রাজশাহী , রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
রাজাকারের নাতিরা সব পাবে, মুক্তিযোদ্ধার নাতিপুতিরা কিছুই পাবে না? আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর অধিকার আমার নেই ফের ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম, দৃশ্যমান পদক্ষেপ চান কোটা আন্দোলনকারীরা আবাসন এবং হসপিটালিটি খাতে বিনিয়োগে আগ্রহী চীন : প্রধানমন্ত্রী ব্যারিকেড ভেঙে ফেলেছেন শিক্ষার্থীরা, যাচ্ছেন বঙ্গভবনের দিকে ট্রাম্পের ওপর হামলা নির্বাচনী প্রচারণায় কতটা প্রভাব ফেলবে? পূর্বঘোষিত গণপদযাত্রায় অংশ নিতে জড়ো হচ্ছেন শিক্ষার্থীরা ৭ অঞ্চলে সন্ধ্যার মধ্যে ঝড়ের আভাস কানে গুলিবিদ্ধ ট্রাম্প, বলছেন– যুক্তরাষ্ট্রে এমন হামলা অবিশ্বাস্য মামলা তুলে নিতে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম কোটা আন্দোলনকারীদের কোটা আন্দোলন : গণপদযাত্রা ও রাষ্ট্রপতিকে স্মারকলিপি দেবেন শিক্ষার্থীরা ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার : প্রধানমন্ত্রী পেনশন স্কিম নিয়ে ভুল বোঝাবুঝি দূর হয়েছে : ওবায়দুল কাদের ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকরা সরকার চাইলে কোটা পরিবর্তন করতে পারবে, হাইকোর্টের রায় প্রকাশ ব্যারিকেড ভেঙে ‘ভুয়া ভুয়া’ স্লোগান, উত্তাল শাহবাগ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ আন্দোলনকে বেগবান করতে জনসংযোগ, সমন্বয় করে কর্মসূচির ঘোষণা আজ চলমান কোটা আন্দোলন নিয়ে ছাত্রলীগের সংবাদ সম্মেলন কোটা আন্দোলনকারীদের জন্য আদালতের দরজা সবসময় খোলা

ট্রাম্প ও ইমরান পরস্পরকে টুইটারে ট্রল করেছেন

  • আপডেটের সময় : ০৫:৫৬:৩০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮
  • ৮০ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের লেগে গেছে।
গতকাল সোমবার ট্রাম্প ও ইমরান পরস্পরকে টুইটারে ট্রল করেছেন। একজন আরেকজনকে কটূক্তি করতে একটুও ছাড়েননি।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তানের মধ্যে সম্পর্কের আরও অবনতি হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

Trulli

গত রোববার ফক্স নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প অভিযোগ করেন, অ্যাবোটাবাদের একটি বাড়িতে আল-কায়েদার নেতা ওসামা বিন লাদেনকে লুকিয়ে রেখেছিল পাকিস্তান। দেশটির সামরিক একাডেমির কাছেই একটি চমৎকার বাড়িতে ছিলেন লাদেন। আর পাকিস্তানের সবাই তা জানত।

যুক্তরাষ্ট্রের জন্য কিছু না করায় পাকিস্তানকে ভর্ৎসনা করেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, পাকিস্তানকে শত শত কোটি ডলার সহায়তা দিয়ে আসছিল যুক্তরাষ্ট্র। আর সেই পাকিস্তানই লাদেনকে নিরাপদে লুকিয়ে থাকতে সাহায্য করেছিল। তারা পাকিস্তানকে আর কোনো অর্থ দেবে না। কারণ, পাকিস্তান যুক্তরাষ্ট্রের জন্য কিচ্ছু করেনি। কানাকড়িও করেনি।

ট্রাম্পের অভিযোগের জবাব দিতে সময় নেননি ইমরান। গতকাল টুইটারে তিনি ট্রাম্পকে একহাত নেন। এরপরই দুজনের মধ্যে টুইটারে পাল্টাপাল্টি তর্কযুদ্ধ চলে।

ইমরান বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের ব্যর্থতার জন্য পাকিস্তানকে বলির পাঠা না বানিয়ে ওয়াশিংটনের উচিত আফগানিস্তানে আগের চেয়ে তালেবান এখন কেন শক্তিশালী, তার কারণ খতিয়ে দেখা।

আরেক টুইটে ইমরান বলেন, নাইন/ইলেভেন-পরবর্তী যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসবাদবিরোধী যুদ্ধে অংশ নেওয়ায় পাকিস্তানের ৭৫ হাজার লোক হতাহত হয়েছে। ১২৩ বিলিয়ন ডলারের বেশি ক্ষতি হয়েছে। আর মার্কিন সহায়তা ছিল মাত্র ২০ বিলিয়ন ডলার।

পৃথক টুইটে ইমরান পাকিস্তানের ক্ষয়ক্ষতির বিবরণ দিয়ে প্রশ্ন করেন, আর একটা মিত্রের নামও কি ট্রাম্প বলতে পারবেন, যে এত ত্যাগ স্বীকার করেছে?

