রাজশাহী , বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
আগামীকাল সারাদেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের প্রাণহানির প্রতিটি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত হবে : প্রধানমন্ত্রী হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী অহেতুক কতগুলো মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী আন্দোলনকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ সহযোগিতা করেছে: প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী দাবি না মানায় রাবি উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন শিক্ষার্থীরা ছাত্রশিবির-ছাত্রদল এবং বহিরাগতরা ঢাবির হলে তাণ্ডব চালিয়েছে: মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী হল ছাড়বেন না রাবি শিক্ষার্থীরা, তিন দাবিতে বিক্ষোভ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা ঢাবির সব হল সাধারণ শিক্ষার্থীদের দখলে এবার সিটি কর্পোরেশন এলাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা হামলার ভয়ে হল ছাড়ছেন রাবি শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কার আন্দোলন: বৃহস্পতিবারের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা রাবির বঙ্গবন্ধু হলে অগ্নিসংযোগ, শহরে খণ্ড খণ্ড বিক্ষোভ লাঠিসোঁটা নিয়ে রাবিতে বিক্ষোভ, বঙ্গবন্ধু হলে ভাঙচুর, বাইকে আগুন রাজশাহীতে ৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন রাবিতে হলে ঢুকে মোটরসাইকেলে আগুন, ব্যাপক ভাঙচুর চট্টগ্রামে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ

যে চারটি প্রেক্ষাগৃহে দেখা যাবে হাসিনা: এ ডটার’স টেল’র প্রিমিয়ার

  • আপডেটের সময় : ০৪:০১:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮
  • ২৮৬ টাইম ভিউ
Adds Banner_2024

ঢাকা প্রতিনিধি: ১৯৭৫ সালে ইতিহাস থমকে দাড়ায়। জাতির গতিপথ উল্টো দিকে যাত্রা করে। এর মাঝেই ত্রাতা হয়ে আলোর ঝলকানির মতো উঠে আসলেন তিনি। জাতির কঠিন কঠিন সময়ে দিয়েছেন নেতৃত্ব। বঙ্গকন্যা তিনি; শেখ হাসিনা, কিন্তু তারও তো আছে, কতশত শত আনন্দ-বিষাদ। আর এমন ব্যক্তি জীবন নিয়ে নির্মিত হয়েছে ‘হাসিনা: এ ডটার’স টেল’ নামে ডক্যুড্রামা। আজ সন্ধ্যায় প্রিমিয়ার শো’র পরে ১৬ নভেম্বর দেশের ৪টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে চলচ্চিত্রটি। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বঙ্গকন্যার ব্যক্তিজীবন কাব্যিক ভাষায় উপস্থাপন করা হয়েছে ডক্যুড্রামাটিতে, যাতে উঠে আসবে মানবিক এক ইতিহাস।

জ্যোতির্ময়; পরিপূর্ণ সমৃদ্ধি, বৈভবময় ইতিহাসকে হত্যা করা হয় পঁচাত্তরে। ইতিহাসের প্রগতির প্রভাব স্তব্ধ হতে পারত তখনই। একই প্রবাহ নিয়ে ইতিহাসের সিঁড়ি বেয়ে উঠে আসলেন, ঐশ্বর্যদীপ্ত বিশাল উত্তরাধিকার। এ যেন পিতৃমন্ত্রে সহজাত দীক্ষা বংশধরের। বঙ্গবন্ধু কন্যা তিনি, তাই ধমনী শিরায় একই ব্রত। উঠে আসলেন তিনি, দাঁড়ালেন জনতার কাতারে।

Trulli

তবে, সহজ ছিল না পথচলা। একজন সাধারণ নারী বাবা-মা, স্বজন-পরিজন হারিয়েও বোনকে নিয়ে কি করে টিকে থাকলেন? কতটা অশ্রু পার হয়ে তাকে আসতে হয়েছে ইতিহাসের ধারায়। সে অন্দরের খবর হয়তো সবার অজানা। এবার সেই অজানা আখ্যান বন্দী হলো সেলুলয়েডের ফিতায়। তবে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নয়, বঙ্গবন্ধু কন্যার গল্প ফুটিয়ে তোলা হয়েছে ‘হাসিনা: এ ডটার’স টেল’ নামে ডক্যুড্রামায়।

একজন প্রধানমন্ত্রী; কেমন তার জীবন যাপন। কেমনই বা তার বিষাদ, বিজয়, সম্পর্কের নৈকট্য। এ সবই উঠে এসেছে এই ডকুড্রামায়।

৭০ মিনিট ব্যাপ্তির চলচ্চিত্রটি একজন ব্যক্তির হলেও, এই জনপদের ইতিহাসের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠবে এমন প্রত্যাশার কথা বলছেন চলচ্চিত্রটির পরিচালক।

এ ডটারস টেল চলচ্চিত্রের পরিচালক পিপলু খান বলেন, এটা এমন একটা সময়কে নিয়ে গল্প বলা যে সময়টা অলরেডি ইতিহাস। এটার একটা ইমপ্যাক্ট অলরেডি আমাদের মধ্যে আছে। দর্শকদের মধ্যে এটা ইমপ্যাক্ট তৈরি করতে পারলে তারাই বুঝতে পারবে এটা ইতিহাসের অংশ হবে কিনা। এটাতে হিস্টোরিক্যাল ইলিমেন্ট খুব স্ট্রংলি পুট করা। যাদের বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাস নিয়ে খুব আগ্রহ তারা ছবিটা দেখতে পারে।

