রাজশাহী , বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
আগামীকাল সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের প্রাণহানির প্রতিটি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত হবে : প্রধানমন্ত্রী হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী অহেতুক কতগুলো মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী আন্দোলনকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ সহযোগিতা করেছে: প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী দাবি না মানায় রাবি উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন শিক্ষার্থীরা ছাত্রশিবির-ছাত্রদল এবং বহিরাগতরা ঢাবির হলে তাণ্ডব চালিয়েছে: মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী হল ছাড়বেন না রাবি শিক্ষার্থীরা, তিন দাবিতে বিক্ষোভ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা ঢাবির সব হল সাধারণ শিক্ষার্থীদের দখলে এবার সিটি কর্পোরেশন এলাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা হামলার ভয়ে হল ছাড়ছেন রাবি শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কার আন্দোলন: বৃহস্পতিবারের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা রাবির বঙ্গবন্ধু হলে অগ্নিসংযোগ, শহরে খণ্ড খণ্ড বিক্ষোভ লাঠিসোঁটা নিয়ে রাবিতে বিক্ষোভ, বঙ্গবন্ধু হলে ভাঙচুর, বাইকে আগুন রাজশাহীতে ৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন রাবিতে হলে ঢুকে মোটরসাইকেলে আগুন, ব্যাপক ভাঙচুর চট্টগ্রামে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ

সংসার সুখী রাখতে যেসব করতে হবে।।

  • আপডেটের সময় : ০৬:১৬:৪৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৯
  • ৬৮ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ সংসার সুখী রাখতে যেমন কিছু বিষয় খেয়াল রাখাটা জরুরী ঠিক তেমনি সংসারের অশান্তি ঝেড়ে ফেলতেও কিছু বিষয়ের দিক জোর দিলে অশান্তিকে বিদায় জানানো সম্ভব। আমরা চাইলেই পারি সংসারকে সুন্দর করে রাখতে। আর আমাদের ছোট ছোট কাজ অথবা ত্যাগ দিতে পারে সুন্দর একটি স্বর্গীয় সুখের সংসার উপহার দিতে। দেখে নিন বিষয়গুলো।

সব মানুষের ভেতরেই কোনো না কোনো অসম্পূর্ণতা থাকে। তাই সঙ্গীর কিছু বিষয় আপনার ভালো নাই লাগতে পারে। সব বদলাতে যাবেন না যেন! এতে ভিতরে ভিতরে সমস্যা তৈরি হয়। তিনিও অস্বস্তিতে থাকেন। তাই যেসব ভুলত্রুটি একেবারেই অমার্জনীয় বা ক্ষতিকর নয়, সেসব ছাড় দিন।

Trulli

সম্পর্কে যতই বৈরী সময় পার করুন না কেন, কথা বন্ধ করবেন না একেবারেই। কথা বন্ধ করে দেওয়ার প্রভাব ঝগড়ার চেয়েও মারাত্মক। ঝগড়া মেটাতে শান্ত হোন। ইগো ঝাড়ুন। কে আগে কথা বললেন, কে পরে এ সব না ভেবে নিজেই যান। সমস্যাটা মেটাতে আলোচনা করুন। কার ভুল সে হিসাব না করে নিজেই সরি বলে দিন। এই এক শব্দে অনেক সমস্যাই মিটে যায়।

পরস্পরের প্রতি অভিযোগ করা অনেকেরই অভ্যাস। সম্পর্কে মতের অমিল, মনের অমিল হতেই পারে। কিন্তু সেই অমিলকে কী ভাবে সামলাচ্ছেন আপনি, সেটাই সম্পর্ক কেমন থাকবে তার চাবিকাঠি। সঙ্গীর কোনো স্বভাব বা আচরণ যদি পছন্দ না হয়, তাহলে সবসময় অভিযোগ করবেন না। বরং সরাসরি কথা বলুন তার সঙ্গে।

