রাজশাহী , বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
হামলার ভয়ে হল ছাড়ছেন রাবি শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কার আন্দোলন: বৃহস্পতিবারের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা রাবির বঙ্গবন্ধু হলে অগ্নিসংযোগ, শহরে খণ্ড খণ্ড বিক্ষোভ লাঠিসোঁটা নিয়ে রাবিতে বিক্ষোভ, বঙ্গবন্ধু হলে ভাঙচুর, বাইকে আগুন রাজশাহীতে ৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন রাবিতে হলে ঢুকে মোটরসাইকেলে আগুন, ব্যাপক ভাঙচুর চট্টগ্রামে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ ঢাকা, চট্টগ্রাম, বগুড়া ও রাজশাহীতে বিজিবি মোতায়েন যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাল বাংলাদেশ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী কোটা আন্দোলনকারীদের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা এবার ঢামেকে আহত আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা হলে ফেরার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান আন্দোলনকারীদের হামলা-সংঘর্ষের পর ঢাবি ক্যাম্পাসে ‘অ্যাকশনে’ যাবে পুলিশ শহীদুল্লাহ হলের সামনে ফের সংঘর্ষ, ৪ ককটেল বিস্ফোরণ চট্টগ্রামে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ ঢাবিতে কোটা আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা, আহত অন্তত ৮০ ঢাবিতে আন্দোলনকারী-ছাত্রলীগ মুখোমুখি, ইট-পাটকেল নিক্ষেপ রাজাকারের নাতিরা সব পাবে, মুক্তিযোদ্ধার নাতিপুতিরা কিছুই পাবে না?

সুবীর নন্দীর শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত

  • আপডেটের সময় : ০৮:০৩:১১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০১৯
  • ৫৩ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

বিনোদন ডেস্কঃ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে গুরুত্ব অসুস্থ অবস্থায় রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচে) চিকিৎসাধীন আছেন উপমহাদেশের প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী সুবীর নন্দী। বর্তমানে তাকে হাসপাতালটির নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। চিকিৎসক তাকে ৭২ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে রেখেছেন, যা বুধবার (১৭ এপ্রিল) রাতে শেষ হচ্ছে। তার শারীরিক অবস্থা এখনো আগের মতোই আছে।

পর্যবেক্ষণ শেষে বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) সকালে চিকিৎসকরা বোর্ড মিটিং করে সুবীর নন্দীর সার্বিক অবস্থা এবং তার পরবর্তী চিকিৎসার কথা জানাবেন। সুবীর নন্দীর ঘনিষ্ঠ আত্মীয় তৃপ্তি কর সার্বক্ষণিক তার সঙ্গে রয়েছেন। আর তিনিই বাংলানিউজকে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

Trulli

বুধবার দুপুরে তৃপ্তি কর বলেন, ‘ওনার (সুবীর নন্দী) শারীরিক অবস্থা এখনো আগের মতো। শরীরের তাপমাত্রা ঠিক রাখতে ও হার্টের উপর যাতে চাপ কম পড়ে তাই তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। এছাড়া কিডনির সমস্যার কারণে তার ডায়ালাইসিসও করা হয়েছে। আজ রাতে ৭২ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণ শেষ হচ্ছে। আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) সকালে চিকিৎসকরা পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানাবেন।’

গত ১২ এপ্রিল একটি পারিবারিক অনুষ্ঠানে অংশ নিতে ঢাকা থেকে সিলেট যান সুবীর নন্দী। সেখান যাওয়ার পর একুশে পদক প্রাপ্ত এই শিল্পী কিছুটা অস্বস্তি বোধ করতে থাকেন। এরপর রোববার (১৪ এপ্রিল) বিকেলে সিলেট থেকে ট্রেনে ঢাকায় ফেরার পথে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। ওইদিন রাতেই হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সুবীর নন্দীর হার্ট অ্যাটাক করলে তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়।

৬৬ বছর বয়সী সুবীর নন্দী দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্ট, হার্ট ও কিডনি সমস্যাসহ বার্ধক্যজনিত নানা ধরনের রোগে ভুগছেন। ছাড়া এর আগে তার ওপেন হার্ট সার্জারিও হয়েছে।

সঙ্গীত অঙ্গনে চার দশকের ক্যারিয়ারে আড়াই হাজারের বেশি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন গুণী এই শিল্পী। সঙ্গীতে অবদানের জন্য এ বছরই তাকে একুশে পদকে ভূষিত করে সরকার।

১৯৫৩ সালের ১৯ নভেম্বর হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার নন্দীপাড়ায় সুবীর নন্দীর জন্ম।