ইমরানের একের পর এক টুইটের কয়েক ঘণ্টার মাথায় ট্রাম্পও টুইটারে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এক টুইটে তিনি বলেন, বহু আগেই লাদেনের ধরা পড়া উচিত ছিল। পাকিস্তানকে যুক্তরাষ্ট্র বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার দিয়েছে। কিন্তু পাকিস্তান কখনোই বলেনি যে লাদেন তাদের ওখানেই আছেন।

আরেক টুইটে ট্রাম্প বলেন, ‘আমরা পাকিস্তানকে আর অর্থ দেব না। কারণ, তারা অর্থ নিয়ে আমাদের জন্য কিছুই করেনি। লাদেনের ঘটনা তার বড় উদাহরণ। আফগানিস্তান আরেকটি উদাহরণ।

Adds Banner_2024
জনপ্রিয় পোস্ট
Adds Banner_2024

বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ নেতার মায়ের মৃত্যুতে শোক

Adds Banner_2024

ট্রাম্প ও ইমরান পরস্পরকে টুইটারে ট্রল করেছেন

আপডেটের সময় : ০৫:৫৬:৩০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের লেগে গেছে।
গতকাল সোমবার ট্রাম্প ও ইমরান পরস্পরকে টুইটারে ট্রল করেছেন। একজন আরেকজনকে কটূক্তি করতে একটুও ছাড়েননি।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তানের মধ্যে সম্পর্কের আরও অবনতি হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

Trulli

গত রোববার ফক্স নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প অভিযোগ করেন, অ্যাবোটাবাদের একটি বাড়িতে আল-কায়েদার নেতা ওসামা বিন লাদেনকে লুকিয়ে রেখেছিল পাকিস্তান। দেশটির সামরিক একাডেমির কাছেই একটি চমৎকার বাড়িতে ছিলেন লাদেন। আর পাকিস্তানের সবাই তা জানত।

যুক্তরাষ্ট্রের জন্য কিছু না করায় পাকিস্তানকে ভর্ৎসনা করেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, পাকিস্তানকে শত শত কোটি ডলার সহায়তা দিয়ে আসছিল যুক্তরাষ্ট্র। আর সেই পাকিস্তানই লাদেনকে নিরাপদে লুকিয়ে থাকতে সাহায্য করেছিল। তারা পাকিস্তানকে আর কোনো অর্থ দেবে না। কারণ, পাকিস্তান যুক্তরাষ্ট্রের জন্য কিচ্ছু করেনি। কানাকড়িও করেনি।

ট্রাম্পের অভিযোগের জবাব দিতে সময় নেননি ইমরান। গতকাল টুইটারে তিনি ট্রাম্পকে একহাত নেন। এরপরই দুজনের মধ্যে টুইটারে পাল্টাপাল্টি তর্কযুদ্ধ চলে।

ইমরান বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের ব্যর্থতার জন্য পাকিস্তানকে বলির পাঠা না বানিয়ে ওয়াশিংটনের উচিত আফগানিস্তানে আগের চেয়ে তালেবান এখন কেন শক্তিশালী, তার কারণ খতিয়ে দেখা।

আরেক টুইটে ইমরান বলেন, নাইন/ইলেভেন-পরবর্তী যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসবাদবিরোধী যুদ্ধে অংশ নেওয়ায় পাকিস্তানের ৭৫ হাজার লোক হতাহত হয়েছে। ১২৩ বিলিয়ন ডলারের বেশি ক্ষতি হয়েছে। আর মার্কিন সহায়তা ছিল মাত্র ২০ বিলিয়ন ডলার।

পৃথক টুইটে ইমরান পাকিস্তানের ক্ষয়ক্ষতির বিবরণ দিয়ে প্রশ্ন করেন, আর একটা মিত্রের নামও কি ট্রাম্প বলতে পারবেন, যে এত ত্যাগ স্বীকার করেছে?

ইমরানের একের পর এক টুইটের কয়েক ঘণ্টার মাথায় ট্রাম্পও টুইটারে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এক টুইটে তিনি বলেন, বহু আগেই লাদেনের ধরা পড়া উচিত ছিল। পাকিস্তানকে যুক্তরাষ্ট্র বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার দিয়েছে। কিন্তু পাকিস্তান কখনোই বলেনি যে লাদেন তাদের ওখানেই আছেন।

আরেক টুইটে ট্রাম্প বলেন, ‘আমরা পাকিস্তানকে আর অর্থ দেব না। কারণ, তারা অর্থ নিয়ে আমাদের জন্য কিছুই করেনি। লাদেনের ঘটনা তার বড় উদাহরণ। আফগানিস্তান আরেকটি উদাহরণ।