রাজশাহী , বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী অহেতুক কতগুলো মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী আন্দোলনকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ সহায়তা করে: প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী দাবি না মানায় রাবি উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন শিক্ষার্থীরা ছাত্রশিবির-ছাত্রদল এবং বহিরাগতরা ঢাবির হলে তাণ্ডব চালিয়েছে: মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী হল ছাড়বেন না রাবি শিক্ষার্থীরা, তিন দাবিতে বিক্ষোভ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা ঢাবির সব হল সাধারণ শিক্ষার্থীদের দখলে এবার সিটি কর্পোরেশন এলাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা হামলার ভয়ে হল ছাড়ছেন রাবি শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কার আন্দোলন: বৃহস্পতিবারের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা রাবির বঙ্গবন্ধু হলে অগ্নিসংযোগ, শহরে খণ্ড খণ্ড বিক্ষোভ লাঠিসোঁটা নিয়ে রাবিতে বিক্ষোভ, বঙ্গবন্ধু হলে ভাঙচুর, বাইকে আগুন রাজশাহীতে ৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন রাবিতে হলে ঢুকে মোটরসাইকেলে আগুন, ব্যাপক ভাঙচুর চট্টগ্রামে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ ঢাকা, চট্টগ্রাম, বগুড়া ও রাজশাহীতে বিজিবি মোতায়েন যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাল বাংলাদেশ

এই শহরে থাকলে প্রতি মাসে বাড়ি ভাড়া বাবদ দেয়া হবে ৫০০ ডলার

  • আপডেটের সময় : ০৪:৩৫:৪৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ নভেম্বর ২০১৮
  • ১১১ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বাড়ি থেকে কাজ করাটাই এখন মার্কিন মুলুকে নয়া ট্রেন্ড। সেই ট্রেন্ডের সঙ্গে তাল মিলিয়েই আমেরিকায় এখন গড়ে উঠছে ছোট ছোট শহর। আর এইসব শহরে বাস করার জন্য নাগরিকদের আকৃষ্ট করতে দেয়া হচ্ছে নানান অফার। এমনই এক শহর গড়ে উঠেছে ওকলাহোমা প্রদেশের টিউলসা কাউন্টিতে। এই শহরে থাকতে রাজি হলে আর পাঁচটা সুযোগ সুবিধার পাশাপাশি মিলবে ডলারও।

আপনার কাজের ধরন যদি হয় ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’, তাহলেই মিলবে এই শহরে বাস করার ছাড়পত্র।
এছাড়া উদ্যোগপতি হলেও আপনাকে স্বাগত জানাবে নতুন গড়ে ওঠা শহর টিউলসা। এক বছর ধরে কয়েকটি কিস্তিতে দশ হাজার ডলার নগদ টাকা নাগরিকদের হাতে তুলে দেবে শহর কর্তৃপক্ষ।

Trulli

শুরুতেই জিনিসপত্র নিয়ে এই শহরে আসার জন্য দিয়ে দেয়া হবে আড়াই হাজার ডলার। তার পর প্রতি মাসে বাড়ি ভাড়া বাবদ দেয়া হবে ৫০০ ডলার করে। আর এক বছর থাকা পূর্ণ হলে হাতে হাতে দিয়ে দেয়া হবে বাকি দেড় হাজার ডলার। অর্থাৎ এই শহরে থাকতে রাজি হলে সব মিলিয়ে এক বছরে মিলবে দশ হাজার ডলার। এছাড়া মিলবে একদম ফ্রিতে কাজ করার জায়গাও।

এখনও পর্যন্ত মোট ৬০০০ জন এই শহরে থাকতে চেয়ে আবেদন জানিয়েছেন। তাদের অধিকাংশকেই এই শহরে থাকতে জায়গা দেয়া হবে বলে জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

নিউইয়র্ক, ওয়াশিংটন, ক্যালিফোর্নিয়া, ফ্লোরিডার মতো বড় শহরে বাড়ছে জনসংখ্যার চাপ। তথ্যপ্রযুক্তি শিল্প আসার পর থেকে দেখা যাচ্ছে, ধনী শহরগুলো আরও ধনী হচ্ছে। অন্যদিকে খালি হয়ে যাচ্ছে ছোট ছোট শহরগুলো। আর্থিক স্বাচ্ছন্দের খোঁজে বহু মানুষ পাড়ি দিচ্ছেন বড় শহরে। সেই ধারা বদলাতেই নতুন ছকে হাঁটা শুরু করেছে টিউলসার মতো ছোট শহরগুলো। আর দেখা যাচ্ছে আর্থিক বৈষম্য রুখতে অনেকটাই সফল তারা। আমেরিকাতে কর্মহীন মানুষ মোট জনসংখ্যার ৩.৭ শতাংশ। সেখানে টিউলসা শহরে বেকারত্বের পরিমাণ তিন শতাংশ। অর্থাৎ, কর্মসংস্থানের পরিস্থিতি অনেকটাই ভাল গোটা দেশের তুলনায়।

অবশ্য শুধু টিউলসা নয়, লোক টানতে একই পথে হাঁটছে আমেরিকার অন্যান্য বেশ কিছু ছোট শহরও। বড় শহরের ওপর চাপ কমাতে এই অভিনব দাওয়াইতে সাড়া দিচ্ছেন সেই দেশের নাগরিকেরাও।

Adds Banner_2024
Adds Banner_2024

হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী

Adds Banner_2024

এই শহরে থাকলে প্রতি মাসে বাড়ি ভাড়া বাবদ দেয়া হবে ৫০০ ডলার

আপডেটের সময় : ০৪:৩৫:৪৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ নভেম্বর ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বাড়ি থেকে কাজ করাটাই এখন মার্কিন মুলুকে নয়া ট্রেন্ড। সেই ট্রেন্ডের সঙ্গে তাল মিলিয়েই আমেরিকায় এখন গড়ে উঠছে ছোট ছোট শহর। আর এইসব শহরে বাস করার জন্য নাগরিকদের আকৃষ্ট করতে দেয়া হচ্ছে নানান অফার। এমনই এক শহর গড়ে উঠেছে ওকলাহোমা প্রদেশের টিউলসা কাউন্টিতে। এই শহরে থাকতে রাজি হলে আর পাঁচটা সুযোগ সুবিধার পাশাপাশি মিলবে ডলারও।

আপনার কাজের ধরন যদি হয় ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’, তাহলেই মিলবে এই শহরে বাস করার ছাড়পত্র।
এছাড়া উদ্যোগপতি হলেও আপনাকে স্বাগত জানাবে নতুন গড়ে ওঠা শহর টিউলসা। এক বছর ধরে কয়েকটি কিস্তিতে দশ হাজার ডলার নগদ টাকা নাগরিকদের হাতে তুলে দেবে শহর কর্তৃপক্ষ।

Trulli

শুরুতেই জিনিসপত্র নিয়ে এই শহরে আসার জন্য দিয়ে দেয়া হবে আড়াই হাজার ডলার। তার পর প্রতি মাসে বাড়ি ভাড়া বাবদ দেয়া হবে ৫০০ ডলার করে। আর এক বছর থাকা পূর্ণ হলে হাতে হাতে দিয়ে দেয়া হবে বাকি দেড় হাজার ডলার। অর্থাৎ এই শহরে থাকতে রাজি হলে সব মিলিয়ে এক বছরে মিলবে দশ হাজার ডলার। এছাড়া মিলবে একদম ফ্রিতে কাজ করার জায়গাও।

এখনও পর্যন্ত মোট ৬০০০ জন এই শহরে থাকতে চেয়ে আবেদন জানিয়েছেন। তাদের অধিকাংশকেই এই শহরে থাকতে জায়গা দেয়া হবে বলে জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

নিউইয়র্ক, ওয়াশিংটন, ক্যালিফোর্নিয়া, ফ্লোরিডার মতো বড় শহরে বাড়ছে জনসংখ্যার চাপ। তথ্যপ্রযুক্তি শিল্প আসার পর থেকে দেখা যাচ্ছে, ধনী শহরগুলো আরও ধনী হচ্ছে। অন্যদিকে খালি হয়ে যাচ্ছে ছোট ছোট শহরগুলো। আর্থিক স্বাচ্ছন্দের খোঁজে বহু মানুষ পাড়ি দিচ্ছেন বড় শহরে। সেই ধারা বদলাতেই নতুন ছকে হাঁটা শুরু করেছে টিউলসার মতো ছোট শহরগুলো। আর দেখা যাচ্ছে আর্থিক বৈষম্য রুখতে অনেকটাই সফল তারা। আমেরিকাতে কর্মহীন মানুষ মোট জনসংখ্যার ৩.৭ শতাংশ। সেখানে টিউলসা শহরে বেকারত্বের পরিমাণ তিন শতাংশ। অর্থাৎ, কর্মসংস্থানের পরিস্থিতি অনেকটাই ভাল গোটা দেশের তুলনায়।

অবশ্য শুধু টিউলসা নয়, লোক টানতে একই পথে হাঁটছে আমেরিকার অন্যান্য বেশ কিছু ছোট শহরও। বড় শহরের ওপর চাপ কমাতে এই অভিনব দাওয়াইতে সাড়া দিচ্ছেন সেই দেশের নাগরিকেরাও।