সুবীর নন্দীর কণ্ঠে জনপ্রিয় গানের মধ্যে উল্লেখযোগ্য- ‘দিন যায় কথা থাকে’, আমার এ দুটি চোখ পাথর তো নয়’, ‘পৃথিবীতে প্রেম বলে কিছু নেই’, ‘হাজার মনের কাছে প্রশ্ন রেখে’, ‘বন্ধু তোর বরাত নিয়া’, ‘বন্ধু হতে চেয়ে তোমার’, ‘কতো যে তোমাকে বেসেছি ভালো’, ‘পাহাড়ের কান্না দেখে’, ‘আমি বৃষ্টির কাছ থেকে কাঁদতে শিখেছি’, ‘কেন ভালোবাসা হারিয়ে যায়’ এবং ‘একটা ছিল সোনার কন্যা’ ইত্যাদি।

‘প্রেম বলে কিছু নেই’, ‘ভালোবাসা কখনো মরে না’, ‘সুরের ভুবনে’, ‘গানের সুরে আমায় পাবে’ প্রভৃতি সুবীর নন্দীর একক অ্যালবাম।

Adds Banner_2024

সুবীর নন্দীর শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত

আপডেটের সময় : ০৮:০৩:১১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০১৯

বিনোদন ডেস্কঃ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে গুরুত্ব অসুস্থ অবস্থায় রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচে) চিকিৎসাধীন আছেন উপমহাদেশের প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী সুবীর নন্দী। বর্তমানে তাকে হাসপাতালটির নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। চিকিৎসক তাকে ৭২ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে রেখেছেন, যা বুধবার (১৭ এপ্রিল) রাতে শেষ হচ্ছে। তার শারীরিক অবস্থা এখনো আগের মতোই আছে।

পর্যবেক্ষণ শেষে বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) সকালে চিকিৎসকরা বোর্ড মিটিং করে সুবীর নন্দীর সার্বিক অবস্থা এবং তার পরবর্তী চিকিৎসার কথা জানাবেন। সুবীর নন্দীর ঘনিষ্ঠ আত্মীয় তৃপ্তি কর সার্বক্ষণিক তার সঙ্গে রয়েছেন। আর তিনিই বাংলানিউজকে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

Trulli

বুধবার দুপুরে তৃপ্তি কর বলেন, ‘ওনার (সুবীর নন্দী) শারীরিক অবস্থা এখনো আগের মতো। শরীরের তাপমাত্রা ঠিক রাখতে ও হার্টের উপর যাতে চাপ কম পড়ে তাই তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। এছাড়া কিডনির সমস্যার কারণে তার ডায়ালাইসিসও করা হয়েছে। আজ রাতে ৭২ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণ শেষ হচ্ছে। আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) সকালে চিকিৎসকরা পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানাবেন।’

গত ১২ এপ্রিল একটি পারিবারিক অনুষ্ঠানে অংশ নিতে ঢাকা থেকে সিলেট যান সুবীর নন্দী। সেখান যাওয়ার পর একুশে পদক প্রাপ্ত এই শিল্পী কিছুটা অস্বস্তি বোধ করতে থাকেন। এরপর রোববার (১৪ এপ্রিল) বিকেলে সিলেট থেকে ট্রেনে ঢাকায় ফেরার পথে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। ওইদিন রাতেই হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সুবীর নন্দীর হার্ট অ্যাটাক করলে তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়।

৬৬ বছর বয়সী সুবীর নন্দী দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্ট, হার্ট ও কিডনি সমস্যাসহ বার্ধক্যজনিত নানা ধরনের রোগে ভুগছেন। ছাড়া এর আগে তার ওপেন হার্ট সার্জারিও হয়েছে।

সঙ্গীত অঙ্গনে চার দশকের ক্যারিয়ারে আড়াই হাজারের বেশি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন গুণী এই শিল্পী। সঙ্গীতে অবদানের জন্য এ বছরই তাকে একুশে পদকে ভূষিত করে সরকার।

১৯৫৩ সালের ১৯ নভেম্বর হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার নন্দীপাড়ায় সুবীর নন্দীর জন্ম।

সুবীর নন্দীর কণ্ঠে জনপ্রিয় গানের মধ্যে উল্লেখযোগ্য- ‘দিন যায় কথা থাকে’, আমার এ দুটি চোখ পাথর তো নয়’, ‘পৃথিবীতে প্রেম বলে কিছু নেই’, ‘হাজার মনের কাছে প্রশ্ন রেখে’, ‘বন্ধু তোর বরাত নিয়া’, ‘বন্ধু হতে চেয়ে তোমার’, ‘কতো যে তোমাকে বেসেছি ভালো’, ‘পাহাড়ের কান্না দেখে’, ‘আমি বৃষ্টির কাছ থেকে কাঁদতে শিখেছি’, ‘কেন ভালোবাসা হারিয়ে যায়’ এবং ‘একটা ছিল সোনার কন্যা’ ইত্যাদি।

‘প্রেম বলে কিছু নেই’, ‘ভালোবাসা কখনো মরে না’, ‘সুরের ভুবনে’, ‘গানের সুরে আমায় পাবে’ প্রভৃতি সুবীর নন্দীর একক অ্যালবাম।