সন্ধ্যায় চলচ্চিত্রটির প্রিমিয়ার শো অনুষ্ঠিত হবে। আগামীকাল, ১৬ই নভেম্বর ঢাকার তিনটি এবং চট্টগ্রামের একটি প্রেক্ষাগৃহে সর্বসাধারণের জন্য মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে বহুল প্রত্যাশিত শেখ হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল।

Adds Banner_2024
Adds Banner_2024

রাবিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযান, ৪ ঘণ্টা পর অবমুক্ত উপাচার্য

Adds Banner_2024

যে চারটি প্রেক্ষাগৃহে দেখা যাবে হাসিনা: এ ডটার’স টেল’র প্রিমিয়ার

আপডেটের সময় : ০৪:০১:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮

ঢাকা প্রতিনিধি: ১৯৭৫ সালে ইতিহাস থমকে দাড়ায়। জাতির গতিপথ উল্টো দিকে যাত্রা করে। এর মাঝেই ত্রাতা হয়ে আলোর ঝলকানির মতো উঠে আসলেন তিনি। জাতির কঠিন কঠিন সময়ে দিয়েছেন নেতৃত্ব। বঙ্গকন্যা তিনি; শেখ হাসিনা, কিন্তু তারও তো আছে, কতশত শত আনন্দ-বিষাদ। আর এমন ব্যক্তি জীবন নিয়ে নির্মিত হয়েছে ‘হাসিনা: এ ডটার’স টেল’ নামে ডক্যুড্রামা। আজ সন্ধ্যায় প্রিমিয়ার শো’র পরে ১৬ নভেম্বর দেশের ৪টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে চলচ্চিত্রটি। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বঙ্গকন্যার ব্যক্তিজীবন কাব্যিক ভাষায় উপস্থাপন করা হয়েছে ডক্যুড্রামাটিতে, যাতে উঠে আসবে মানবিক এক ইতিহাস।

জ্যোতির্ময়; পরিপূর্ণ সমৃদ্ধি, বৈভবময় ইতিহাসকে হত্যা করা হয় পঁচাত্তরে। ইতিহাসের প্রগতির প্রভাব স্তব্ধ হতে পারত তখনই। একই প্রবাহ নিয়ে ইতিহাসের সিঁড়ি বেয়ে উঠে আসলেন, ঐশ্বর্যদীপ্ত বিশাল উত্তরাধিকার। এ যেন পিতৃমন্ত্রে সহজাত দীক্ষা বংশধরের। বঙ্গবন্ধু কন্যা তিনি, তাই ধমনী শিরায় একই ব্রত। উঠে আসলেন তিনি, দাঁড়ালেন জনতার কাতারে।

Trulli

তবে, সহজ ছিল না পথচলা। একজন সাধারণ নারী বাবা-মা, স্বজন-পরিজন হারিয়েও বোনকে নিয়ে কি করে টিকে থাকলেন? কতটা অশ্রু পার হয়ে তাকে আসতে হয়েছে ইতিহাসের ধারায়। সে অন্দরের খবর হয়তো সবার অজানা। এবার সেই অজানা আখ্যান বন্দী হলো সেলুলয়েডের ফিতায়। তবে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নয়, বঙ্গবন্ধু কন্যার গল্প ফুটিয়ে তোলা হয়েছে ‘হাসিনা: এ ডটার’স টেল’ নামে ডক্যুড্রামায়।

একজন প্রধানমন্ত্রী; কেমন তার জীবন যাপন। কেমনই বা তার বিষাদ, বিজয়, সম্পর্কের নৈকট্য। এ সবই উঠে এসেছে এই ডকুড্রামায়।

৭০ মিনিট ব্যাপ্তির চলচ্চিত্রটি একজন ব্যক্তির হলেও, এই জনপদের ইতিহাসের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠবে এমন প্রত্যাশার কথা বলছেন চলচ্চিত্রটির পরিচালক।

এ ডটারস টেল চলচ্চিত্রের পরিচালক পিপলু খান বলেন, এটা এমন একটা সময়কে নিয়ে গল্প বলা যে সময়টা অলরেডি ইতিহাস। এটার একটা ইমপ্যাক্ট অলরেডি আমাদের মধ্যে আছে। দর্শকদের মধ্যে এটা ইমপ্যাক্ট তৈরি করতে পারলে তারাই বুঝতে পারবে এটা ইতিহাসের অংশ হবে কিনা। এটাতে হিস্টোরিক্যাল ইলিমেন্ট খুব স্ট্রংলি পুট করা। যাদের বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাস নিয়ে খুব আগ্রহ তারা ছবিটা দেখতে পারে।

সন্ধ্যায় চলচ্চিত্রটির প্রিমিয়ার শো অনুষ্ঠিত হবে। আগামীকাল, ১৬ই নভেম্বর ঢাকার তিনটি এবং চট্টগ্রামের একটি প্রেক্ষাগৃহে সর্বসাধারণের জন্য মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে বহুল প্রত্যাশিত শেখ হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল।