spot_img

শীতকাল  - বুধবার | ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১৭ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি | ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

শীতকাল  - বুধবার | ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১৭ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

spot_imgspot_imgspot_img

বিয়ের প্রলোভনে এক গৃহবধূর সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা

spot_img
- বিজ্ঞাপন - 01309003902 -

জনপদ ডেস্ক: বরগুনার পাথরঘাটায় বিয়ের প্রলোভনে এক গৃহবধূর সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা করার অভিযোগ উঠেছে পাথরঘাটার আলম মোল্লা নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এছাড়া বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে আলম মোল্লা পরে গর্ভপাত ঘটিয়েছেন বলেও অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী নারী। তবে সকল অভিযোগ অস্বীকার করেন ওই ব্যবসায়ী। তিনি বলছেন তার বিরুদ্ধে একটি মহল ষড়যন্ত্র করে তাকে সমাজে হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য পায়তারা করছে।

অভিযুক্ত আলম মোল্লা উপজেলার কালমেঘা ইউনিয়নের ঘুটাবাছা এলাকার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মৃত নুর মোহাম্মদ মোল্লার ছেলে ও পাথরঘাটা বিএফডিসি মৎস্য আড়ৎদার।

মোবাইল ফোনের কল রেকর্ড ও স্থানীয় ভাবে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ব্যবসায়ী আলম মোল্লা মোটা অঙ্কের টাকা ও বিয়ে করার আশ্বাস দিয়ে ওই গৃহবধূকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে গর্ভের বাচ্চা নষ্ট করার জন্য বলেন। পরবর্তীতে ওই ব্যবসায়ীর প্রলোভনে রাজী হয়ে তার বাচ্চা নষ্ট করে ফেলেন। এরপর আলম মোল্লার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে আলম মোল্লা তাকে বিভিন্ন ধরনের হয়রানিসহ হুমকি দিয়ে আসছেন। যার মুঠোফোন রেকর্ড প্রতিবেদকের হাতে এসেছে।
ওই গৃহবধূ জানান, গত ৮ বছর পূর্বে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পরকীয়ায় সম্পর্ক ও অনৈতিক কার্যকলাপে লিপ্ত হন আলম মোল্লা। ওই গৃহবধূর স্বামী পেশায় জেলে শ্রমিক হওয়ায় মাছ শিকারের জন্য সাগরে বেশি থাকতেন। এ সুযোগে প্রায়ই তার বাসায় আসা-যাওয়া করতেন তিনি। গৃহবধূর বাড়ি পাথরঘাটা পৌরশহরের মধ্যে হওয়ায় বার বার আসা যাওয়া করায় ওই ব্যাবসায়ীকে নিয়ে স্থানীয় লোকজন গুঞ্জন রটায়। এরপর আলম মোল্লা তাকে পাথরঘাটা হাসপাতাল সড়কের নতুন একটি ভাড়া বাসা ঠিক করে দেয় এবং সেখানেও নিয়মিত আসা যাওয়া করেন বলেও জানান ওই ভাড়াটিয়া ঘরের মালিক আনু মোল্লা।

ওই গৃহবধূ আরো জানান, গত ৫ মাস পূর্বে তিনি অন্তঃসত্তা হয়ে পড়লে বিষয়টি আলম মোল্লাকে জানান। সে থেকেই তিনি আমাকে বিয়ে করবেন বলে আগে গর্ভের সস্তান নষ্ট করার জন্য আমাকে তার কর্মচারি দিয়ে বিভিন্ন ক্লিনিকে নিয়ে যেতে বলেন। আমি না গেলে আমাকে তিনি সন্তান নষ্ট করার জন্য ওষুধ দিয়ে যান। সন্তান নষ্ট করার পরে বিয়ের কথা বললে তিনি আমাকে এড়িয়ে যান। তার আচরণ সন্দেহজনক হলে তিনি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কথা বলে সেগুলো রেকর্ড করেন। পরে ব্যবসায়ী আলম মোল্লা কল রেকর্ডর বিষয়ে জানতে পেরে তার বোনের মেয়ে খোদেজা নামের এক নারীর মাধ্যমে গৃহবধূকে মারধর করে মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। বিষয়টি নিয়ে থানায় গেলে পাথরঘাটা থানার ওসি আবুল বাশার সাদা কাগজে স্বাক্ষর রেখে মোবাইল ফোনটি দিয়ে দেন বলে জানা গেছে।

অভিযোগের বিষয়ে ব্যবসায়ী আলম মোল্লার কাছে জানতে চাইলে তিনি সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এটা হলো আমাকে সামাজিক ভাবে হেয়পতিপন্ন করার জন্য কিছু লোক এগুলো করছে। তবে ফোন রেকর্ডের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এগুলো সব মিথ্যা ভিত্তিহীন এ সম্পর্কে আমি কিছু জানি না।

পাথরঘাটা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবুল বাশার বলেন, এমন বিষয়ে আমার কাছে এখন পর্যন্ত কেউ আসেনি বা লিখিত অভিযোগও করেনি। লিখিত আভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি তা অস্বীকার করেন।

spot_img

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, banglarjanapad@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন BanglarJanapad আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বাধিক পঠিত

- বিজ্ঞাপন - 01309003902spot_img