শারীরিকভাবে দূরত্ব বাড়ানো যাবে না। ঝগড়া হলেও পরস্পরের কাছাকাছি থাকুন। অনেক সমস্যারই সমাধান হয় এতে। আসলে কাদা ছোড়াছুড়ি ও দোষারোপের তিরে ফালা ফালা হয় সম্পর্ক। তাই শারীরিকভাবে দূরে সরে গেলে সহজ হওয়ার পথে আরও বাধা আসে।এভাবে নিজেদের অশান্তিকে বাড়িয়ে তুলবেন না এভাবে।

সংসারে শান্তি বজায় রাখতে হলে কিছু স্বার্থত্যাগ করতেই হয়। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুরু করে ধূমপান এসব অভ্যাসে রাশ টানুন। প্রিয় মানুষটির পছন্দ-অপছন্দের দামও দিতে শিখুন।

Adds Banner_2024
Adds Banner_2024

রাবিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযান, ৪ ঘণ্টা পর অবমুক্ত উপাচার্য

Adds Banner_2024

সংসার সুখী রাখতে যেসব করতে হবে।।

আপডেটের সময় : ০৬:১৬:৪৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৯

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ সংসার সুখী রাখতে যেমন কিছু বিষয় খেয়াল রাখাটা জরুরী ঠিক তেমনি সংসারের অশান্তি ঝেড়ে ফেলতেও কিছু বিষয়ের দিক জোর দিলে অশান্তিকে বিদায় জানানো সম্ভব। আমরা চাইলেই পারি সংসারকে সুন্দর করে রাখতে। আর আমাদের ছোট ছোট কাজ অথবা ত্যাগ দিতে পারে সুন্দর একটি স্বর্গীয় সুখের সংসার উপহার দিতে। দেখে নিন বিষয়গুলো।

সব মানুষের ভেতরেই কোনো না কোনো অসম্পূর্ণতা থাকে। তাই সঙ্গীর কিছু বিষয় আপনার ভালো নাই লাগতে পারে। সব বদলাতে যাবেন না যেন! এতে ভিতরে ভিতরে সমস্যা তৈরি হয়। তিনিও অস্বস্তিতে থাকেন। তাই যেসব ভুলত্রুটি একেবারেই অমার্জনীয় বা ক্ষতিকর নয়, সেসব ছাড় দিন।

Trulli

সম্পর্কে যতই বৈরী সময় পার করুন না কেন, কথা বন্ধ করবেন না একেবারেই। কথা বন্ধ করে দেওয়ার প্রভাব ঝগড়ার চেয়েও মারাত্মক। ঝগড়া মেটাতে শান্ত হোন। ইগো ঝাড়ুন। কে আগে কথা বললেন, কে পরে এ সব না ভেবে নিজেই যান। সমস্যাটা মেটাতে আলোচনা করুন। কার ভুল সে হিসাব না করে নিজেই সরি বলে দিন। এই এক শব্দে অনেক সমস্যাই মিটে যায়।

পরস্পরের প্রতি অভিযোগ করা অনেকেরই অভ্যাস। সম্পর্কে মতের অমিল, মনের অমিল হতেই পারে। কিন্তু সেই অমিলকে কী ভাবে সামলাচ্ছেন আপনি, সেটাই সম্পর্ক কেমন থাকবে তার চাবিকাঠি। সঙ্গীর কোনো স্বভাব বা আচরণ যদি পছন্দ না হয়, তাহলে সবসময় অভিযোগ করবেন না। বরং সরাসরি কথা বলুন তার সঙ্গে।

শারীরিকভাবে দূরত্ব বাড়ানো যাবে না। ঝগড়া হলেও পরস্পরের কাছাকাছি থাকুন। অনেক সমস্যারই সমাধান হয় এতে। আসলে কাদা ছোড়াছুড়ি ও দোষারোপের তিরে ফালা ফালা হয় সম্পর্ক। তাই শারীরিকভাবে দূরে সরে গেলে সহজ হওয়ার পথে আরও বাধা আসে।এভাবে নিজেদের অশান্তিকে বাড়িয়ে তুলবেন না এভাবে।

সংসারে শান্তি বজায় রাখতে হলে কিছু স্বার্থত্যাগ করতেই হয়। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুরু করে ধূমপান এসব অভ্যাসে রাশ টানুন। প্রিয় মানুষটির পছন্দ-অপছন্দের দামও দিতে শিখুন।