রাজশাহী , রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
কোটা নিয়ে আপিল শুনানি রোববার এবার বিটিভির মূল ভবনে আগুন ২১, ২৩ ও ২৫ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত অবশেষে আটকে পড়া ৬০ পুলিশকে উদ্ধার করল র‍্যাবের হেলিকপ্টার উত্তরা-আজমপুরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত ৪ রামপুরা-বাড্ডায় ব্যাপক সংঘর্ষ, শিক্ষার্থী-পুলিশসহ আহত দুই শতাধিক আওয়ামী লীগের শক্ত অবস্থানে রাজশাহীতে দাঁড়াতেই পারেনি কোটা আন্দোলনকারীরা সরকার কোটা সংস্কারের পক্ষে, চাইলে আজই আলোচনা তারা যখনই বসবে আমরা রাজি আছি : আইনমন্ত্রী আন্দোলন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে কথা বলবেন আইনমন্ত্রী রাজশাহীতে শিক্ষার্থীদের সাথে সংঘর্ষ, পুলিশের গাড়ি ভাংচুর, আহত ২০ রাজশাহীতে ককটেল বিস্ফোরণে ছাত্রলীগ নেতা সবুজ আহত বাড্ডায় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া আজ সারা দেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ কর্মসূচি ঢাকাসহ সারা দেশে ২২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন আগামীকাল সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের প্রাণহানির প্রতিটি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত হবে : প্রধানমন্ত্রী হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী অহেতুক কতগুলো মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী আন্দোলনকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ সহযোগিতা করেছে: প্রধানমন্ত্রী

‘ভারত সরকার গড়বে কে, তৃণমূল কংগ্রেস আবার কে!’

  • আপডেটের সময় : ০৪:৫২:০১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০১৯
  • ৪৪ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ফেডারেল ফ্রন্ট গড়ার কথা বলার সময় থেকেই তাঁর তত্ত্ব ছিল, যেখানে যে দল শক্তিশালী, সেখানে সেই দলকে ভোট দিন। মঙ্গলবার দুই দিনাজপুরের দুই সভা থেকে সে কথাই আর এক বার মনে করিয়ে দিয়ে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ব্যাখ্যা, ‘‘কংগ্রেস একক শক্তিতে এ বারে ক্ষমতায় আসবে না। তাই এই রাজ্যে কংগ্রেসকে দিয়ে ভোট নষ্ট করবেন না।’’ পরিবর্তে তৃণমূলকে ৪২টি আসনেই জেতানোর দাবি তুলে তিনি বলেন, ‘‘এ বারে উত্তরপ্রদেশ এবং বাংলা মিলে সরকার গড়বে।’’ এরই পাশাপাশি তিনি বলেন, ‘‘কেরলে সব আসনই কংগ্রেস এবং সিপিএম নিয়ে যাবে।’’

পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তরপ্রদেশ মিলে মোট ১২২টি লোকসভা আসন রয়েছে। উত্তরপ্রদেশে এসপি এবং বিএসপি একজোট হয়ে লড়ছে। তৃণমূলের অন্দরের হিসেব, বিভিন্ন নির্বাচনী সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, উত্তরপ্রদেশে মায়াবতী-অখিলেশ জোট ভাল ফল করতে পারে। একই ভাবে পশ্চিমবঙ্গে অন্যদের থেকে তারা কয়েক কদম এগিয়ে বলে মনে করছে তৃণমূল। যেখানে যে শক্তিশালী, সেখানে তার একক ভাবে লড়াইয়ের তত্ত্ব মাথায় রেখেই যে পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল একা লড়ছে, সেটা এ দিন তাঁর কথায় আবার স্পষ্ট হয়ে যায়। কিন্তু তাঁরা যে একই সঙ্গে অন্য বিরোধী আঞ্চলিক দলগুলির সঙ্গে জোটবদ্ধও, সেটাও তিনি বুঝিয়ে দেন।

Trulli

পশ্চিমবঙ্গ এবং উত্তরপ্রদেশ মিলে সরকার গড়বে— এই কথা বলার সঙ্গেই মমতা জানিয়ে দেন, কর্নাটকে দেবগৌড়ার দল, অন্ধ্রপ্রদেশের চন্দ্রবাবু নায়ডুর দল এবং কেরলে সিপিএম ও কংগ্রেস ভাল ফল করবে। এবং এই সব রাজ্যেই বিজেপির ফল খারাপ হবে। কিন্তু এত কিছুর পরেও কংগ্রেস একার ক্ষমতায় সরকার গড়তে পারবে না। বরং মমতা বুঝিয়ে দিলেন, কংগ্রেস একক ভাবে গরিষ্ঠতা না পেলে তাঁরাই হবেন চালিকা শক্তি।

