে ‘নোলক’।

সোমবার ছবিটি বিনা কর্তনে মুক্তির অনুমতি দিয়েছে সেন্সর বোর্ড। তাই আর কোনো বাধা নেই ‘নোলক’ মুক্তিতে।

Trulli

চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সদস্য ও প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু চ্যানেল আই অনলাইনকে ‘নোলক’-এর ছাড়পত্র পাওয়ার খবরটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বললেন, সোমবার আনকাট সেন্সর পেয়েছে ছবি। প্রযোজক চাইলে এখন যে কোনো সময় মুক্তি দিতে পারেন।

২০১৭ সালের ১ ডিসেম্বর রামুজি ফিল্ম সিটিতে ‘নোলক’ ছবির শুটিং শুরু হয়। টানা একমাস শুটিংয়ের পর পুরো ইউনিট দেশে ফেরে। এরপর শুরু হয় পরিচালক রাশেদ রাহা ও প্রযোজক সাকিব সনেটের মধ্যে মনোমানিল্য। প্রযোজক অভিযোগ করেন, রাহা শুটিং বাদে অন্যখাতে অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করেছেন। এছাড়া একাধিক অভিযোগ তুলে রাহাকে পরিচালনা থেকে বাদ দেন।

এর জেরে রাশেদ রাহা পরিচালকের শর্ত ফিরে পেতে পরিচালক সমিতিতে অভিযোগ করেন। সেন্সর আটকাতে তৎপর হন। কিন্তু সব প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে সিদ্ধান্ত আসে রাশেদ রাহা বাদ। প্রযোজক সাকিব সনেটই এ ছবির পরিচালক। তার নামটিই পরিচালক হিসেবে ছবিতেও ব্যবহার করা হবে। এমনকি মুক্তির পর সবখানে পরিচালকের নাম হিসেবে সাকিব সনেটই থাকবে।

সেন্সর সদস্য ও প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু বলেন, পরিচালক-প্রযোজকের দ্বন্দের বিষয়টি সেন্সর বোর্ডের দেখার বিষয় নয়। ছবির প্রযোজক যিনি তিনি লিখিত আবেদনের মাধ্যমে ছবি জমা দেন। সেন্সর বোর্ড থেকে একটা ফর্ম দেয়া হয় সেখানে কারা কারা কাজ করেছেন শিল্পী, মিউজিক ডিরেক্টর থেকে শুরু করে সবকিছু তাদের নাম লিখে দিতে হয়।

কে পরিচালক এটা বাইরে থেকে সমাধানের ব্যাপার। সেন্সর বোর্ডে পরিচালকের আবেদনের কোনো জায়গা নেই। প্রযোজকের আবেদনের প্রেক্ষিতে ছবি সেন্সর হয়। ‘নোলক’-ও তাই হয়েছে-বললেন প্রযোজক নেতা খসরু।

‘নোলক’ দেখে কেমন লেগেছে জানতে চাইলে প্রযোজক খসরু বলেন, ‘নোলক’-এ ভিন্নতা আছে। শাকিব খানের গতানুগতিক ছবি না। ববিকে দেখতেও দারুণ লেগেছে। ভালোই কমেডি আছে দেখলাম। মামলা পরিবারের কতোটা ক্ষতি করতে পারে, বেকার থাকলে মাথায় শয়তানের বাসা বাঁধে এ বিষয়টি আছে। এমন ছোট ছোট খুব ভালো কিছু ট্রিটমেন্ট আছে। এছাড়া দুই পরিবারের সুন্দর একটা গল্পের ছবি ‘নোলক’।

‘নোলক’ প্রযোজনা করেছে ‘বি হ্যাপি এন্টারটেনমেন্ট’। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার সাকিব সনেট চ্যানেল আই অনালাইনকে বলেন, এ ছবির প্রযোজক আমি। এখন পরিচালক হিসেবে আমার নাম থাকবে। ‘নোলক’ মুক্তি দেব ঈদুল ফিতরে এটা পুরোপুরি নিশ্চিত। সেন্সর যেহেতু পেয়ে গেছি, মুক্তি আর কেউ আটকাতে পারবে না।

‘নোলক’-এর সেন্সর পাওয়ার খবরটি জানতেন না রাশেদ রাহা। চ্যানেল আই অনলাইনের কাছে বিষয়টি শোনে নিজের অবস্থান জানিয়ে তিনি বলেন, যদি ‘নোলক’-এর সেন্সর হয়েই থাকে তাহলে এটা নির্মাতাদের জন্য একটা অশনী সংকেত। এ ধরনের ঘটনা এখন অনেকেই করতে সাহস পাবে। পরিচালককে হেয় করার একটা রাস্তা তৈরী করে দেয়া হলো।

‘নোলক’ মুক্তির জন্য কখনোই বাধা হয়ে দাঁড়াননি দাবী করে রাশেদ রাহা আরো বলেন, আমি কখনোই চাইনি ‘নোলক’ প্রেক্ষাগৃহে না আসুক। যদি চাইতাম তাহলে মামলা মোকদ্দমার আশ্রয় নিতাম। আমিও চাই ‘নোলক’ দর্শকের সামনে আসুক। শুধু আমার চাওয়া ছিলো, এই ছবির নব্বই ভাগ কাজ আমি করেছি, সেই ন্যায্যতা যেন বজায় থাকে।

শাকিব-ববি ছাড়াও ‘নোলক’ ছবিতে অভিনয় করছেন ওমর সানি, মৌসুমি, শহিদুল আলম সাচ্চু, রেবেকা, রজতাভ দত্ত, অনুভব মাহাবুব প্রমুখ। ছবির কাহিনি, সংলাপ ও চিত্রনাট্য করেছেন ফেরারি ফরহাদ।