মমতা এ দিন বলেন, ‘‘দেশ বাঁচাতে একমাত্র রাস্তা তৃণমূল।’’ স্লোগান তোলেন, ‘‘ভারত সরকার গড়বে কে, তৃণমূল কংগ্রেস আবার কে!’’ এর পরে তিনি বলেন, ‘‘সব সম্প্রদায়ের সব মানুষ একজোট হয়ে তৃণমূলকে ভোট দিন।’’
আনন্দবাজার

Adds Banner_2024

‘ভারত সরকার গড়বে কে, তৃণমূল কংগ্রেস আবার কে!’

আপডেটের সময় : ০৪:৫২:০১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ফেডারেল ফ্রন্ট গড়ার কথা বলার সময় থেকেই তাঁর তত্ত্ব ছিল, যেখানে যে দল শক্তিশালী, সেখানে সেই দলকে ভোট দিন। মঙ্গলবার দুই দিনাজপুরের দুই সভা থেকে সে কথাই আর এক বার মনে করিয়ে দিয়ে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ব্যাখ্যা, ‘‘কংগ্রেস একক শক্তিতে এ বারে ক্ষমতায় আসবে না। তাই এই রাজ্যে কংগ্রেসকে দিয়ে ভোট নষ্ট করবেন না।’’ পরিবর্তে তৃণমূলকে ৪২টি আসনেই জেতানোর দাবি তুলে তিনি বলেন, ‘‘এ বারে উত্তরপ্রদেশ এবং বাংলা মিলে সরকার গড়বে।’’ এরই পাশাপাশি তিনি বলেন, ‘‘কেরলে সব আসনই কংগ্রেস এবং সিপিএম নিয়ে যাবে।’’

পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তরপ্রদেশ মিলে মোট ১২২টি লোকসভা আসন রয়েছে। উত্তরপ্রদেশে এসপি এবং বিএসপি একজোট হয়ে লড়ছে। তৃণমূলের অন্দরের হিসেব, বিভিন্ন নির্বাচনী সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, উত্তরপ্রদেশে মায়াবতী-অখিলেশ জোট ভাল ফল করতে পারে। একই ভাবে পশ্চিমবঙ্গে অন্যদের থেকে তারা কয়েক কদম এগিয়ে বলে মনে করছে তৃণমূল। যেখানে যে শক্তিশালী, সেখানে তার একক ভাবে লড়াইয়ের তত্ত্ব মাথায় রেখেই যে পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল একা লড়ছে, সেটা এ দিন তাঁর কথায় আবার স্পষ্ট হয়ে যায়। কিন্তু তাঁরা যে একই সঙ্গে অন্য বিরোধী আঞ্চলিক দলগুলির সঙ্গে জোটবদ্ধও, সেটাও তিনি বুঝিয়ে দেন।

Trulli

পশ্চিমবঙ্গ এবং উত্তরপ্রদেশ মিলে সরকার গড়বে— এই কথা বলার সঙ্গেই মমতা জানিয়ে দেন, কর্নাটকে দেবগৌড়ার দল, অন্ধ্রপ্রদেশের চন্দ্রবাবু নায়ডুর দল এবং কেরলে সিপিএম ও কংগ্রেস ভাল ফল করবে। এবং এই সব রাজ্যেই বিজেপির ফল খারাপ হবে। কিন্তু এত কিছুর পরেও কংগ্রেস একার ক্ষমতায় সরকার গড়তে পারবে না। বরং মমতা বুঝিয়ে দিলেন, কংগ্রেস একক ভাবে গরিষ্ঠতা না পেলে তাঁরাই হবেন চালিকা শক্তি।

মমতা এ দিন বলেন, ‘‘দেশ বাঁচাতে একমাত্র রাস্তা তৃণমূল।’’ স্লোগান তোলেন, ‘‘ভারত সরকার গড়বে কে, তৃণমূল কংগ্রেস আবার কে!’’ এর পরে তিনি বলেন, ‘‘সব সম্প্রদায়ের সব মানুষ একজোট হয়ে তৃণমূলকে ভোট দিন।’’
আনন্দবাজার